কুয়াকাটায় নদীবন্ধু সম্মেলনে উপকূলের প্রাণ-প্রকৃতি টিকিয়ে রাখার আহ্বান কুয়াকাটায় নদীবন্ধু সম্মেলনে উপকূলের প্রাণ-প্রকৃতি টিকিয়ে রাখার আহ্বান - ajkerparibartan.com
কুয়াকাটায় নদীবন্ধু সম্মেলনে উপকূলের প্রাণ-প্রকৃতি টিকিয়ে রাখার আহ্বান

3:29 pm , May 28, 2022

পরিবর্তন ডেস্ক ॥ ‘উপকূলের খাল, নদী, জলাশয় আমাদের জীবনধারার সঙ্গে মিশে আছে। কৃষি ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি উপকূলের অর্থনীতির মূল নিয়ামক নদী, খাল ও জলাশয়। অথচ নদীর স্বাভাবিক গতিধারা না বুঝে আমরা নদীর ক্ষতি করছি। বর্তমানে দূষণ, দখল, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, বিষ দিয়ে মাছ নিধনসহ নানা কারণে নদী যেমন বিপন্ন, তেমনি নদীকেন্দ্রিক জীবনধারার সঙ্গে জড়িত মানুষেরাও বিপন্ন হতে বসেছে উপকূলের প্রাণ–প্রকৃতি ও নদীর জীবনধারা টিকিয়ে রাখতে আমাদের শপথ নিতে হবে।’ গতকাল শনিবার পটুয়াখালীর কুয়াকাটা পর্যটনকেন্দ্রে আয়োজিত নদীবিষয়ক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। নদীর সম্ভাবনা, সম্পদ ও পর্যটন বিষয়ে সচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে বাংলাদেশ নদীবন্ধু সমাজের উদ্যোগে কুয়াকাটার একটি আবাসিক হোটেলের সম্মেলন কক্ষে দুই দিনব্যাপী ‘নদীবন্ধু সম্মেলন’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ‘নদীর কথা বলি, নদীর কথা শুনি’ প্রতিপাদ্য নিয়ে শুক্রবার এ সম্মেলন শুরু হয়। নানা কর্মসূচির মাধ্যমে সম্মেলনের কার্যক্রম শেষ হয়। সংগঠনটির সভাপতি প্রাণকৃষ্ণ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে সেমিনারে বক্তব্য দেন পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যাথলজি ও প্যারাসাইটোলজি বিভাগের প্রধান খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বলেন, নদী রক্ষায় সবাইকে সচেতন হতে হবে। নদীর গতিপথ, নাব্যতা ঠিক রাখতে হবে এবং দূষণের হাত থেকে নদীকে রক্ষা করতে হবে। নদীবন্ধু সমাজের সহসভাপতি ও আলোকচিত্রী দেবদাস মজুমদার তাঁর বক্তব্যে বলেন, প্রতিনিয়ত উপকূলের নদী, খাল, জলাশয় দখল-ভরাট হয়ে যাচ্ছে। এতে উপকূলের কৃষি, মৎস্যসম্পদসহ জীববৈচিত্র্যের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। উপকূলের জনজীবন বিপর্যয় থেকে বাঁচাতে তিনি নদী, খাল ও জলাশয় দখল-ভরাট না করার আহ্বান জানান। এ ছাড়া যেসব নদী, খাল ও জলাশয় দখল হয়ে গেছে, সেগুলো চিহ্নিত করে দ্রুত উদ্ধার করার আহ্বান জানান। সেমিনারে মঠবাড়িয়ার মিরুখালী স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. আলমগীর হোসেন খান, হাঙ্গার প্রজেক্টের বরিশাল বিভাগীয় সমন্বয়ক ফারুক হোসেন খান, কুয়াকাটা টুরিস্ট পুলিশের পরিদর্শক হাসনাইন পারভেজ, কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. নাসির উদ্দিন প্রমুখ বক্তৃতা করেন। গতকাল চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নাছিম আখতার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে নদীবন্ধু সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘নদী রক্ষায় আমাদের শপথ নিতে হবে। দুঃখজনক হলেও সত্য, আমরা সেটি করতে কেউ পারছি না। নদী, খাল আমাদের জীবনধারার অংশ। একটু সচেতনতা থাকলেই নদী টিকিয়ে রাখা সম্ভব। হতাশার বিষয় হলো ভূগর্ভস্থ পানির স্তর নিচে নেমে যাচ্ছে। জীবন-জীবিকার জন্য এখন ভূ–উপরিভাগের পানির ওপর নির্ভর করতে হবে।’ এর আগে গতকাল সংগঠনটির সদস্যরা কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান চালান। এতে ট্যুরিস্ট পুলিশের সদস্যরাসহ স্থানীয় পর্যটন উদ্যোক্তরা সংহতি জানিয়ে অংশ নেন। এ সময় সৈকতের ব্যবসা-বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের সৈকত পরিছন্ন রাখার ব্যাপারে সচেতন করা হয়। অনুষ্ঠানের মিডিয়া পার্টনার ছিল দক্ষিণাঞ্চলের সর্বাধিক জনপ্রিয় দৈনিক আজকের পরিবর্তন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT