করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সর্বশক্তি নিয়ে মানব সেবা করছে রেডক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবীরা করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সর্বশক্তি নিয়ে মানব সেবা করছে রেডক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবীরা - ajkerparibartan.com
করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সর্বশক্তি নিয়ে মানব সেবা করছে রেডক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবীরা

3:31 pm , August 18, 2021

সিটি মেয়রের দিক-নির্দেশনায়

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বিভাগে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় শুরু থেকে সামনের সারির যোদ্ধা হিসেবে কাজ করছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বরিশাল ইউনিটের স্বেচ্ছাসেবীরা। ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। ২৬ মার্চ থেকে শুরু হয় প্রথম লকডাউন। দেশের পরিস্থিতি হয়ে পড়ে এলোমেলো। তখন নিজেদের সর্বশক্তি নিয়ে মানবসেবায় এগিয়ে আসে এই স্বেচ্ছাসেবী এ সংগঠনটি। সারাদেশের ন্যায় বরিশালের করোনা মোকাবেলায় নিজেদের বিলিয়ে দেয় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বরিশাল ইউনিটের স্বেচ্ছাসেবীরা। জীবনের ঝুকিকে তুচ্ছ করে দিনরাত কাজ শুরু করে তারা। গত বছর করোনার শুরুর সময় থেকে বরিশাল রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির নির্বাচিত ভাইস-চেয়ারম্যান সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর দিক নির্দেশনায় নানাবিধ সেবামূলক কাজ শুরু হয়। করোনা মোকাবেলায় সকল সরকারি অফিস, জেলখানা এবং সরকারি দুই হাসপাতালে নিয়মিত জীবানুনাশক স্প্রে দেয়া, বিভিন্ন স্থানে মাস্ক স্যানিটাইজার বিতরন, নগরীর বিভিন্ন স্থানে জনসচেতনতা মূলক প্রচারনা সহ ত্রান বিতরন কার্যক্রম পরিচালনা করে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বরিশাল ইউনিট। এছাড়াও কারারক্ষীদের মাঝে করোনার সুরক্ষা সরঞ্জাম প্রদান, সরকারী সকল অফিস ও হাসপাতালে বিনামূল্যে মিনারেল ওয়াটার সরবরাহ এবং র‌্যাব এর সহায়তায় বিভিন্ন স্থানে রক্তদান কর্মসূচি পরিচালনা করে। এ বছর পূনরায় করোনা মোকাবেলায় তাদের একই কার্যক্রম অব্যাহত রাখে। এর সাথে ভ্যাক্সিন প্রদান কার্যক্রম শুরু হওয়ার সাথে সাথে সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর নির্দেশনায় প্রায় ৫শত ভলান্টিয়ার নিয়ে কাজ শুরু করে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি। বরিশাল জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ভ্যাক্সিন প্রদান কার্যক্রমে ৩২৪ ভলান্টিয়ার নিজুক্ত রয়েছেন বলে জানায় রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বরিশাল ইউনিট এর সূত্র। নগরীর ৪০ টি বুথে রয়েছে ১২০ স্বেচ্ছাসেবী। এদের সকলকে সিটি কর্পোরেশন থেকে ভ্যাক্সিন প্রদানের ট্রেনিং সম্পন্ন করে সেবায় নিযুক্ত করা হয়েছে। জীবনের ঝুকি নিয়ে এই সেবা দিতে গিয়ে বরিশাল ইউনিটের একাধিক স্বেচ্ছাসেবী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বর্তমানে তারা সকলে ভ্যাক্সিন নিয়ে সেবা অব্যাহত রেখেছেন। এছাড়া করোনা রোগীদের জন্য ২৪ ঘন্টা অক্সিজেন সেবা পরিচালনা করছে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির। বিনা মূল্যে এ সকল অক্সিজেন রোগীদের দোড়গোরায় পৌছে দেয়া হচ্ছে। তা শেষ হয়ে গেলে পূনরায় স্বেচ্ছাসেবীরা চলে যাচ্ছেন নতুন সিলিন্ডার নিয়ে। এ কাজে ২০ জন স্বেচ্ছাসেবী ২৪ ঘন্টা নিয়োজিত থাকছেন। বরিশাল জেলার যে কোন স্থানে করোনা রোগীদের বহনে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বরিশাল ইউনিটের রয়েছে ফ্রি এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস। যা সেবা দিয়ে আসছে শত শত করোনা রোগীদের। এ সকল কাজের বাইরেও বেশ কিছু মানবিক কার্যক্রম রয়েছে তাদের। এমন একটি কাজের নাম পারিবারিক যোগাযোগ পুন.স্থাপন। এই কাজের আওতায় তারা সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ থেকে হারিয়ে যাওয়া এক নারীকে কুষ্টিয়া থেকে খুজে বের করে তার চিকিৎসা করিয়ে পরিবারের কাছে ফেরত দিয়েছেন। এছাড়া কারাগারে বিদেশি বন্দিদের তাদের পরিবারের সাথে যোগাযোগের ব্যবস্থা করেছে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি বরিশাল ইউনিট। তবে এ সকল কাজে সিটি কর্পোরেশনের ছাড়া অন্য কোন দপ্তর কিংবা প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা পায়নি বলে অভিযোগ করেছে সোসাইটির সদস্যরা। স্বাস্থ্য খাতে তাদের কর্মকান্ড পরিচালনা হলেও সিভিল সার্জন অফিস তাদের বিন্দুমাত্র সহায়তাও এখন পর্যন্ত করেনি বলে জানায় তারা।
বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বরিশাল ইউনিটের সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান পরিবর্তনকে জানান, বরিশাল রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির নির্বাচিত ভাইস-চেয়ারম্যান সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর দিক নির্দেশনা ও সার্বিক সহায়তায় করোনাকালীন সময় কাজ করে চলেছেন তারা। স্বেচ্ছাসেবীরা নিজেদের জীবনের ঝুকি নিয়ে দিনরাত বিভাগের প্রতিটি প্রান্তের করোনা রোগীদের সেবা করে যাচ্ছে বিভিন্নভাবে। এ বছর তারা ভ্যাক্সিনের সকল কার্যক্রম পরিচালনায় রয়েছেন প্রত্যক্ষভাবে। গত বছর থেকেই করোনার বিরুদ্ধে তাদের এই যুদ্ধ শুরু হয়। একমাত্র সিটি মেয়র সেরনিয়বাত সাদিক আব্দুল্লাহর নির্দেশনায় তারা এখনও মাঠে রয়েছেন আর সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। মিজানুর রহমান কিছুটা অভিযোগ করে বলেন, সিভিল সার্জনের কাছ থেকে তাদের নির্দেশনা ও সাহায্য পাওয়ার কথা ছিল। তা তারা কিছুই পাননি। বরিশাল সিটি কর্পোরেশন তাদের করোনাকালীন সময় যে সহায়তা করেছে তা শত ভাগের একভাগও দেয়নি বরিশাল সিভিল সার্জন অফিস। এর পরেও একমাত্র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর ঐকান্তিক চেষ্টা ও নির্দেশনায় তারা কাজ করে চলেছেন এবং ভবিষ্যতেও করবেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT