দুই উপজেলার তিন চাকার চালকদের মধ্যে বিরোধ কাঠালিয়া-ভান্ডারিয়া মহাসড়কে যাত্রী ভোগান্তি চরমে দুই উপজেলার তিন চাকার চালকদের মধ্যে বিরোধ কাঠালিয়া-ভান্ডারিয়া মহাসড়কে যাত্রী ভোগান্তি চরমে - ajkerparibartan.com
দুই উপজেলার তিন চাকার চালকদের মধ্যে বিরোধ কাঠালিয়া-ভান্ডারিয়া মহাসড়কে যাত্রী ভোগান্তি চরমে

3:59 pm , May 31, 2022

কাঠালিয়া প্রতিনিধি ॥ ঝালকাঠির ভান্ডারিয়া-কাঠালিয়া মহাসড়কে যাত্রী ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। দুই উপজেলার তিন চাকার যানবাহন চালকের বিরোধের কারনে দীর্ঘ দেড় মাস ধরে, কাঠালিয়া টু ভান্ডারিয়া ১২ কিলোমিটার রাস্তায় অটোরিকশা, মোটর সাইকেল, সিএনজি, মাহিন্দ্রা, চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে এই দুই উপজেলার যাত্রীরা। এ বিষয়ে কাঠালিয়ার অটো চালক মো. মিলন হোসেন বলেন, কাঠালিয়া ড্রাইভাররা ভান্ডারিয়া যাত্রী নিয়ে গেলেই, ভান্ডারিয়া বাস স্ট্যান্ডে থাকা, অটো শ্রমিকরা ও ড্রাইভাররা কাঠালিয়া ড্রাইভারদের মারধর শুরু করে। এতে আমাদের কাঠালিয়ার কয়েকজন ড্রাইভার গুরুতর আহত হয়েছে। বিষয়টি কাঠালিয়া থানার ওসি, ইউএনওদের জানানো হয়েছে। অটো চালক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ভান্ডারিয়ার ড্রাইভাররা যাত্রী নিয়ে কাঠালিয়া তে আসবে এবং যাত্রী বোঝাই করে যাবে, তাতে কেউ কিছু বলতে পারবে না তাদের। কিন্তু আমরা কাঠালিয়ার ড্রাইভাররা ভান্ডারিয়া যাত্রী নিয়ে যাওয়ার পর সেখান থেকে যাত্রী নিয়ে আসতে গেলে তারা আমাদেরকে গালাগালি ও মারধর শুরু করে। কাঠালিয়া ড্রাইভার মো. রাসেল জানান, কাঠালিয়া থেকে আমরা যখন লোক নিয়ে যাই, তখন আমাদের ভান্ডারিয়া পৌরসভার টোল রাখে ২০ টাকা এবং অটো স্ট্যান্ডে রাখে ১০ টাকা। মোট ত্রিশ টাকা তাদের বাধ্যতা মূলক দিতেই হবে, এর বিনিময় দুই এক জন যাত্রী চলতি পথে হাত জাগিয়ে গাড়িতে উঠতে চাইলে, তখনই তারা কঠিনভাবে মার ধর শুরু করে ও মা-বোন তুলে গালি দেয় । কাঠালিয়া থানার ওসি মুরাদ আলী বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন। তাই পুলিশ বাধ্য হয়ে উভয় পক্ষের ড্রাইভারদের যথাযথ থানা এরিয়ায় চলার নির্দেশ প্রদান করেছেন।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT