বাবুগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ দুজনকে আটক করে নির্যাতন বাবুগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ দুজনকে আটক করে নির্যাতন - ajkerparibartan.com
বাবুগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ দুজনকে আটক করে নির্যাতন

2:44 pm , September 7, 2021

 

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বাবুগঞ্জে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের ভাই জাহাঙ্গীরনগর (আগরপুর) ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম তারেকের বিরুদ্ধে বীর মুক্তিযোদ্ধাকে খুঁটির সাথে বেঁধে নির্মম নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রোববার জাহাঙ্গীর নগর ইউপির একটি বাজারে এ ঘটনা ঘটিয়েছে তারা। এছাড়াও তারেকের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মজিদ সরদারকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করেছে। এ সময় ওই মুক্তিযোদ্ধার সাথে থাকা বৃদ্ধ মো. আজাহার ওরফে মনুকে (৬৫) হাঁতুড়ি পেটা করা হয়েছে। খবর পেয়ে স্থানীয় পুলিশ ক্যাম্পের একদল সদস্য গুরুত্বর অবস্থায় মুক্তিযোদ্ধাসহ আহত দুইজনকে উদ্ধার করে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।
এদিকে এ ঘটনা ধামাচাপা দিতে ঘটনার পরের দিন সোমবার উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতির নেতৃত্বে উল্টো তারেক বাহিনীর উপর হামলার মিথ্যা অভিযোগ এনে প্রতিবাদ কর্মসূচী পালন করেছে। অভিযোগের সূত্রে জানা গেছে, জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের ঠাকুর মল্লিক গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিদ সরদারের সাথে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এসএম খালেদ হোসেন স্বপন ও তার বড় ভাই জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান তারেকের সাথে ১৬ বছর পূর্বে বিরোধ হয়। এই কারনে দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে নিজ এলাকায় আসেননি বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিদ সরদার। দীর্ঘদিন পর গত রোববার আঃ মজিদ সরদার নিজ এলাকার ঠাকুর মল্লিক গ্রামে আসেন। পরে স্থানীয় একটি বাজারে অবস্থান করেন। এ খবর পেয়ে জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান তারেক ও তার সহযোগিরা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মজিদ সরদারের উপর হামলা করে। তারা মুক্তিযোদ্ধাকে খুটিতে বেঁধে নির্যাতনসহ পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে তারেক ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী।
মুক্তিযোদ্ধাসহ দুই ব্যক্তির উপর নির্যাতনের ঘটনা ধাঁমাচাপা দিতে উল্টো তারা প্রতিবাদ কর্মসুচী পালন করেছে। সেখানে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়কে তার নিজ উপজেলা বাবুগঞ্জে অবাঞ্ছিত করার হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।
শেবাচিমে চিকিৎসাধীন মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিকদের বলেন, ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সরদার তারেকুল ইসলাম তারেক ও তার সহযোগীরা প্রকাশ্যে তাদের ওপর হামলা চালিয়ে অমানুষিক নির্যাতন করেছে। তবে মুক্তিযোদ্ধা মজিদ সরদার ও তার সাথে থাকা আজাহার ওরফে মনুকে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান তারেকুল ইসলাম তারেক বলেন, হামলা বা নির্যাতনের কোন ঘটনা ঘটেনি। উল্টো অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, উল্লেখিত দুই ব্যক্তিসহ ৭/৮ জনের একটি সন্ত্রাসী দল তাকে হত্যার উদ্দ্যেশে এলাকায় অবস্থান নেয়। বিষয়টি এলাকাবাসী জানতে পেরে সন্ত্রাসীদের ধাওয়া করে। এ সময় অন্যান্যরা পালিয়ে গেলেও মজিদ সরদার ও মনুকে এলাকার লোকজনে আটক করে গণধোলাই দিয়েছে। এ ঘটনায় সোমবার দিবাগত রাতে তিনি (তারেক) নিজে বাদী হয়ে মজিদ ও মনুসহ বেশ কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। বাবুগঞ্জ থানার ওসি মোঃ মাহাবুবুর রহমানসাংবাদিকদের বলেন, হামলার শিকার বৃদ্ধ মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মজিদ সরদার সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সরদার তারেকুল ইসলাম তারেকের পিতার হত্যা মামলার আসামি ছিলেন। মজিদ সরদার ও সাবেক চেয়ারম্যান তারেক একই বাড়ির বাসিন্দা হলেও দীর্ঘদিন পর মজিদ সরদার গ্রামে আসায় তারেক অনুসারীদের সন্দেহ হয়। যে কারণে তারেকের অনুসারীরা মজিদ সরদারসহ তার সাথে থাকা মনুকে মারধর করেছে। এদিকে মুক্তিযোদ্ধারর উপর হামলার ঘটনায় বাবুগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT