শিক্ষানুরাগী আবদুর রব মিয়ার মৃত্যুতে কেঁদেছে ভোলাবাসী শিক্ষানুরাগী আবদুর রব মিয়ার মৃত্যুতে কেঁদেছে ভোলাবাসী - ajkerparibartan.com
শিক্ষানুরাগী আবদুর রব মিয়ার মৃত্যুতে কেঁদেছে ভোলাবাসী

3:26 pm , July 10, 2021

 

ভোলা জেলার লালমোহন পৌরসভা নিবাসী মরহুম মৌলভী করিম বক্স সাহেবের জ্যেষ্ঠ সন্তান আলহাজ্ব মো: আবদুর রব মিয়া (বিএ, বিএড) গত ১/৭/ ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রোজ বৃহস্পতিবার ৪.২৫ ঘটিকায় বার্ধক্যজনিত কারণে নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর( ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তাহার কর্মময় জীবন গজারিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা পেশা দিয়ে শুরু করেন। পরবর্তীতে, তিনি ডাওরীহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক ছিলেন। অতঃপর প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের অধীন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ভোলায় মনিটরিং অফিসার হিসেবে দক্ষতা, সততা ও সুনামের সহিত কর্মময় জীবন শেষ করে ২০০০ খ্রিস্টাব্দে অবসর গ্রহণ করেন। তিনি ২০০৩ খ্রিস্টাব্দে পবিত্র হজব্রত পালন করেন। কর্মময় জীবনের পাশাপাশি তিনি প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতায় অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেন। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- ইসলামিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পৌর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হাসিনা খানম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর তারাগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তারাগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ কাউরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বালুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর চাপড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়( তজুমদ্দিন)। ইহা ছাড়া অনেক ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানও তিনি গড়ে তুলেন। যার মধ্যে পূর্ব পাড়া জামে মসজিদে দীর্ঘদিন সভাপতির দায়িত্ব পালন করে শত বছরের পুরনো টিনের ঘরকে আধুনিক ভবনে রুপান্তর সকলের সহযোগিতায় সম্পন্ন করেন। জৈনপুর দরবার শরীফের খানকা প্রতিষ্ঠা,দাতা হিসাবে হাফিজিয়া মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা, দাতা হিসাবে দক্ষিন চর প্যায়ারী মোহন জামে মসজিদ প্রতিষ্ঠা, সওদাগর জামে মসজিদের ভবন নির্মাণে আর্থিক সহযোগিতা সহ সমাজকল্যাণমূলক কর্মকা-ে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছিলেন। এ ছাড়া ভোলার অনেক ছেলে মেয়েকে চাকুরী পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগীতা করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী,০৪পুত্র ও ০৪ কন্যাসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও অসংখ্য শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন। তার সন্তানেরা সরকারি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরে কর্মরত রয়েছেন। তিনি জীবদ্দশায় ইসলাম ধর্মের মূল্যবোধ ও ধর্মীয় অনুশাসন গুলো মেনে চলার আমৃত্যু চেষ্টা করে গেছেন। তিনি ছিলেন সর্বদা সদালাপী, দানশীল, পরোপকারী ও সহজ- সরল প্রকৃতির লোক। তাহার বিয়োগান্তে রেখে যাওয়া আদর্শগুলো ও মানব হিতৈষী মূলক কর্মকান্ড তরুণ প্রজন্মের কাছে অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। ভোলাবাসী তার অবদানকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে। আল্লাহপাক তাকে জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করুন। আমিন। খবর বিজ্ঞপ্তি।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT