নগরীর যানজটে ঢাবিতে ভর্তির স্বপ্ন ভঙ্গ তিথির নগরীর যানজটে ঢাবিতে ভর্তির স্বপ্ন ভঙ্গ তিথির - ajkerparibartan.com
নগরীর যানজটে ঢাবিতে ভর্তির স্বপ্ন ভঙ্গ তিথির

3:39 pm , October 2, 2021

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যানজটের কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) পড়ার স্বপ্ন ভেঙে গেছে গোপালগঞ্জের মেয়ে তিথি রায়ের। নির্ধারিত সময়ে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় (ববি) কেন্দ্রে পৌঁছুতে ব্যর্থ হয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি সে। ফলে স্বপ্ন ভঙ্গের কষ্ট ও হতাশায় কেন্দ্রের বাহিরে কান্নায় ভেঙে পড়ে তিথি। পরে পরীক্ষার প্রবেশ পত্র ছিঁড়ে স্থান ত্যাগ করে তিথি ও তার স্বজনরা। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শনিবার ঢাবি’র ভর্তি পরীক্ষার ববি কেন্দ্রে। স্বজনরা জানিয়েছে, ঢাবিতে ভর্তি হতে খ ইউনিটের পরীক্ষার্থী ছিলো তিথি। গতকাল সকাল ১১টা থেকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয় ভর্তি পরীক্ষা। কিন্তু রাস্তায় প্রচ- যানজটের কারণে কেন্দ্রের গেটে এসে পৌঁছায় ১১টা ২৫ মিনিটে। দেরি করে আসায় ভর্তি পরীক্ষার নিয়ম অনুযায়ী তাকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। স্বপ্নভঙ্গের যন্ত্রণায় হতবিহ্বল তিথি দু’হাতে মুখচেপে কাঁদতে থাকেন অঝোর ধারায়। তার অভিভাবক এবং আশপাশের কয়েকজন ঢাকা ও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপস্থিত শিক্ষকদের অনুরোধ করেও ব্যর্থ হয়। শেষমেশ রাগে-ক্ষোভে পরীক্ষার প্রবেশপত্র ছিঁড়ে টুকরো টুকরো করে স্থান ত্যাগ করেন তিথি ও স্বজনরা। তিথির মা গীতা রায় বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার আবেদনের পর থেকে দিন-রাত পড়াশুনা করেছে। পরীক্ষায় অংশগ্রহণের উদ্দেশ্যে খুব সকালে গোপালগঞ্জ থেকে বরিশালের উদ্দেশ্যে তারা রওনা দেয়। কিন্তুনগরীর চৌমাথা ও সাগরদী এলাকায় দুই দফার তীব্র যানজটে আটকে পড়ে। তাই নির্ধারিত সময়ে কেন্দ্রে পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়েছেনতারা। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. খোরশেদ আলম বলেন, ভর্তি পরীক্ষার বিধি অনুযায়ী পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীর কেন্দ্রে প্রবেশের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। কিন্তু তিথি রায় নামের একজন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা শুরুর অনেক পরে উপস্থিত হয়। বিষয়টি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দলকে জানানো হলে তারা মেয়েটিকে কেন্দ্রে প্রবেশে অনুমতি দেননি।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT