দক্ষিনাঞ্চলের বাজার-আড়ত ইলিশে ভরপুর দক্ষিনাঞ্চলের বাজার-আড়ত ইলিশে ভরপুর - ajkerparibartan.com
দক্ষিনাঞ্চলের বাজার-আড়ত ইলিশে ভরপুর

3:09 pm , October 26, 2021

 

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নিষেধাজ্ঞা শেষে নদী ও সাগরে ইলিশ শিকার শুরু করেছে জেলেরা। সোমবার দিনগত মধ্য রাত থেকে তারা শিকার শুরু করে। গতকাল মঙ্গলবার দক্ষিনাঞ্চলের মাছের বাজার ও আড়ত ইলিশে ভরপুর হয়েছে। নগরীর অন্যতম পোর্ট রোড বাজারেও ইলিশে ভরে উঠেছে। ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে শিকারের নামায় গতকাল একটু দেরিতে বাজার ও আড়তে মাছ উঠেছে। তার পরেও খুশি ব্যবসায়ীসহ শ্রমিক- কর্মচারীরা। ঝিমিয়ে থাকা এ পাইকার বাজারে ইলিশ আসায় বেচা-বিক্রিতেও অনেকটাই ব্যস্ততা ফিরেছে। সকালে পোর্টরোড মোকামের ঘাটে ট্রলার, নৌকা ও স্প্রীড বোটে করে মাছ নিয়ে এসেছে জেলে ও ব্যবসায়ীরা। সেই সাথে খুচরো ও পাইকার ক্রেতাদের ভিড় ছিলো চোঁখে পড়ার মতো। তবে প্রথম দিনে ইলিশের দাম নিয়ে কেউ সন্তোষ প্রকাশ করলেও বেশিরভাগ ক্রেতারাই জানিয়েছেন উর্ধ্বমুখি। একই সাথে ক্রেতাদের দাবি, বাজারের উঠা সিংহভাগ মাছ আগে শিকার করা। ক্রেতা মো. ইফতেখার বলেন, বিক্রেতারা স্থানীয় নদীর মাছ হিসেবে স্বীকার করলেও, সিংহভাগ ইলিশ নিষিদ্ধ সময়ে শিকার করেছে। কিছু মাছ এতোটাই লাল ও নরম। এ মাছ নিষেধাজ্ঞার মধ্যে শিকার করা হয়েছে।
তবে ক্রেতাদের এ দাবি অস্বীকার করে খুচরা বিক্রেতা ও আড়তদাররা জানিয়েছে, এ ধরনের সুযোগ নেই। সোমবার দিনগত রাতে স্থানীয় নদ-নদী থেকে শিকার করা ইলিশ উঠেছে। গতকাল সকালে জেলে ট্রলার সাগরে গেছে। দুই একদিনের মধ্যে তারা ফিরবে। তখন ইলিশের আধিক্য আরো বাড়বে। তখন দামও কমবে। ব্যবসায়ী মালেক মিয়া বলেন, নিষেধাজ্ঞায় প্রশাসনের কঠোরতার কারনে কেউ নদীতে নামেনি। তাই বাজারে কম এসেছে। সেই অনুযায়ী দর তেমন একটা বেশি ছিলো না। আর এতো অল্প সময়ে যে পরিমান মাছ পাওয়া গেছে তাও সন্তোষজনক। জেলেরা জানিয়েছেন, কয়েকদিন পরেই শীতের শুরু। তবে নিষেধাজ্ঞা শেষে যে মাছ পড়ছে তাতে পুরোদমে শীত নামার আগে খারাপ যাবে না বলে মনে হচ্ছে।
গতকাল পোর্ট রোডের বাজারে গোটলা থেকে এলসি পর্যন্ত আকার ভেদে ইলিশের দর ছিলো কেজি প্রতি ৫ শত থেকে ৯ শত টাকা। কেজির উপরে ইলিশের দর ছিলো ৯ থেকে ১১ শত টাকা।
এদিকে, নিষিধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পাইকারদেরও উপস্থিতিও বেড়েছে। তাদের ও আড়তদারদের ক্রয় করা ইলিশ ককশিটে বরফ দিয়ে সকাল থেকেই প্যাকেটজাত করতে ব্যস্ত ছিলেন শ্রমিকরা। বেলা বাড়ার সাথে সাথে আড়তের সামনে ককশিটের স্তুপ জমে যায়।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT