নগরী থেকে কয়েক কোটি টাকা নিয়ে দুই প্রতারক চক্র লাপাত্তা নগরী থেকে কয়েক কোটি টাকা নিয়ে দুই প্রতারক চক্র লাপাত্তা - ajkerparibartan.com
নগরী থেকে কয়েক কোটি টাকা নিয়ে দুই প্রতারক চক্র লাপাত্তা

3:16 pm , December 2, 2021

 

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ চাকরির প্রলোভন সহ গ্রাহকদের স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা নিয়ে পালিয়েছে দুুটি প্রতারক চক্র। এ দুুটি চক্র প্রায় দেড় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। নগরীর রূপাতলী হাউজিং এলাকায় ‘আরএম গ্রুপ’ নামের একটি হায় হায় কোম্পানি তরুণ-তরুণীদের চাকুরী দেয়ার নামে এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পণ্য বাকিতে কিনে কোটি টাকারও বেশী হাতিয়ে উধাও হয়েছে। বিপুল সংখ্যক তরুন-তরুনী ছড়াও প্রতারনার শিকার হয়েছেন বাড়িওয়ালা থেকে শুরু করে রেন্ট এ কার, নগরীর বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানও। এমনকি স্থানীয় একাধিক দৈনিক পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে তাদের বিলও পরিশোধ করেনি ওই হায় হায় কোম্পানী।
নগরীর রূপাতলী হাউজিংয়ের ‘হিরন পয়েন্ট-২’ ভবনের ৭ম তলায় কাজে যোগ দিতে গিয়ে চাকুরী প্রত্যাশীদের কাছে প্রতারনার বিষয়টি ধরা পড়ে। হিরন পয়েন্টের মালিক সাবেক সিটি মেয়র প্রয়াত শওকত হোসেন হিরনের স্ত্রী সাবেক এমপি জেবুন্নেছা আফরোজ। মাত্র ২৪ দিনের মধ্যে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে কোটি টাকার উপরে হাতিয়ে নিয়ে লাপাত্তা হয়েছে চক্রটির সদস্যরা।
গত ৮ অক্টোবর হিরন পয়েন্ট-২ ভবনের ৭ম তলার ফ্ল্যাট ভাড়া নেয় চক্রটি। মাসিক ৩৬ হাজার টাকা ভাড়া এবং অগ্রিম হিসেবে এক লাখ টাকার একটি চেক দেয় প্রতারক চক্র। গত ৩ নভেম্বর স্থানীয় তিনটি দৈনিকে ম্যানেজারসহ ৮টি পদে জনবল চেয়ে বিজ্ঞাপন দেয় ওই চক্রটি।
বাড়ীর কেয়ার টেকার আবু তালেব সাংবাদিকদের বলেছেন, কয়েকদিন আগে থেকেই অফিসের মালামাল কুরিয়ারে টাঙ্গাইলে পাঠানো শুরু করে। জিজ্ঞাসা করলে নতুন ডেকরেশনের কথা বলে। আর তাদের আচার-ব্যবহার এবং অফিসের সাজসজ্জায় কোন সময় মনে হয়নি এরা প্রতারক।
আকর্ষনীয় বেতনের অফার দেখে অনেকেই আবেদন করেন। পরবর্তীতে চাকরি প্রত্যাশীদের কাছ থেকে কোম্পানীর রশিদ দিয়ে ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত জামানত নেয়া হয়। আরএম গ্রুপের গ্যাসস্টোভ, আরএম এলপিজি গ্যাস, ডাব সাবান, শ্যাম্পু, ইম্পেরিয়াল সাবান, নবরতœ তেল, বিস্কুট, ২২ ধরণের চকলেট এবং বিদেশী পানীয় সামগ্রীসহ আরও অনেক পণ্য বিক্রির কথা উল্লেখ করে বিজ্ঞাপন দেয়া হয়েছিল।
অপরদিকে প্রতিষ্ঠানটি পারটেক্স গ্রুপের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকার ফার্ণিচার, ওয়ালটন গ্রুপের কাছ থেকে ৯ লাখ ৩০ হাজার টাকা ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী সহ বেশ কয়েকটি মশার কয়েল কোম্পানীর মালামাল নিয়ে কোন ধরণের টাকা পরিশোধ করেনি। তবে প্রায় সকলকেই চেক দিয়েছে। নির্ধারিত ব্যাংকের ওই হিসাব নম্বরে মাত্র ৩শ’টাকা রয়েছে।
এছাড়া রুপাতলী এলাকার একটি রেন্ট এ কার থেকে তিনটি গাড়ী মাসে ৫০ হাজার টাকা চুক্তিতে ভাড়া নিলেও তাদের এক টাকাও পরিশোধ করা হয়নি।
এ ব্যাপারে কোতোয়ালী থানার ওসি আজিমুল করিম সাংবাদিকদের বলেন, প্রতারিত হওয়ার পর সকলেই আইনের আশ্রয় নিতে আসেন। আগে অবহিত করলে চক্রটিকে আইনের আওতায় আনা সম্ভব ছিল। একই সাথে প্রতারনার হাত থেকে রক্ষা পেত সকলে। আরএম প্রতারক চক্রের সদস্যদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনতে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
এদিকে নগরীর কাটপট্টি সড়কের মৌটুসী জুয়েলার্স নামের একটি ব্যাবসায়ীক প্রতিষ্ঠান গ্রাহক সহ বিভিন্ন জনের কাছ থেকে প্রায় কোটি খানেক টাকার অলংকার ও নগদ টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির মালিক মৃনাল কর্মকার ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে ভাড়াটিয়া চুক্তিতে স্টল ভাড়া নিয়ে জুয়েলারী খুলে ব্যবসা শুরু করে। কিন্তু সম্প্রতি কাউকে কিছু না বলে পুরো পরিবার সহ সে গাঢাকা দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ষ্টল মালিক কোতয়ালী থানায় সাধারন ডায়েরী করেছেন।
বিভিন্ন গ্রাহক ওই দোকানে অলংকার তৈরী সহ বিভিন্নভাবে নগদ টাকা দিলেও এখন কেউ মৃনালের খোজ পাচ্ছেন না। পুলিশ বিষয়টি নিয়ে খোজ খবর করছে বলে জানা গেছে। এমনকি মৃনালের পুরো পরিবারও এখনো নিরুদ্দেশ।

এই বিভাগের আরও খবর

বসুন্ধরা বিটুমিন

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT