রাজারচর মাধ্যমিক বিদ্যালয় দশম শ্রেণীর ছাত্রকে শিক্ষকের বেত্রাঘাত রাজারচর মাধ্যমিক বিদ্যালয় দশম শ্রেণীর ছাত্রকে শিক্ষকের বেত্রাঘাত - ajkerparibartan.com
রাজারচর মাধ্যমিক বিদ্যালয় দশম শ্রেণীর ছাত্রকে শিক্ষকের বেত্রাঘাত

3:20 pm , May 24, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল সদর উপজেলার চরমোইনাই ইউনিয়নের রাজারচর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রকে এক শিক্ষক বেদম বেত্রাঘাত করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি লিখিতভাবে সদর উপজেলার ইউএনওকে অবহিত করা হয়। সহকারি শিক্ষক বজলুর রশিদের বেত্রাঘাতে আহত ছাত্র অর্ঘ দত্ত তাজ হচ্ছে সদর উপজেলার সাহেবেরহাট এলাকার সুভাষ দত্ত বাপ্পির ছেলে। অর্ঘ দত্তের মামা প্রদীপ দেবনাথ বলেন, গত রবিবার ক্লাশের ফাঁকে সিনিয়র জুনিয়র নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব বাধে। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় অর্ঘ দত্ত তাদের ছাড়িয়ে দিতে যায়। এ সময় অর্ঘকেও মারধর করা হয়। এ ঘটনায় অর্ঘকে দোষী সাব্যস্ত করে সহকারি শিক্ষক বজলুর রশিদ ক্লাশ রুমে নিয়ে বেদম বেত্রাঘাত করেন। বেঞ্চের নীচে মাথা ঢুকিয়ে তাকে বেত্রাঘাত করা হয়। প্রতিটি বেতের দাগ রয়েছে অর্ঘের শরীরে। বেতের আঘাতে শরীরের বিভিন্ন স্থানে কালো দাগ হয়ে গেছে। বর্তমানে অসুস্থ অবস্থায় অর্ঘকে বাসায় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনার সুবিচারের দাবিতে সোমবার ইউএনও মনিরুজ্জামানের কাছে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়। অভিযোগপত্রে ইউএনও প্রধানশিক্ষককে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দিয়েছেন। অভিযোগকারী অর্ঘের দাদা অজয় দত্ত বলেন, আমার নাতী অর্ঘ কোন দোষ না করার পরও সহকারি শিক্ষক বজলুর রশিদ তাকে বেদম নির্যাতন করেছেন। ওই স্থানে কি ঘটনা ঘটেছে সে বিষয়ে কোন তদন্ত না করেই আমার নাতীর উপর এ নির্যাতন আমি কোনভাবেই মানতে পারিনি। এ কারনে ওই শিক্ষকের বিচার চেয়ে ইউএনও’র নিকট লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। এ ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদেরকে সামান্যতম বকাঝকাও করেননি বজলুর রশিদ। কোন ধরনের ক্ষোভ থেকে আমার নাতীর উপর এ নির্যাতন চালানো হয়েছে বলে দাবি করেন অর্ঘের দাদা। এ ব্যাপারে রাজারচর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক ফরিদ উদ্দিন বলেন, ওই ঘটনার সময় আমি স্কুলে ছিলাম না। পরবর্তীতে বিষয়টি জেনে অভিযুক্ত সহকারি শিক্ষক বজলুর রশিদের ব্যবহৃত মোবাইলে একাধিকবার কল দেয়া হলেও তিনি রিসিভ না করায় তার সাথে কথা বলা যায়নি। সোমবার স্কুলে এসে শিক্ষক এবং ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিকে নিয়ে সভা করেছি। সভা চলাকালে ইউএনও’র নিকট দেয়া লিখিত অভিযোগের কপি অজয় দত্ত আমার কাছে দিয়েছেন। প্রধানশিক্ষক বলেন, ওই পর্যন্ত যাওয়ার দরকার ছিল না। তারপরও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির সাথে বসে সহকারি শিক্ষক অপরাধ করলে অবশ্যই তার বিচার হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT