আমতলীতে মহাসড়কের উপর হাট ॥ ভোগান্তি চরমে আমতলীতে মহাসড়কের উপর হাট ॥ ভোগান্তি চরমে - ajkerparibartan.com
আমতলীতে মহাসড়কের উপর হাট ॥ ভোগান্তি চরমে

2:54 pm , September 9, 2021

আমতলী প্রতিবেদক ॥ আমতলী পৌর শহরের বাঁধঘাট মহাসড়কের ওপর সাপ্তাহিক হাট বসার কারণে যানবাহনসহ সাধারণ মানুষ চলাচলে বিঘœ সৃষ্টি হচ্ছে এবং যে কোন সময়ে ঘটতে পারে বড়ধরনের দুর্ঘটনা। পটুয়াখালী -কুয়াকাটা মহাসড়ক বাঁধঘাট সড়কটি বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড পাউবোর মালিকানাধীন জমির ওপর দিয়ে গেছে। সড়কের দুপাশে অবৈধ দখলদাররা স্থপনা করে দখল করে ব্যবসা বানিজ্য করছেন।বাঁধঘাট মহাসড়কের দক্ষিন পাশে বছরের পর বছর ধান চালের হাট বসতো প্রতি বুধবার। গত কয়েক বছরে অবৈধ দখলদাররা তাদের ব্যবসায়ীক ঘরগুলো বৃদ্ধি করে দক্ষিণ দিকের ধান চালের হাট বসানোর যে খোালা যায়গা ছিল তা দখল করে নিয়ে গেছেন।ফলে স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষকে ভোগান্তিতে পড়তে হয় বলে জানিয়েছেন স্থানীয় লোকজন।
প্রতি বুধবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মহাসড়কের ওপর চলে ধানচাল কেনাবেচা। ধান বহনকারী নছিমন, করিমন, ভটভটি, ভ্যানসহ বিভিন্ন যানবাহন রাখা হয় মহাসড়কের ওপর। এতে মহাসড়কের প্রায় অর্ধেক অংশ দখল হয়ে যায়।ঢাকা থেকে কুয়াকাটা,বরিশাল, বরগুনা,পটুয়াখালী,কলাপাড়া, তালতলীগামী বাস, ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন বাধঘাট মহাসড়ক বাজারে গিয়ে আটকে পড়ে। সৃষ্টি হয় যানজট। এ কারণে পথচারীদের চলাচলও বাধাগ্রস্থ হয়। একটি বাসের চালক জাহাঙ্গির হোসেন বলেন, বুধবার এ সড়কদিয়ে বাস চালানো খুব কষ্টকর।
সরেজমিনে দেখা যায়, বাঁধঘাট মহাসড়কের ওপর কেনাবেচা হচ্ছে ধান। কৃষকেরা নছিমন, করিমনসহ বিভিন্ন যানবাহনে করে ধান নিয়ে এসে বিক্রির জন্য মহাসড়কের ওপর রেখেছেন। ব্যবসায়ীরা কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনার পর মহাসড়কেই স্তুপ করে রাখছেন। এতে সড়কের দুই পাশ দখল হয়ে গেছে। দক্ষিনাঞ্চলগামী কয়েকটি বাসসহ বিভিন্ন যানবাহন আটকে পড়ে সৃষ্টি হয়েছে যানজট।
ধান বিক্রি করতে আসা কয়েকজন কৃষক বলেন, মহাসড়কের পাশেই ধান কেনাবেচা হয় বলে তাঁরা এটাকে ধানমহাল বলে জানেন। তাই মহাসড়কের পাশেই তাঁরা ধান নিয়ে দাঁড়ান। ধানের একজন ক্রেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘ সুবিধামতো কোনো জায়গা না থাকায় বাধ্য হয়েই মহাসড়কের পাশেই ধান কেনার কাজটা করতে হয়।’
আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. কাওসার হোসেন মুঠোফোনে বলেন, পানি উন্নয়ন র্বোড ওসড়ক বিভাগকে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তাদের উর্ধ্বতন কতর্পৃক্ষের সাথে কথা বলবো।
এ ব্যাপারে আমতলী পৌর মেয়র মো. মতিয়ার রহমান মুঠোফোনে জানান, সংশ্লিষ্ট দপ্তরের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো.কায়সার আলম মুঠোফোনে বলেন,বিষয়টি সরেজমিন তদন্ত করে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

বসুন্ধরা বিটুমিন

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT