কীর্তনখোলা নদীতে ভোলায় চরে জলবায়ু উদ্বাস্তদের প্রতিকী যাত্রা কীর্তনখোলা নদীতে ভোলায় চরে জলবায়ু উদ্বাস্তদের প্রতিকী যাত্রা - ajkerparibartan.com
কীর্তনখোলা নদীতে ভোলায় চরে জলবায়ু উদ্বাস্তদের প্রতিকী যাত্রা

3:00 pm , October 27, 2021

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ কলাগাছের ভেলায় চড়ে কীর্তনখোলা নদীতে অজানার উদ্দেশ্যে প্রতিকী যাত্রা করেছে কয়েকটি জলবায়ূ উদ্বাস্ত পরিবার। ছোট ভেলায় তারা তুলে নিয়েছে ছাগল-হাঁস-মুরগী ও যৎসামান্য সম্বল। তাদের হাতে থাকা প্লাকার্ডে শ্লোগান লেখা ছিল- ‘আমাদেরকে জলবায়ু উদ্বাস্ত হিসাবে স্বীকৃতি দাও’। এসময় সমব্যথীরা নদীর পাড়ে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করছে। গতকাল বুধবার দুপুরে বরিশাল সদর উপজেলার চরকাউয়া ইউনিয়নের পামেরহাট সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদীর তীরে এমন ব্যতিক্রমি প্রতিবাদী কর্মসূচী পালন করে কিছু পরিবার। জাতিসংঘ আয়োজিত আসন্ন জলবায়ু সম্মেলনে অংশগ্রহনকারী বিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছে কার্বন নির্গমন কমানোর দাবীতে উন্নয়ন সংস্থা প্রান্তজন, বাংলাদেশের বৈদেশিক দেনা বিষয়ক কর্মজোট (বিডব্লিউডিইডি) ও উপকূলীয় জীবনযাত্রা ও পরিবেশ কর্মজোট (ক্লিন) যৌথভাবে এই কর্মসূচীর আয়োজন করে।
উদ্বাস্ত যাত্রায় বক্তারা অবিলম্বে কয়লা সহ জীবাশ্ম জ্বালানীতে বিনিয়োগ বন্ধ করা, উন্নত বিশ্বের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী প্রতিবছর ১০০ বিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরন নিশ্চিত করা, নবায়নযোগ্য জ্বালানী নিশ্চিত করার জন্য বাংলাদেশকে সহায়তা করা, ২০৫০ সালের মধ্যে কার্বন নির্গমন শূন্যে নামিয়ে আনার জন্য পদক্ষেপ গ্রহন এবং টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিতের দাবী জানায়।
প্রান্তজনের নির্বাহী পরিচালক তৌহিদুল ইসলাম শাহজাদা বলেন, জাতিসংঘের প্রতিবেদন অনুসারে ইতিমধ্যে বায়ুমন্ডলে কার্বনের ঘনত্ব পৃথিবীর সহনক্ষমতা ছাড়িয়ে গেছে। জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে প্রতিবছর বাংলাদেশে ৫ লাখ মানুষ উদ্বাস্ত হয়ে যাচ্ছে। উপকূলীয় অঞ্চলে ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছাস, নদীভাঙ্গন, লবনাক্ততায় প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ নিঃস্ব হচ্ছে।
প্রতিকী উদ্বাস্ত যাত্রা সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মো. সাইফুল ইসলাম মনির, সফিকুর রহমান, বাদল খলিফা, শুকতারা বেগম, নিজাম খলিফা, জালাল হাওলাদার, বাবুল হাওলাদার, আল-আমিন হাওলাদার, সোহেল সিকদার, রিয়াজ হাওলাদার, মনির হাওলাদার প্রমুখ।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT