প্রতারণার শিকার নগরীর মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্টরা প্রতারণার শিকার নগরীর মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্টরা - ajkerparibartan.com
প্রতারণার শিকার নগরীর মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্টরা

3:37 pm , March 11, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ মানি সেন্ড হওয়ার পর পরই দৌড়ে পালাচ্ছে প্রতারকরা। একের পর এক এই প্রতারণার শিকার হচ্ছেন মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্টরা। এসব ঘটনা জিডি হলে কোন সুরাহা হচ্ছে না বলে দাবী মোবাইল ব্যাংকি এজেন্ট ব্যাসায়ীদের। পুলিশের দাবী খুব শীঘ্রই অপরাধিদের আইনের আওতায় আনা হবে। সর্বশেষ গত ৭ মার্চ রাত সাড়ে ৮ টায় নগরীর গোরস্থান রোডের মের্সাস বাচ্চু টেড্রাস এর মালিক মাহাবুর রহমান বাচ্চু প্রতারণার শিকার হয়েছেন। তার কাছ থেকে হাতিয়ে নেয়া হয়েছে ১২ হাজার টাকা। মাহাবুর রহমান বাচ্চু বলেন, দোকানের পাশে একটি গ্রিল তৈরির দোকান রয়েছে। সেই গ্রিলের দোকানের ক্রেতা এসে ১২ হাজার টাকা ক্যাশ আউট করতে বলেন। তবে ওই প্রতারক ক্যাশ আউট সেন্ড না করেই গ্রিল ব্যবসায়ী খোকনকে ১২ হাজার টাকা দিতে বলেন। পরে সে ক্যাশ আউট সেন্ড না করেই গ্রিলের দোকানে যান। সেখান থেকে গ্রিল ব্যবসায়ী খোকন এর কাছ থেকে সেই টাকা নিয়ে পালিয়ে যান। তবে গ্রিল ব্যবসায়ী খোকন জানতেন না যে ক্যাশ আউট না করে টাকা নিয়ে পালিয়েছে।
এর আগে ১ মার্চ রাতে নগরীর ঈশ্বর বসু রোডের মাথায় (সদর রোডের মুখে) বিএসএল ট্রাভেলস এন্ড বিজনেস পয়েন্টে প্রতারণার শিকার হয়েছেন এজেন্ট ব্যবসায়ী অলিউর রহমান অলি। তার কাছ থেকে হাতিয়ে নেয়া হয়েছে ১৬ হাজার টাকা। এখানে টাকা বের করে ১৬ হাজার টাকা সেন্ট মানি করতে বলে প্রতারক। সেন্ট মানি হওয়ার পর পরও দৌড়ে পালিয়ে যায় ওই প্রতারক। ব্যবসায়ী কাউন্টারের ভিতর থেকে বেড় হতে হতে পালিয়ে যায় প্রতারক। এজেন্ট ব্যবসায়ী অলিউর রহমান অলি বলেন, এ ঘটনা ওই দিন রাতেই কোতয়ালী মডেল থানায় একটি জিডি করা হয়েছে। কিন্তু এখনো কোন সুরাহা হয়নি। এমনকি সিসি টিভি থেকে ছবিও দেয়া হয়েছে পুলিশকে।
এর আগে সদর রোডের রোজ গার্ডেনের বিপরীতে ফ্রেন্স ডাইন নামে এক দোকানেও প্রতারনার শিকার হয়েছেন এক ব্যবসায়ী। ব্যবসায়ী ইউসুফ আলী বলেন, গত ২৮ ফেব্রুয়ারী আমার দোকান থেকেও ১৫ হাজার টাকা নিয়ে যায় প্রতারকরা। এভাবে হলে ব্যবসা করবো কিভাবে। একই ভাবে সদর উপজেলার চরকাউয়া ইউনিয়নের তালুকদার হাটের একটি দোকানে এমন ঘটনা ঘটেছে।
এ বিষয়ে পুলিশ কমিশনার অতিরিক্ত আইজিপি মো: শাহাবুদ্দিন খান বলেন, মানি সেন্ড করে প্রতারকের পালিয়ে যাওয়ার কয়েকটি ঘটনা এসেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। খুব শীঘ্রই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT