‘ভোট সুষ্ঠু করতে এবার হয় মরব, নয় বাচবো’ ‘ভোট সুষ্ঠু করতে এবার হয় মরব, নয় বাচবো’ - ajkerparibartan.com
‘ভোট সুষ্ঠু করতে এবার হয় মরব, নয় বাচবো’

3:06 pm , October 27, 2021

চাঁদপুরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ভোট সুষ্ঠু করতে এবার হয় মরব, নয় বাচবো। বিগত দিনের কারচুপির ভোট এবার আর হবে না। জনগন তাদের সর্ব শক্তি দিয়ে প্রতিহত করবে। উন্নয়নের আশ্বাস কম দিলেও প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীদের প্রতি এমন চ্যালেঞ্জ দিয়ে চলছে সদরের চাঁদপুরা ইউনিয়নে চেয়ারম্যন প্রার্থীদের প্রচার প্রচারনা। অন্য ৫ ইউনিয়নের মতো উন্নয়ন সুবিধা বঞ্চিত এই ইউনিয়নেও বর্তমান ও সাবেক চেয়াম্যানরা দায়িত্ব পালনে পরিচয় দিয়েছে ব্যর্থতার। অভ্যন্তরীন কোন্দল, চাল চুরির অভিযোগ, সরকারী বরাদ্ধ বন্টন করতে ব্যর্থ হওয়া সহ নানা অভিযোগ রয়েছে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আমানুল্লাহ আমান এর বিরুদ্ধে। এ সকল অভিযোগ গতকাল পরিবর্তনকে জানায় ইউনিয়নের প্রার্থীসহ সাধারন ভোটাররা। নির্বাচনী পরিবেশ পর্যালোচনায় ওই ইউনিয়নে গেলে এ তথ্য জানায় তারা। তবে অভিযোগ এর বিষয়ে নিজেকে আড়াল করলেও বর্তমান চেয়ারম্যানসহ সকল প্রার্থীদের প্রচারনায় মুখর এখন এই ইউনিয়নটি। প্রায় ১৫ হাজার ভোটারের এই ইউনিয়নে এবার চেয়ারম্যান পদে ৫ জন প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। সাধারন সদস্য পদে ৩৬ এবং সংরক্ষিত সদস্য হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন ১৪ জন। সাধারন ভোটাররা জানায় প্রচারনা জমজমাট তবে যোগ্য প্রার্থীর সংখ্যা কম। আগের চেয়ারম্যান তার দায়িত্ব পালনে পুরোই ব্যর্থ হযেছেন বলে জানান তারা। কোন সুবিধা নিজ থেকে এনে দেয়াতো দুরের কথা চেয়ারম্যান আমানুল্লাহ আমান ব্যর্থ হয়েছেন বরাদ্ধ হওয়া সুবিধা সাধারন ভোটারদেরন মাঝে বন্টনেও। তাই এবারের চেয়ারম্যান বুঝে শুনেই নির্বাচন করবেন। ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেন-আওয়ামীলীগ মনোনীত মো. হেলাল উদ্দিন খান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মো. আলী আজিম খান, বর্তমান চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আমানুল্লাহ আমান, ছাত্রলীগে নেতা মো. জাহিদ হোসেন। বর্তমান চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আমানউল্ল্যাহ আমান কোন মন্তব্য করেননি। অন্যদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী ছাত্রলীগের সদর উপজেলার সাবেক আহবায়ক মো. জাহিদ হোসেন জানান, ইউনিয়ন পরিষদ এর ছাদ দিয়ে এখনও পানি পড়ে। নির্বাচিত হলে প্রথমে তা মেরামত করবেন। এর পর সমাধান করবেন রাস্তাঘাট, ব্রিজ কালভার্ট সহ নাগরিক সমস্যার। বর্তমান চেয়ারম্যান এর প্রতি চালচুরির মামলার অভিযোগ দিয়ে তিনি বলেন, ব্যর্থ এই চেয়ারম্যান এর কারনে ইউনিয়ন পরিষদ অচল হয়ে আছে। আছে আভ্যন্তরীন কোন্দল। যে কারনে উন্নয়ন কাজে আসা ৮২ লাখ টাকার বরাদ্ধ ফেরৎ গিয়েছে। অন্যদিকে নৌকার প্রার্থীর বিষয়ে তিনি বলেন, তিনি একজন সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। ইতিমধ্যেই কেন্দ্র দখল করে নির্বাচিত হওয়ার গুঞ্জন ছড়াচ্ছে তার সমর্থকরা। এই প্রার্থী নৌকার মনোনয়ন পেয়ে পরাজিত হয়েও আবার মনোনয়ন পেয়েছে যা দু.খজনক। এবারের ভোট সুষ্ঠ করার জন্য জনগনকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলবেন বলে জানান স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক মো. জাহিদ হোসেন। তিনি বলেন, হয় মরবো, নয় বাচবো। তার পরেও সুষ্ঠ ভোট চাই। ভোট সুষ্ঠু হলে শতভাগ জয়ী হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT