পিরোজপুরে কাজ শেষের আগেই চূড়ান্ত বিল দেওয়া প্রকৌশলীকে বদলি পিরোজপুরে কাজ শেষের আগেই চূড়ান্ত বিল দেওয়া প্রকৌশলীকে বদলি - ajkerparibartan.com
পিরোজপুরে কাজ শেষের আগেই চূড়ান্ত বিল দেওয়া প্রকৌশলীকে বদলি

3:42 pm , April 25, 2022

পরিবর্তন ডেস্ক ॥ পিরোজপুরের চরখালী-তুষখালী-মঠবাড়ীয়া-পাথরঘাটা সড়কের পিরোজপুর অংশে ড্রেনের নির্মাণকাজ (মঠবাড়িয়া বাজার অংশ) শেষ হওয়ার আগেই ঠিকাদারকে চূড়ান্ত বিল দেওয়ায় সড়ক বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলী আকবরকে মাদারীপুরে বদলি করা হয়েছে। রবিবার (২৩ এপ্রিল) এই বদলির আদেশ দিয়ে চিঠি দিয়েছেন সড়ক বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী এ কে এম মনির হোসেন।বিল দেওয়ার সঙ্গে জড়িত রয়েছেন আরও দুই জন। তারা হলেন- পিরোজপুর সড়ক বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. অহিদুজ্জামান ও নির্বাহী প্রকৌশলী (বর্তমানে বরিশাল সড়ক বিভাগে আছেন) মাসুদ মাহমুদ সুমন।জানা গেছে, পিরোজপুরের চরখালী-তুষখালী-মঠবাড়ীয়া-পাথরঘাটা সড়কের মঠবাড়িয়া অংশে ১.৬৬ কিলোমিটার রিজিড পেভমেন্ট (রাস্তা ঢালাই), ২.৪০ কিলোমিটার আরসিসি ড্রেন নির্মাণ কাজ (মঠবাড়িয়া বাজার অংশ) এবং বরগুনা অংশে ০.৬২৫ কিলোমিটার রিজিড পেভমেন্ট (রাস্তা ঢালাই) আরসিসি ঢালাই এবং ২০.৩৭ কিলোমিটার বর্ধিত ও মজবুত করাসহ কার্পেটিং কাজের ৩৬ কোটি ৪৯ লাখ ৪৭ হাজার টাকা ব্যয় ধরে দরপত্র আহ্বান করা হয়। দরপত্রে অংশ নিয়ে হাসান টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেড-ওয়েস্টার কনস্ট্রাকশন অ্যান্ড শিপিং কোম্পানি লিমিটেড জেভি ৩০ কোটি ৮৭ লাখ টাকায় কাজটি পায়।এ কাজের মধ্যে ড্রেন নির্মাণ কাজ রয়েছে ১০ কোটি ৮১ লাখ টাকার। কিন্তু এ কাজ শেষ করার আগেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে গেলো বছরের ২৯ জুন চূড়ান্ত বিল দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে যেনতেনভাবে কাজ করা হচ্ছে। কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে মাটি মিশ্রিত পাথর। যার ছবি ও ভিডিও যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। আলী রেজা রঞ্জু নামে স্থানীয় একজন তার ফেসবুক আইডিতে ওই কাজে মাটি মিশ্রিত পাথর ব্যবহারের ছবি পোস্ট করেছেন।মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ কে এম আরিফুল হক বলেন, ‘বর্ষার দিনে বাজার অংশে থাকা সড়কে পানি জমে জলাবদ্ধতা ও লোকজনের চলাচলে দুর্ভোগ হতো। আমরা জলাবদ্ধতা দূর করতে আন্দোলন সংগ্রাম করেছি। সরকার এ সড়ক সংস্কার ও ড্রেন নির্মাণের অর্থ বরাদ্দ দিলো। কিন্তু কাজ শেষ হওয়ার আগেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে চূড়ান্ত বিল দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে ড্রেন নির্মাণ কাজ চলছে পিঁপড়ার গতিতে। মানও খারাপ হচ্ছে কাজের। অনৈতিক সুবিধা ছাড়া প্রকৌশলীরা এ বিল দেননি।’মঠবাড়িয়ার (পিরোজপুর-৩) সংসদ সদস্য ডা. রুস্তম আলী ফরাজীর জনসংযোগ কর্মকর্তা আলী রেজা রঞ্জু বলেন, ‘ড্রেন নির্মাণে কাদামাটি মিশ্রিত পাথর ব্যবহার করার ছবি ভাইরাল হয়েছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য এলাকার উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ আনেন। মঠবাড়িয়া বাজার অংশে ড্রেন না থাকার কারণে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে মানুষের ভোগান্তি হতো।’কাজ তদারকির দায়িত্বে থাকা উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলী আকবরের কাছে ড্রেন নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার আগেই কেন বিল দেওয়া হলো- জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বিল দেয়া হয়নি।’ এরপর তাকে বলা হয়, ২০২১ সালের ২৯ জুন চূড়ান্ত বিল দিয়েছেন- এ প্রমাণ তো আছে। তখন তিনি আর কথা বলতে রাজি হননি।পিরোজপুর সড়ক বিভাগের বর্তমান নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ বলেন, ‘চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারি যোগদান করেছি। এ বিষয়ে কোনও তথ্যই আমার কাছে নেই। উপ-সহকারী প্রকৌশলী আকবরকে মাদারীপুরে বদলি করা হয়েছে।’

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT