পিরোজপুর থেকে ৮ লঞ্চে ২০ হাজার মানুষ যাবে পদ্মাপাড়ে পিরোজপুর থেকে ৮ লঞ্চে ২০ হাজার মানুষ যাবে পদ্মাপাড়ে - ajkerparibartan.com
পিরোজপুর থেকে ৮ লঞ্চে ২০ হাজার মানুষ যাবে পদ্মাপাড়ে

3:45 pm , June 24, 2022

পরিবর্তন ডেস্ক ॥ আজ দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার স্বপ্নের পদ্মা সেতুর দ্বার খুলে যাবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে এ স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন করবেন।আর পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে পিরোজপুরসহ দক্ষিণাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকার যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের আর্থসামাজিক ক্ষেত্রে ঘটবে বৈপ্লবিক পরিবর্তন।এদিকে পদ্মা সেতু উদ্বোধন ঘিরে পিরোজপুর জেলার সাত উপজেলার সর্বত্র বিরাজ করছে আনন্দঘন পরিবেশ।পিরোজপুরের বিভিন্ন এলাকায় চলছে ব্যাপক আনন্দের আমেজ। চলছে সাজ সাজ রব।জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন নিয়েছে ব্যাপক কর্মসূচী।বেলুন ওড়ানো, পায়রা ওড়ানো, বর্ণাঢ্য র‌্যালি, দিনভর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সন্ধ্যায় আতশবাজির ঝলকানিতে মুখর হবে এখানকার জনপদ। ইতোমধ্যে আলোকসজ্জায় সজ্জিত হয়েছে পুরো শহর।পদ্মাপাড়ের উদ্বোধনী সমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে পিরোজপুর জেলা থেকে শুক্রবার (২৪ জুন) থেকে ৮টি বড় দোতলা লঞ্চে প্রায় ২০ হাজার মানুষ রওয়ানা হয় পদ্মাপাড়।পিরোজপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মহিউদ্দিন মহারাজের নেতৃত্বে দলীয় নেতাকর্মী, জনপ্রতিনিধি, পেশাজীবীসহ বিভিন্ন স্তরের ২০ হাজার মানুষ সমাবেশে যোগ দেবেন। কীর্তনখোলা ১০, যুবরাজ ৭, সুরভী ৯, পারাবত ৮, মর্নিংসান ৯ ও ঈগল ৮-সহ আরও ২টি লঞ্চে সমাবেশে অংশ নেবেন তারা।জানা গেছে, শুক্রবার ভান্ডারিয়া উপজেলার লোকজন চরখালী লঞ্চঘাট থেকে কীর্তনখোলা ১০ ও যুবরাজ ৭ লঞ্চে উঠেনে। মঠবাড়িয়া উপজেলার বড়মাছুয়া স্টিমার ঘাট থেকে সুরভী ৯ লঞ্চে, ইন্দুরকানী উপজেলার ইন্দুরকানী লঞ্চঘাট থেকে পারাবত ৮ লঞ্চে এবং কাউখালী উপজেলার লোকজন কাউখালী লঞ্চঘাট থেকে মর্নিংসান ৯ লঞ্চে উঠেন। এ ছাড়া হুলারহাট বন্দর লঞ্চঘাট থেকে ছেড়ে যায় ঈগল ৮ লঞ্চ। এ লঞ্চে পিরোজপুর সদর উপজেলা, নাজিরপুর ও নেছারাবাদ (স্বরূপকাঠি) উপজেলার লোকজন উঠেন।লঞ্চগুলো শুক্রবার (২৪ জুন) বিকেল ৪টায় সংশ্লিষ্ট ঘাট থেকে ছেড়ে গিয়ে কাউখালীর আমরাজুরী ফেরিঘাটে একত্রিত হয়। সেখানে মহিউদ্দিন মহারাজের নেতৃত্বে আতশবাজি ফুটানোসহ বিভিন্ন ধরনের আনন্দ-উৎসব সম্পন্ন করে একযোগে লঞ্চগুলো কাঁঠালবাড়ি ঘাটের উদ্দেশে রওনা করে।লঞ্চগুলো ২৪ জুন রাতে কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটে পৌঁছে সেখানে অবস্থান করবে এবং ২৫ জুন সকাল ৮টায় নেতাকর্মীদের নিয়ে সমাবেশস্থলে যোগদান করবে।এ বিষয়ে পিরোজপুর জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মহিউদ্দিন মহারাজ বলেন, ‘অনেক বাধাবিপত্তি ও নানা ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বপ্নের পদ্মা সেতু নির্মাণ করেছেন। এটি দেশবাসীর জন্য গৌরবের বিষয়। আর এ পদ্মা সেতুর ফলে পিরোজপুরসহ দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা, অর্থনৈতিক, সামাজিক, শিল্প-কলকারখানার ও ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারসহ সর্বক্ষেত্রে বৈপ্লবিক উন্নয়ন হবে। তাই কালের সাক্ষী হতে ২৫ জুন স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে সমাবেশ ও অনুষ্ঠানমালায় দলীয় নেতাকর্মীসহ পিরোজপুর জেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ২০ হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করবে। পিরোজপুর থেকে ৮টি লঞ্চে আমরা একত্রিত হয়ে পদ্মাপাড়ে যাব।’উল্লেখ্য, স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ছয়টি বিশাল আকৃতির লঞ্চ ভাড়া এবং প্রায় ২০ হাজার নেতাকর্মীর চার বেলা খাবারসহ যাবতীয় ব্যয়ভার ব্যক্তিগতভাবে বহন করবেন মো. মহিউদ্দিন মহারাজ।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT