মানবিকতা এখনো হারিয়ে যায়নি মানবিকতা এখনো হারিয়ে যায়নি - ajkerparibartan.com
মানবিকতা এখনো হারিয়ে যায়নি

3:18 pm , July 9, 2021

বেলায়েত বাবলু ॥ ছবিতে দেখা যাচ্ছে বসে থাকা মানুষটি খাবারের প্যাকেট দিচ্ছে আর দাঁড়িয়ে থাকা মানুষটি তা গ্রহন করছেন। এতে একজনকে দাতা আরেকজনকে গ্রহিতা মনে হচ্ছে। তবে যিনি দাতা তিনি কোন সমাজসেবী অথবা ধর্নাঢ্য ব্যক্তি নন। তিনি হচ্ছেন একজন মানবিক ফেরিওয়ালা। ফেরি করে লুঙ্গি কাপড় বিক্রি করাই তাঁর পেশা। তাঁর মানবিকতার দৃশ্যটি হয়তো কারো চোখেই পড়েনি। তারপরেও তিনি যে মহৎ কাজটি করছেন তা অনন্য, অনুকরণীয়। গতকাল শুক্রবার দুপুরের ছবি এটি।
মহামারী করোনা ভাইরাসের কারনে দেশে কঠোর নিষেধাজ্ঞা চলছে। একারণে বেকার হয়ে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ গুলো। চলমান নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই অনেক হতদরিদ্রের মতো শুক্রবার রাস্তায় বের হয়েছিলেন তারা। তাঁদের একজন রিকসাচালক ও অন্যজন লুঙ্গি কাপড় ফেরিওয়ালা। রোজগারের আশায় নগরীর হাসপাতাল রোডের অমৃত লাল দে কলেজ সংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছিলেন তারা। হঠাৎ তারা দেখতে পান পিকআপযোগে প্যাকেট খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। অন্যদের মতো তারা দু’জনেও ছুটেন পিক-আপের পিছনে। শেষ পর্যন্ত লুঙ্গি বিক্রেতা দৌড়ে এক প্যাকেট খাবার হাতে নিতে পারলেও ব্যর্থ হন রিকশাচালক। খাবার প্যাকেটনা পেয়ে এরপর হতাশাচিত্তে তিনি দাঁড়িয়ে থাকেন নিজের রিকসার সামনে। বিষয়টি টের পেয়ে নিজের জন্য সংগ্রহ করা খাবার প্যাকেটটি ওই রিকসাওয়ালার দিকে বাড়িয়ে দেন লুঙ্গি বিক্রেতা। প্রথমে নিতে না চাইলেও পরে তা গ্রহন করেন রিকসাওয়ালা। বেশকিছু সময় ধরে এ দৃশ্য অবলোকন করে মোবাইলে দুজনের বিরল এ ছবিটি তোলা শুরু করি। ফেরি করে লুঙ্গি কাপড় বিক্রি করে জীবন নির্বাহ করা মানবিক ওই মানুষটি ছবি তুলতে দেখে মুচকি হাসি দেন। কেন নিজে না নিয়ে অন্যকে খাবার দিয়ে দিলেন এ প্রশ্নের জবাবে তাঁর সংক্ষিপ্ত উত্তর ছিলো আমার একটা ব্যবস্থা হয়ে যাবে। এরপর অল্প সময়ের মধ্যে দু’জনেই ওই স্থান ত্যাগ করেন। লুঙ্গি বিক্রেতার মানবিক গুণাবলী দেখে মনে হয়েছে সত্যিই মানবিকতা হারিয়ে যায়নি।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT