ভেঙে ফেলা হলো নগরীর চন্দ্রদীপ টাওয়ারে নির্মিত অবৈধ মুমীতু কমিউনিটি সেন্টার ভেঙে ফেলা হলো নগরীর চন্দ্রদীপ টাওয়ারে নির্মিত অবৈধ মুমীতু কমিউনিটি সেন্টার - ajkerparibartan.com
ভেঙে ফেলা হলো নগরীর চন্দ্রদীপ টাওয়ারে নির্মিত অবৈধ মুমীতু কমিউনিটি সেন্টার

3:48 pm , May 31, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ অবশেষে ভেঙে ফেলা হলো নগরীর শীতলাখোলায় অবস্থিত চন্দ্রদীপ টাওয়ারের নির্মিত অবৈধ মুমীতু কমিউনিটি সেন্টার। মঙ্গলবার দুপুরে বরিশাল সিটি করপোরেশন এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে। ভবনের মূল প্রবেশ পথ বন্ধ করে প্লান বর্হিভূত ভাবে নির্মান করায় এর আগে দুই দফা চিঠি দিয়ে কমিউনিটি সেন্টার ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেয় সিটি করপোরেশন। কিন্তু ভবন মালিক শাহিন হোসেন মল্লিক সে আদেশ অমান্য করে কার্যক্রম পরিচালনা করতে থাকেন। সর্ব শেষ বিষয়টি আলোচনায় আসে সময় টিভির সাংবাদিক অপূর্ব অপুর অপহরন চেষ্টার ঘটনার পর। কারন সিটি ফুটেজে দেখা গেছে অপহরন চেষ্টাকারীরা ঘটনার আগে ও পরে ওই কমিউনিটি সেন্টারে অবস্থান করেছে। বিষয়টি সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহকে অবহিত করা হলে তিনি দ্রুত কমিউনিটি সেন্টার ভেঙে ফেলার নির্দেশ প্রদান করেন। এ ঘটনায় ভবনের ২১ টি পরিবার স্বস্তি প্রকাশ করেছেন। কর্পোরেশন সূত্রে জানা গেছে, বহুতল ওই ভবনটির জায়গার মালিক শাহিন হোসেন মল্লিক মামুন। আর ভবনটি ডেভলপারের মাধ্যমে নির্মাণ করা হয়েছে। সিটি কর্পোরেশনের স্থপতির দায়িত্বে থাকা হাসিব মাহমুদ জানান, ভবন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান হিলভিউ হাউজিং লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নজরুল ইসলাম ওই ভবনের ২১ জন ভাড়াটিয়ার সাক্ষরসহ ২০২১ সালের ১৮ নভেম্বর সিটি কর্পোরেশনে একটি লিখিত অভিযোগ দেয়। যেখানে প্লান বহির্ভূত ইমারত নির্মান করে চলাচলের পথ বন্ধ করে দেয়ার অভিযোগ আনা হয় মুমীতু কমিউনিটি সেন্টারের মালিক শাহিন হোসেন মল্লিকের বিরুদ্ধে। এর প্রেক্ষিতে ওই বছরেরই ২২ নভেম্বর শাহিন হোসেন মল্লিককে নোটিশ প্রদান করা হয়। পরবর্তীতে প্লান বহির্ভূত অংশ নির্মানের সত্যতা পাওয়া গেলে, একই বছরের ১২ ডিসেম্বর প্লান বহির্ভূত সেই অংশ অপসারণের জন্য নোটিশ করা হয়। তবে সে নোটিশের কোন কর্নপাত না করায় চলতি বছরের ৫ জানুয়ারি আরো একটি নোটিশ করা হয়। যেখানে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্লান বহির্ভূত সেই অংশ অপসারণের জন্য বলা হয়, অন্যথায় বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়ার কথাও উল্লেখ করা হয় নোটিশে। তবে তাতেও ভ্রুক্ষেপ না করায় সিটি কর্পোরেশন এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছে। অভিযানে মুমীতু কমিউনিটি সেন্টারের সামনের দেয়ালের অংশ ভেঙ্গে ফেলা হয় এবং ভাড়াটিয়াদের চলাচলের রাস্তা বের করে দেয়া হয়।
তথ্য সুত্রে জানা গেছে কয়েক বছর আগে সিটি করপোরেশনের অনুমোদিত প্লান নিয়ে নগরীর বগুড়া রোডের শীতলা খোলায় চন্দ্রদীপ টাওয়ার নামে ১০ তলা একটি আবাসিক ভবন নির্মান করে ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান হিল ভিউ হাউজিং লিমিটেড। নির্মান কাজ শেষ হবার পর হাউজিং প্রতিষ্ঠান ১৯ টি এবং জমির মালিক ২ টি ফ্ল্যাট বিক্রি করে। ফ্ল্যাট ক্রয়কারীদের সাথে দালিলিক চুক্তি ছিলো ফ্ল্যাটের কোন সদস্য বানিজ্যিক ভাবে ব্যবহার করতে পারবে না। অথচ বছর বছর দুয়েক যেতে না যেতেই সে চুক্তি ভঙ্গ করে জমির মালিক ফ্ল্যাট সদস্য শাহিন হোসেন মল্লিক। তিনি প্রথমে তার প্রাপ্ত অংশ নিচ তলায় একটি চাইনিজ রেষ্টুরেন্ট খুলেন। তখনও ফ্ল্যাটের বাসিন্দারা নিচতলার প্রধান গেট দিয়ে যাতায়াত করতো। পরে চলতি বছর তিনি নিচ তলা ও দ্বিতীয় তলায় মুমীতু নামে একট কমিউনিটি সেন্টার খুলেন। যে কারনে প্রধান ফটক বা গেট বন্ধ করে দেন শাহিন মল্লিক। শুরু করেন কমিউনিটি সেন্টারের নির্মানসহ সাজসজ্জার কাজ। গত বছরের ১৭ নভেম্বর এ বিষয়ে আজকের পরিবর্তন পত্রিকায় ফলাও সংবাদ প্রকাশ করা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT