আজ শহীদ মুক্তিযোদ্ধা কাজী মতিয়ার রহমানের ৫০ তম শাহাদাত বার্ষিকী আজ শহীদ মুক্তিযোদ্ধা কাজী মতিয়ার রহমানের ৫০ তম শাহাদাত বার্ষিকী - ajkerparibartan.com
আজ শহীদ মুক্তিযোদ্ধা কাজী মতিয়ার রহমানের ৫০ তম শাহাদাত বার্ষিকী

2:47 pm , November 25, 2021

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ কলেজ পড়–য়া ছাত্র। তাগড়া যুবক। এই বয়সে বিশেষ কিছু বৈশিষ্টের মধ্যে অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট হচ্ছে অকুতোভয় নামক শব্দটি। যে বৈশিষ্টটি অসাধ্যকে সাধন ও অজয় কে জয় করার দীপ্ত স্পৃহা জাগিয়ে তোলে। সেই স্পৃহার টানেই দেশ মাতৃকার ডাকে সাড়া দিয়ে অংশ নিয়েছিলেন মহান মুক্তিযুদ্ধে। বুকে দেশ প্রেম ধারন করে বীর দর্পে মোকাবেলা করেছেন পাক শত্রুদের। কিন্তু দূর্ভাগ্য বিজয়ের স্বাদ অনুভব করতে দেয়নি ভাগ্য বিধাতা। যুদ্ধ তথা দেশ বিজয়ের মাত্র ২০ দিন পূর্বে শত্রুদের বুলেটে নিভে যায় দেশ মাতৃকার বীর সেনানী শহীদ মুক্তিযোদ্ধা বানারীপাড়ার কাজী মতিয়ার রহমানের জীবন প্রদীপ। ১৯৭১ সালের ২৬ নভেম্বর রাতে পিরোজপুর জেলার স্বরুপকাঠি উপজেলার ছারছিনায় আলবদরদের ঘাটিতেআক্রমন চালাতে গেলে শত্রুদের বুলেটে মৃত্যু ঘটে তার। আজ বানারীপাড়ার গর্ব ও অহংকারের প্রতীক জাতির বীর সন্তান শহীদ মুক্তিযোদ্ধা কাজী মতিয়ার রহমানের ৫০ তম শাহাদাত বার্ষিকী।
বরিশাল জেলা পরিষদের তৎকালীন সদস্য কাজী মোশারেফ হোসেন এর কনিষ্ট পুত্র কাজী মতিয়ার তখন শের-ই-বাংলা এ কে ফজলুল হকের প্রতিষ্ঠিত বানারীপাড়ার চাখার ফজলুল হক কলেজের ¯œাতক শ্রেণীর ছাত্র এবং ছাত্রলীগের প্রথম সারির নেতা ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর দেশ স্বাধীনের ডাকে সাড়া দিয়ে নেমে পড়েন রনাঙ্গনে।
তার স্মৃতি চারন করে বরিশাল জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা এনায়েত হোসেন চৌধুরী বলেন, মতিয়ার ছিলো অকুতভয়ী অসীম সাহসী এক যোদ্ধা। যুদ্ধের শেষ ভাগে ভারত থেকে উচ্চতর প্রশিক্ষন নিয়ে নৌকা যোগে স্বরুপকাঠি ফিরছিলেন। এসময় জানতে পারেন ছারছিনা পীরের বাড়িতে রাজাকারদের একটি ঘাটি রয়েছে। তিনি মুহুর্তেই কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা নিয়ে ওই ঘাটিতে আক্রমন করেন। কিন্তু দূর্ভাগ্যবসত শত্রুদের গুলিতে মৃত্যু ঘটে তার। কিন্তু তার লাশ আর পাওয়া যায়নি।
তিনি ৯ নং সেক্টরের মেজর জলিলের অধীনে যুদ্ধরত ছিলেন। শহীদ মুক্তিযোদ্ধা কাজী মতিয়ার রহমানের ভাইয়ের ছেলে কাজী এনায়েত করিম ইনু বলেন শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে গ্রামের বাড়ির মসজিদে বাদ জুম্মা দোয়া মিলাদের আয়োজন করা হয়েছে। তিনি সকলকে দোয়া মিলাদে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করেছেন। ৩ ভাই ও ৩ বোনের মধ্যে মতিয়ার ছিলেন সবার ছোট। অন্য দুই ভাইও ইতিমধ্যে মৃত বরন করেছেন। তবে ৩ বোন জীবিত রয়েছেন। উল্লেখ্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ কাজী মতিয়ার রহমান শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক আজকের পরিবর্তন পত্রিকার প্রকাশক-সম্পাদক কাজী মিরাজের ছোট মামা।

এই বিভাগের আরও খবর

বসুন্ধরা বিটুমিন

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT