ঘুষ নেয়া ও ফাও খাওয়ায় কাষ্টমসের তিনজনকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি, তদন্ত কমিটি গঠন ঘুষ নেয়া ও ফাও খাওয়ায় কাষ্টমসের তিনজনকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি, তদন্ত কমিটি গঠন - ajkerparibartan.com
ঘুষ নেয়া ও ফাও খাওয়ায় কাষ্টমসের তিনজনকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি, তদন্ত কমিটি গঠন

3:35 pm , June 28, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ঘুষ গ্রহন ও হোটেলে খাবার খেলে বিল না দেয়ার (ফাও খাওয়ার) অভিযোগে কাষ্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগের বরিশাল কার্যালয়ের তিন জনকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এছাড়াও ঘটনা তদন্তে খুলনা বিভাগীয় কার্যালয়ের এক ডেপুটি কমিশনারকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে বরিশাল কার্যালয়ের রাজস্ব কর্মকর্তা (চলতি দায়িত্ব) মো. তরিকুল ইসলাম জানিয়েছেন। তিনি জানান, আগৈলঝাড়া উপজেলার বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ঘুষ নেয়া ও ফাও খাওয়ার অভিযোগ উঠেছে দুই কর্মকর্তাসহ তিনজনের বিরুদ্ধে তারা হলেন- কাস্টম্স এক্সসাইজ ও ভ্যাট এর সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা রোমান হাওলাদার, সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মেহেদী হাসান তনয় ও সাব-ইন্সপেক্টর হানিফ হাওলাদার। তাদের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এছাড়াও দপ্তরের বিভাগীয় কার্যালয় ঘটনা তদন্তে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছে। কমিটির প্রধান একজন ডেপুটি কমিশনারকে করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পেলে পরবর্তি ব্যবস্থা নেয়া বলে জানিয়েছেন।
কত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে ও তদন্ত কমিটিতে কারা রয়েছেন, সেই বিষয়ে তাকে বিস্তারিত জানানো হয়নি বলে জানান রাজস্ব কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম।
আগৈলঝাড়া উপজেলার চাঁন মিয়া হোটেলের স্বত্তাধিকারী চাঁন মিয়া জানান, সোমবার দুপুরে তার হোটেলে চারজন খাবার খায়। বিল চাইলে তারা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে নিজেদের কাস্টম্স এক্সসাইজ ও ভ্যাট কর্মকর্তা পরিচয় দেয়।
চান মিয়ার অভিযোগ এর আগেও তারা কয়েকবার এভাবে হোটেলে খাবার খেয়ে পরিচয় দিয়ে রওনা দেয়। এ সময় উপজেলার আইসক্রিম ফ্যাক্টরির মালিক বাবু ফকির এসে তাদের ৬ হাজার টাকা দেয়।
বাবু ফকির জানান, ওই চারজন তার ফ্যাক্টরীতে গিয়ে বরিশাল থেকে গাড়িতে আসা বাবদ ৬ হাজার টাকা দাবি করেন। ওই টাকা নিয়ে চান হোটেলে দেখা করতে বলেন। টাকা নিয়ে চান হোটেলে গিয়ে দেখতে পান ওই কর্মকর্তাদের সাথে হোটেল মালিকসহ আরো কিছু ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকদের বাগ-বিতন্ডা হচ্ছে। এ কারনে টাকা না দিয়ে তাদের ইউএনও’র কাছে নিয়ে যাওয়া হয়।
আগৈলঝাড়ার ইউএনও সাখাওয়াত হোসেন বলেন, তাদের অর্থ দাবির ফোন রেকর্ডিং শুনে তাৎক্ষনিক বরিশাল কাস্টম্স এক্সসাইজ ও ভ্যাট রাজস্ব কর্মকর্তা তারিকুল ইসলামকে বিষয়টি অবহিত করা হয়।
তিনি (রাজস্ব কর্মকর্তা) মঙ্গলবার দুপুরে জানিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT