শায়েস্তাবাদে কন্যা হত্যায় মা গ্রেপ্তার শায়েস্তাবাদে কন্যা হত্যায় মা গ্রেপ্তার - ajkerparibartan.com
শায়েস্তাবাদে কন্যা হত্যায় মা গ্রেপ্তার

3:24 pm , June 4, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ আবারো পরকিয়া প্রেমের বলি হয়েছে শিশু। উজিরপুরের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারো ঘটেছে একই ঘটনা। সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ ইউপিতে পরকিয়া প্রেমিককে নিয়ে পঞ্চম শ্রেনী পড়–য়া শিশু কন্যাকে হত্যা করেছে মা। তাকে গ্রেপ্তারের পর পুলিশের কাছে নিজের কন্যাকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। তবে হত্যাকারী পরকিয়া প্রেমিক ও হত্যার ঘটনা ধামাচাপা দিতে সহায়তাকারী ইউপি সদস্যকে গ্রেপ্তার করা যায়নি বলে মহানগরীর (বিএমপি) উপ-পুলিশ কমিশনার মো. জাকির হোসেন মজুমদার পিপিএম জানিয়েছেন।
গ্রেপ্তার ওই নারী হলো-লিপি আক্তার (৩০)। সে বরিশাল সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ ইউপির ছোট রাজাপুর গ্রামের জেলে সোহরাব হাওলাদারের স্ত্রী। পালিয়ে যাওয়া আসামীরা হলো-ওই নারীর পরকিয়া প্রেমিক এবং একই ইউপির রামকাঠি গ্রামের বাসিন্দা নুরু খানের ছেলে কবির খান (৫০) ও শায়েস্তাবাদ ইউপির ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য ও পানবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা সোবাহান খানের ছেলে জসিমউদ্দিন খান (৫২)। পুলিশ জানিয়েছে, গত ২৭ মে স্কুল ছাত্রী শিশু তন্নী আক্তারকে (১৩) হত্যার পর ঝুলিয়ে রাখে মা লিপি ও তার প্রেমিক কবির খান। পরে বিষয়টি আত্মহত্যা বলে প্রচার করে। ঘটনার এক সপ্তাহ পর রহস্য উদ্ধার ও মা লিপিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
উপ-পুলিশ কমিশনার জাকির হোসেন মজুমদার জানান, গত ২৭ মে সকাল ১০ টার দিকে লিপি নিজ ঘরে পরকিয়া প্রেমিক কবির খানের সাথে অনৈতিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। ঘরে এসে কন্যা তন্নী বিষয়টি দেখতে পায় ও ঘটনা বাবা সোহরাব হাওলাদারের কাছে প্রকাশ করার হুমকি দেয়। তখন লিপি ও কবির গামছা দিয়ে শ^াসরোধ করে তাকে হত্যা করে। পরে ওই গামছা দিয়ে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখে। কিছু সময় পর মা লিপি ডাক-চিৎকার করে লোকজন জড়ো করে। প্রতিবেশিরা এলে লাশ নামিয়ে ফেলে। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের পর লাশ হস্তান্তর করেছে। এছাড়াও এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যুও মামলা করেছে পুলিশ। মামলার তদন্ত করে শিশু তন্নীকে হত্যার প্রমান পেয়ে মাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
হত্যাকারী মা লিপির বরাতে জানান, তন্নীর গলায় ওড়না পেচিয়ে শ্বাসরোধ করেছে কবির। আর তার মা লিপি বেগম দুই পা চেপে ধরেছে। মৃত্যু নিশ্চিত করার পর উভয় পরামর্শ করে ঝুলিয়ে রেখেছে।
কাউনিয়া থানার ওসি আব্দুর রহমান মুকুল জানিয়েছেন, হত্যার ঘটনায় নারীর স্বামী সোহরাব হাওলাদার বাদী হয়ে মামলা করেছে। মামলায় প্রধান আসামী করা হয়েছে স্ত্রীর পরকিয়া প্রেমিক কবির খানকে। এছাড়াও ইউপি সদস্য জসিম উদ্দীনকে হত্যাকারীকে পালিয়ে যেতে সহায়তা ও ঘটনা ধামাচাপা দেয়ায় সহায়তা করায় মামলায় আসামী করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT