বরিশাল কৃষি অঞ্চলের ৭১ হাজার হেক্টর জমিতে সবজি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন বরিশাল কৃষি অঞ্চলের ৭১ হাজার হেক্টর জমিতে সবজি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন - ajkerparibartan.com
বরিশাল কৃষি অঞ্চলের ৭১ হাজার হেক্টর জমিতে সবজি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন

2:19 pm , November 24, 2021

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ চলতি রবি মৌসুমে বরিশাল কৃষি অঞ্চলে প্রায় ৭১ হাজার হেক্টর জমিতে আবাদের মাধ্যমে ১৫ লক্ষাধিক টন শীতকালীন সবজি উৎপাদনের লক্ষ্যে মাঠে মাঠে কাজ করছেন কৃষি যোদ্ধাগন। ইতোমধ্যে লক্ষ্যমাত্রার প্রায় ২৭ হাজার হেক্টর জমিতে সবজির আবাদ সম্পন্ন হওয়ায় ধীরে বাজারে তার ইতিবাচক প্রভাব পড়তেও শুরু করেছে। তবে নদ-নদীবহুল বরিশাল কৃষি অঞ্চল দেশের অন্য এলাকার তুলনায় কিছুটা নিচু হওয়ার পাশাপাশি এখান থেকে মৌসুমী বায়ু কিছুটা দেরীতে বিদায়ের কারণে বর্ষাও কিছুটা বিলম্বিত হওয়ায় জমিতে পানি আটকা রয়েছে। ফলে জমিতে অতিমাত্রায় আদ্রতা বিরাজ করায় রবি ফসলের আবাদও বিলম্বিত হয়। পাশাপাশি বিলম্বিত বর্ষার কারণে এ অঞ্চলের প্রধান দানাদার খাদ্য ফসল আমন ধান উঠতেও বিলম্ব ঘটায় শাক-সবজিসহ রবি ফসল আবাদও বিলম্বিত হয়ে থাকে।
চলতি রবি মৌসুমে বরিশাল কৃষি অঞ্চলে প্রায় ১২ লাখ হেক্টরে বিভিন্ন ধরনের ফসল আবাদ হচ্ছে। এরমধ্যে শুধু সাড়ে ৩ লাখ হেক্টরে বোরো ধান আবাদের মাধ্যমে ১৫ লাখ টন চাল উৎপাদনের লক্ষ্য রয়েছে। তবে অপেক্ষাকৃত নিচু এলাকা হওয়ায় এখানো শুধুমাত্র বীজতলা তৈরীর লক্ষ্যে মাঠ কাজ শুরু করতে যাচ্ছে কৃষি যোদ্ধাগন।
তবে এখন বরিশাল অঞ্চলের কৃষকরা এখন ব্যস্ত শীতকালীন সবজি আবাদে। চলতি রবি মৌসুমে কৃষি মন্ত্রনালয় দেশে ৯ লাখ ৪৮ হাজার হেক্টর জমিতে আবাদের মাধ্যমে ২ কোটি ১৯ হাজার টন শীতকালীন সবজি উৎপাদন লক্ষ্য নির্ধারন করেছে। এরমধ্যে শুধু বরিশাল কৃষি অঞ্চলেই প্রায় ৭১ হাজার হেক্টরে আবাদের মাধ্যমে ১৫ লক্ষাধিক টন সবজি উৎপাদনের লক্ষ্যে কাজ করছেন কৃষি যোদ্ধাগন। ইতোমধ্যে লালশাক, পালং শাক, শিম, পটল, ফুলকপি, বাধা কপি, শালগম, গাজর, মুলা সহ বিভিন্ন ধরনের শীতকালীন সবজি বাজারে আসছে। তবে এর বাইরে লাউ সহ বেশ কিছু সবজি, যা বার মাসই আবাদ ও উৎপাদন হচ্ছে, তাও বাজারে রয়েছে।
কিন্তু এ অঞ্চলে শীতকালীন সবজির আবাদ বিলম্বিত হওয়ায় এখনো দেশের দক্ষিণÑপশ্চিমাঞ্চলের সবজি বরিশাল অঞ্চলের বাজারে আসছে। ফলে পরিবহন ব্যয়জনিত কারনে দামও কিছুটা বেশি। আগামী দিন পনেরোর মধ্যে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত সবজি বাজারে আসতে শুরু করলে তার ইতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে জানিয়েছেন বরিশালের পাইকারী সিটি মার্কেটের সবজির আড়তদারগন।
কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর-ডিএই’র দায়িত্বশীল সূত্রের মতে, ‘দেশে গত বছর ১ কোটি ৯৭ লাখ ১৮ হাজার টনের মত শীতকালীন সবজি উৎপাদন হয়েছে। এ বছর তা ২ কোটি টনের ওপর নিয়ে যেতে চাচ্ছি। এতে করে অভ্যন্তরীন বাজারের পূর্ণ চাহিদা মিটিয়েও বিদেশে রপ্তানী বাজার আরো সম্প্রসারিত হবে’। ডিএই’র মতে ‘বিশে^র শতাধিক দেশে বর্তমানে বাংলাদেশর কৃষি পণ্য রপ্তানী হচ্ছে। এরমধ্যে শীতকালীল সবজিই অন্যতম প্রধান কৃষিপণ্য। আগামীতে এ বাজার আরো সম্প্রসারনের লক্ষ্যে সরকার দেশে সবজির আবাদে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে আসছে’।
এদিকে কৃষি গবেষনা ইনস্টিটিউট ‘বারী’ মাঠ পর্যায়ে গবেষনা কার্যক্রমের মাধ্যমে অন্যসব ফসলের মত বিভিন্ন ধরনের শীতকালীন সবজিরও উচ্চ ফলনশীল জাত উদ্ভাবন করেছে। ফলে কম জমিতে অধিক ফসল উৎপাদন সম্ভব হচ্ছে। এতে করে একদিকে কৃষকগন লাভবান হচ্ছেন, অপরদিকে দেশও কৃষিতে স্বয়ংসম্পূর্নতা অর্জনের পরে বিদেশে রপ্তানী বাজার সম্প্রসারনের সুযোগ ঘটছে বলে জানিয়েছে ডিএই’র দায়িত্বশীল সূত্র।

এই বিভাগের আরও খবর

বসুন্ধরা বিটুমিন

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT