দক্ষিনাঞ্চলে করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগের হার প্রায় ৩৩% দক্ষিনাঞ্চলে করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগের হার প্রায় ৩৩% - ajkerparibartan.com
দক্ষিনাঞ্চলে করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগের হার প্রায় ৩৩%

3:46 pm , December 1, 2021

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ নভেম্বর মাসে দক্ষিণাঞ্চলে করোনা সংক্রমন প্রায় শূণ্যের কোঠায় নামলেও মাসের শেষ দিনে ১১ জন আক্রান্তের মধ্যে নগরীতেই ৮ জনের দেহে করোনা সংক্রমনের খবর জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। গত নভেম্বরের ৩০ দিনে বরিশাল বিভাগীয়স্বাস্থ্য দপ্তরের ৬ জেলায় গত ১৮ মাসের সর্বনি¤œ ৬৬ জনে দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হলেও মাসের শেষ দিনেই সংখ্যাটা ছিল ১১। এমনকি মাসের প্রথম ১৫ দিনে মাত্র ২৮ জন করোনা রোগী শনাক্ত হলেও শেষের ১৫ দিনে সংখ্যাটা দাড়ায় ৩৬ জনে। তবে এরমধ্যে ৩০ নভেম্বরের ১১ জন বাদ দিলে তা ছিল ২৫ জন।
গত প্রায় দেড় মাসে এ অঞ্চলে কোন মৃত্যু সংবাদ নেই। ইতোমধ্যে বরিশাল অঞ্চলে ৪৫ হাজার ৩৩১ জন মানুষ করোনা সংক্রমনের শিকার হলেও সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪৩ হাজার ৯৭৯ জন। সুস্থতার হার প্রায় ৯৭.০২ ভাগ। কিন্তু করোনা সংক্রমন হ্রাসের সাথে এ অঞ্চল থেকে নুন্যতম স্বাস্থ্য বিধি অনুসরনও বিদায় হয়েছে। দক্ষিণাঞ্চলের কোথাও এখন ৫% মানুষও মাস্ক ব্যবহার করে না। স্বাস্থ্য বিধি অনুসরনে প্রশাসনের তরফ থেকেও কোন তাগিদ নেই। এমনকি মাস্ক পরিধান এখন বিস্ময় হয়ে দাড়িয়েছে। এদিকে ইতোমধ্যে প্রায় ২২ লাখ মানুষের দেহে দুই ডোজের করোনা প্রতিষেধক টিকা প্রয়োগ সম্পন্ন হয়েছে বলে স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে। আর শুধু প্রথম ডোজ গ্রহন করেছেন ৩৬ লাখেরও বেশী মানুষ। ১২ বছরের নিচের জনসংখ্যা বাদ দিলে টিকা গ্রহনকারীর সংখ্যা ৩০%-এর উপরে। তবে গত মাস দুয়েক ধরেই নমুনা পরীক্ষাও যথেষ্ট হ্রাস পেয়েছে। নভেম্বর মাসে এ অঞ্চলে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা ছিল মাত্র ৩ হাজারেরও কম। শনাক্তের হার এখন ১%-এর কিছু বেশী হলেও গড় শনাক্তের হার এখনো ২০.০২%। তবে গত জুলাইÑআগষ্ট মাসে শনাক্তের হার বরিশালে ৭৪% পর্যন্ত উঠেছিল। গত মাসে অন্তত ১০ দিন এ অঞ্চলে করেনা শনাক্ত ছিল শূণ্যের কোঠায়। অথচ জুলাইর শেষভাগে এ অঞ্চলে গড় সংক্রমন হার ছিল ২২.৬৫%। স্বাস্থ্য বিভাগের পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত জুলাই মাসের প্রথম ১৫ দিনে দক্ষিণাঞ্চলে ৬ হাজার ৭১০ জন করোনা রোগী শনাক্তের বিপরীতে মৃত্যু হয় ৫৭ জনের। আগষ্ট মাসের একই সময়ে শনাক্তের সংখ্যা ৭ হাজার ৩২৬ জনে উন্নীত হবার পাশাপাশি মৃত্যুর সংখ্যা দ্বিগুনেরও বেশী বৃদ্ধি পেয়ে ১২১ জনে পৌছে। তবে আগষ্টের শেষভাগ থেকে করোনা সংক্রমন হার কিছুটা হ্রাস পেতে শুরু করে সেপ্টেম্বরের প্রথম ১৫ দিনে আক্রান্তের সংখ্যাটা প্রায় এক-দশমাংশে হ্রাস পায়। এ সময়ে নতুন ৭৯১ জন আক্রান্তের বিপরীতে মৃত্যু হয় ১৮ জনের। অক্টোবরের প্রথমপক্ষে আক্রান্তের সংখ্যা আরো হ্রাস পায়। এ সময়ে ১৪৪ জন আক্রন্তের মধ্যে মৃত্যু হয় মাত্র দুজনের। এমনকি ১৫ অক্টোবরের পরে গত দেড়মাসে এ অঞ্চলে করোনায় কোন মৃত্যু সংবাদ নেই স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে। আর বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তরের মতে, গত ১৯ মাসে এ অঞ্চলে প্রায় ২ লাখ ২৫ হাজার ৬১০ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪৫ হাজার ৩৩১ জনের দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। সর্বশেষ হিসেবে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্তের গড় হার ২০.০৯% হলেও গতমাসে তা ১%-এর কিছু বেশী ছিল। অথচ গত জুলাই মাসে শনাক্তের হার ৭৪% পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়ছিল।
এ অঞ্চলের মধ্যে এখনো মহানগরী সহ বরিশাল জেলাই আক্রান্ত ও মৃত্যুর তালিকায় শীর্ষে। এ অঞ্চলের মাত্র ৬% জনসংখ্যার নগরীতে আক্রান্তের সংখ্যা ১১ হাজারেরও বেশী। ৩০ নভেম্বর এ অঞ্চলে আক্রান্ত ১১ জনের ৮ জনই এ নগরীর বাসিন্দা। এ নিয়ে নগরীতে ইতিমধ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১০২ জনের। আর মহানগরী সহ বরিশাল জেলায় ৮০ হাজার ৬২২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৮ হাজার ৩২৯ জনের দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। যারমধ্যে মারা গেছেন ২৩০ জন। পটুয়াখালীতেও সর্বমোট ৪১ হাজার ২৪০ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের সংখ্যা ৬ হাজার ২৩৩। মারা গেছেন ১০৯ জন। দ্বীপ জেলা ভোলাতে ৩৪ হাজার ৮০৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬ হাজার ৮৬৫ জনের দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৯১ জনের। পিরোজপুরে ২৩ হাজার ১৩৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের সংখ্যা ৫ হাজার ২৯২। মারা গেছেন ৮৩ জন। দক্ষিণাঞ্চলে সর্বাধিক মৃত্যুহারের বরগুনাতে এ পর্যন্ত ২৬ হাজার ৪৫১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৩ হাজার ৯৫৭ জনের দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হলেও মারা গেছেন ৯৭ জন। গড় মৃত্যুহার ২.৪৫%। আর এ অঞ্চলের সবচেয়ে ছোট জেলা ঝালকাঠী করোনা শনাক্তে এখনো শীর্ষে। জেলাটিতে এ পর্যন্ত ১৯ হাজার ৩৫১ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৬৫৫ জন। জেলাটিতে এখনো গড় শনাক্তের হার দক্ষিণাঞ্চলের সর্বোচ্চ ২৪.০৬%। এ জেলায় মৃত্যু হয়েছে ৬৯ জনের।

এই বিভাগের আরও খবর

বসুন্ধরা বিটুমিন

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT