চরফ্যাসনে ক্ষোভে প্রতিবন্ধী যুবকের আত্মহত্যার চেষ্টা চরফ্যাসনে ক্ষোভে প্রতিবন্ধী যুবকের আত্মহত্যার চেষ্টা - ajkerparibartan.com
চরফ্যাসনে ক্ষোভে প্রতিবন্ধী যুবকের আত্মহত্যার চেষ্টা

3:32 pm , May 26, 2022

শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে মারধর

চরফ্যাসন প্রতিবেদক ॥ চরফ্যাসনের জাহানপুর ইউনিয়নে ২বছরের শিশুকন্যাকে যৌননির্যাতনের অভিযোগ তুলে প্রতিবন্ধী যুবককে মারধর করে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় মেম্বার নিরব ফকিরের বিরুদ্ধে। এমন অভিযোগে বিব্রত প্রতিবন্ধী যুবক আবদুর রহিম কষ্টে-ক্ষোভে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। বর্তমানে প্রতিবন্ধী যুবক বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (শেবাচিম) চিকিৎসাধীন আছে। গত শনিবার সকালে জাহানপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের আবদুর রব হাওলাদরের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার স্থানীয়ভাবে অনুসন্ধানে জানাগেছে, জাহানপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বড়ভাই আবদুর রব হাওলাদার এবং ছোটভাই শহিজল হাওলাদারের মধ্যে বাড়ির ৮ শতাংশ জমি নিয়ে বিরোধ আছে। দুই ভাই পাশাপাশি বাড়িতে বসবাস করছেন। দুই বাড়ির মধ্যবর্তী ৮শতাংশ জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে ছোটভাই শহিজল একাধিক মিথ্যা মামলা দিয়ে বড়ভাই আবদুর রবকে শায়েস্তা করার চেষ্টা করেছেন। এসব ধারাবাহিকতায় কয়েকদিন আগে শহিজলের বাড়িতে বেড়াতে আসেন তার এক ভাগ্নি। ছোটভাই শহিজল এবার ভাগ্নির ২ বছরের শিশু কন্যাকে নির্যাতনের অভিযোগ তুলে বড়ভাই আবদুর রবকে শায়েস্তা করার ফন্দি আটেন। বৃহস্পতিবার বড়ভাই আবদুর রব অভিযোগ করেন, গত শনিবার সকালে স্থানীয় ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার নিরব ফকির আবদুর রবের বাড়িতে যান এবং আবদুর রবের প্রতিবন্ধী পুত্র আবদুর রহিমকে ডেকে আনেন। এসময় মেম্বার আবদুর রবকে জানান,তার ছোটভাই শহিজলের বাড়িতে বেড়াতে আসা ভাগ্নির ২ বছরের শিশুকন্যাকে যৌন নির্যাতন করেছে তার ছেলে আবদুর রহিম। মেম্বার এমন অভিযোগ তুলে প্রতিবন্ধী আবদুর রহিমকে তার বাড়িতে স্বজনদের সামনে বেধেঁ বেধকড় মারধর করেন। পাশাপাশি ভিক্টিমের চিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণ বাবদ ৫০ হাজার টাকা দাবী করেন। নিরুপায় হয়ে প্রতিবন্ধী আবদুর রহিমের বাবা আবদুর রব ছেলের মুক্তির জন্য মেম্বারকে ২০ হাজার টাকা দিয়েছেন বলে এই প্রতিনিধিকে জানান এবং বাকী ৩০ হাজার টাকা পরদিন রোববার দিবেন বলে সময় নেন । এই ঘটনার পরপর রাগে-ক্ষোভে প্রতিবন্ধী যুবক আবদুর রহিম নিজ বাড়িতে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। অসুস্থ অবস্থায় স্বজনরা আবদুর রহিমকে উদ্ধার করে শনিবার দুপুরে চরফ্যাসন হাসপাতালে নিয়ে আসেন। চরফ্যাসন হাসপাতালে সোমববার পর্যন্ত চিকিৎসক গুরুতর আবদুর রহিমের অবস্থার অবনতি দেখে চিকিৎসকরা তাকে বরিশাল শেবাচিমে রেফার করেন। তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন আছেন।
অভিযোগ প্রসঙ্গে কথিত ভিক্টিমের মা কোন কথা বলতে অস্বীকার করেছেন। তবে অভিযুক্ত মেম্বার নিরব ফকির বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যার পর বাড়ির পাশের রাস্তার দোকানে গেলে ২ বছরের শিশু কন্যাকে নির্যাতন করেছে প্রতিবন্ধী যুবক আবদুর রহিম। ভিক্টিমের মায়ের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমি (মেম্বার নিরব ফকির) স্থানীয় চৌকিদার মোসলে উদ্দিনকে সঙ্গে নিয়ে আবদুর রহিমের বাবা আবদুর রবের বাড়িতে যাই এবং তাদের কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা আদায় করে চিকিৎসার জন্য ভিক্টিমের মাকে দিয়েছি। তবে প্রতিবন্ধী যুবককে মারধরের কথা তিনি অস্বীকার করেছেন। স্থানীয় চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন হাওলাদার জানান, শিশুকে যৌন হয়রানী করা হয়েছে বলে তার মা আমাকে জানিয়েছেন। আমি তাদের থানায় যেতে বলেছিলাম। এমন অভিযোগ সত্য-মিথ্যা যাই হউক, সেখানে মেম্বারের কোন কিছু করার নেই। মেম্বার বাড়াবাড়ি করলে অন্যায় করেছেন। শশীভূষণ থানার অফিসার ইন চার্জ মিজানুর রহমান পাটওয়ারী জানান,শনিবার ভিক্টিম শিশুকে নিয়ে তার স্বজনরা থানায় আসেন। মহিলা পুলিশ দিয়ে প্রাথমিক অনুসন্ধানে অভিযোগটি মিথ্যা বলে প্রতিয়মান হয়েছে।পরে ঘটনাস্থলেও পুলিশ অনুসন্ধান করে নিশ্চিত হয়েছে যে, জমাজমির বিরোধকে কেন্দ্র করে এমন একটি অভিযোগ সাজানো হয়েছে। অভিযোগটি সাজানো হওয়ায় পুলিশ মামলা না নিয়ে সংশ্লিষ্টদের ফেরৎ পাঠিয়েছেন। কিন্ত পরবর্তীতে ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিবন্ধী যুবক আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে কোন তথ্য আগে কেউ পুলিশকে অবহিত করেননি। সংশ্লিষ্ট প্রতিবন্ধী যুবক বা তার পরিবার মামলা করলে পুলিশ গুরুত্ব দিয়ে বিষয়টি তদন্ত করে আইনী ব্যবস্থা নেবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT