আলোকিত মানুষের সন্ধানে আলোকিত মানুষের সন্ধানে - ajkerparibartan.com
আলোকিত মানুষের সন্ধানে

3:44 pm , July 5, 2022

মিজান রহমান ॥ এই বিশে^ সকলেরই লক্ষ্য থাকছে ক্ষুধা, দারিদ্র্য, অন্যায়, অত্যাচার বর্জিত একটি আলোকিত সমাজ গঠন। কিন্তু আমরা পারছি কই। আলোকিত সমাজ গঠন করতে হলে চাই আলোকিত মানুষ। আর আলোকিত মানুষ বলতে বুঝায় বিশ^াসীদের, যারা অন্যায়ের কাছে হার মানে না, মিথ্যাকে প্রশ্রয় দেয় না, যারা বিনয়ী, সুবিচার ও ইনসাফ যাদের স্বভাব। যারা নি:স্বার্থভাবে যান-মাল দিয়ে সমাজ ও মানবকল্যাণে সেচ্ছাসেবী হিসেবে যে কোন কাজে নিজের জীবন বিলিয়ে দেন। এ ধরনের মানুষকে আলোকিত মানুষ বলা হয়। সমাজের বিভিন্ন স্তরে এ ধরণের মানুষ এখনো আছে এবং আগামীতেও থাকবে। তবে সংখ্যায় কম।
তারা দেশ সমাজ ও রাষ্ট্রকে আলোকিত করেন। ভবিষ্যৎ সমাজে আলোর বীজ রোপণ করে ভালো মানুষ তৈরি করেন। মানুষকে মানবিক মূল্যবোধ শেখান ও অবচেতন মনকে জাগিয়ে তোলেন। সমাজকে পরিচালিত করেন আলোর পথে। তাই এক কথায় বলতে পারি আলোকিত মানুষ মানেই একজন নিঃস্বার্থ মানুষ।
আলোকিত মানুষ তারাই যারা পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রসহ বিভিন্ন অঙ্গনে যৌক্তিক নেতৃত্ব দিয়ে সমাজকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যান। যাদের নিরাহংকার জ্ঞান, প্রজ্ঞা, সততা এবং কর্ম মানুষকে সত্যিকারের মানুষ হতে অনুপ্রাণিত করে তারাই আলোকিত মানুষ। আলোকিত মানুষ হতে হলে অবশ্যই ভালো মনের মানুষ হতে হবে।
আজকের বিধ্বস্ত মানবজীবন, ঘুণেধরা, ক্ষয়ে যাওয়া সমাজটাকে পরিবর্তন করে মানুষের জন্য বসবাসযোগ্য করে গড়ে তোলার জন্য চাই আলোকিত মানুষ।
আলোকিত মানুষ যারা তারা নিজের অর্থ, শ্রম, বুদ্ধি, মেধা, জনবল দিয়ে জীবন বাজি রেখে অত্যাচার, নির্যাতন ও অবহেলা সহ্য করে লাভের চিন্তা না করে মানব উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন সকলের অজান্তে। অনেকের কৃর্তী তার চেয়েও মহান, হয়তো তিনি নিজেও জানেন না, কি কাজ তিনি করেছেন। অন্যদিকে সমাজও তেমন কিছুই জানে না। এসব মানুষ অকাতরে নিজের অর্থ ও শ্রম দান করে মানুষের জন্য, সমাজের জন্য দেশের জন্য কাজ করে চলেছেন। অনেকেই তাকে চেনেন না, তিনি বলেন না। এসব মানুষ থাকেন চোখের আঁড়ালে। সমাজ অনেকের ত্যাগের কথা জানতে পারে তার মৃত্যুর পর। কাউকে কাউকে সম্মানীত করা হয়, পুরুষ্কার, ক্রেস্ট ও সম্মাননা দেয়া হয় মরণোত্তর। কদাচিৎ স্মরণসভা করা হয় যা আবার অনেকের ভাগ্যে জোটে না। এ ধারণাকে মাথায় রেখে বরিশাল জেলার প্রতিটি উপজেলার মহান, দরদী, মানবিক, কৃর্তীমান আলোকিত মানুষদের নিয়ে একটি প্রকাশনা বের করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে ব্যক্তি উদ্যোগে। সেইসব আলোকিত মানুষের মহতি নানা কাজের কথা, তার জীবন চক্র মৃত্যুর আগেই জানতে পারবে সমাজ। তিনিও জেনে যাবেন সমাজের জন্য তার অবদানের কথা। প্রথম পর্যায় বানারীপাড়া উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন থেকে সমান হারে ১০০ জন আলোকিত জীবিত মানুষ খোঁজা হবে। যাদের বয়স কমপক্ষে ৬০ বছর, শিক্ষাগত যোগ্যতা উন্মুক্ত, যারা গ্রামে বসবাস করেন, সেইসব মানুষই হবেন এই বইয়ের আলোকিত মানুষ। এতে কোন আর্থিক সুবিধা, এনজিও, রাজনীতির সংশ্লিষ্টতা নেই। আগামী বই মেলায় বইটি প্রকাশিত হবে। বইটি যে কেউ সংগ্রহ করতে পারবেন। বইটির নাম (প্রস্তাবিত) হবে ‘আলোকিত বানারীপাড়া’। এ স্বীকৃতি তাদের উৎসাহ যোগাবে এবং সমাজ বিনির্মাণে আগামী প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT