লালমোহনে সমাজসেবা অফিসে ভাতা ভোগীদের ভিড় লালমোহনে সমাজসেবা অফিসে ভাতা ভোগীদের ভিড় - ajkerparibartan.com
লালমোহনে সমাজসেবা অফিসে ভাতা ভোগীদের ভিড়

2:33 pm , June 27, 2021

 

মোঃ জসিম জনি, লালমোহন ॥ ভোলার লালমোহনে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির বিধবা, বয়স্ক ও পঙ্গু ভাতার টাকা যাচ্ছে কোন নম্বরে জানেনা অনেক ভাতাভোগীই। অনলাইনে এমআইএস করার পর এসব ভাতাভোগীদের টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে হাতে হাতে পৌছে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এসব টাকা পৌছে দেওয়ার জন্য ভাতাভোগীদের বিপরীতে যে নগদ একাউন্ট নম্বর দেওয়া হয়েছে তা কারো নম্বর ভুল, কারো নম্বর থাকলেও ওই নম্বর কার তা জানেনা ভাতাভোগীরা। এ কারণে সঠিকভাবে ভাতাভোগীরা তাদের প্রাপ্য পাচ্ছে না। অনেক নম্বর বন্ধ থাকায় টাকা কে নিয়েছেন তাও জানা যাচ্ছে না। এমন অভিযোগ নিয়ে প্রতিদিন উপজেলা সমাজসেবা অফিস কার্যালয়ে ভাতাভোগীরা ভিড় জমাচ্ছেন বই নিয়ে। অফিসের কর্মকর্তারাও মোবাইল নম্বর সংশোধন করতে ব্যস্ত। তবে যেসব টাকা ভুল নম্বরে চলে গেছে, বা ইচ্ছা করে ওই টাকা আত্মসাতের জন্য কেউ নিজের নম্বর দিয়েছেন তাদের কাছ থেকে টাকা ফেরত কিভাবে আনা যাবে তা জানেনা উপজেলা সমাজসেবা অফিসের কর্মকর্তারা। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ মামুন হোসেন জানান, গত কয়েকদিন এমন ৬০টি অভিযোগ পেয়েছেন। ওই ৬০টি নম্বরে টাকা চলে গেছে। নম্বরগুলো কার তার হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে হেড অফিসের নির্দেশনা অনুযায়ী ই-মেইল করা হয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পূর্বে কেউ কেউ ভুয়া বই তৈরি করে এসব ভাতার টাকা আত্মসাৎ করলেও এবার তারা অনলাইনে এমআইএস করার কারণে বিকল্প পন্থা অবলম্বন করেছে। তরিগড়ি করে এলাকার জনপ্রতিনিধিদের কেউ কেউ নিজেদের মোবাইল ফোন নম্বর ও আত্মীয় স্বজনের মোবাইল নম্বর দিয়েছেন। এছাড়া নতুন সিম কিনেও কেউ কেউ নম্বর দিয়েছেন। এসব নম্বর বন্ধ থাকায় নম্বরগুলো কার তা জানা যাচ্ছে না। উপজেলার চরভূতা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ছাবেদা খাতুন। এনআইডি নম্বর ৫০৫৫৮১৭৯৬৮। তিনি আগে বই দিয়ে বিধবা ভাতা পেলেও এবার এমআইএস করার ফলে টাকা পাননি। খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন তার এমআইএস করার জন্য নগদ একাউন্টের ০১৩১০৫৫৭৪৪১ এই নম্বরটি দেওয়া হয়েছে। নম্বরটি কার তা জানেন না তিনি। কল দিলেও সবসময় বন্ধ পাওয়া যায়। একই ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের বিধবা আনোয়ারা বেগমের এনআইডি কার্ড ব্যবহার করে ০১৭৭৫১৮৮৮৯০ এই মোবাইল নম্বর দিয়ে বিধবা ভাতার এমআইএস করা হয়েছে। তার ভাতা ভোগী আইডি নং ০২০৯০০২৪৫২৪। নম্বরটি বন্ধ থাকায় কার তাও বলা যাচ্ছে না। গত ৬ মাসের বিধবা ভাতার ৩ হাজার টাকা চলে গেছে এই নম্বরে। ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের সাদাপুল এলাকার লাইলি বেগম। বিধবা ভাতার জন্য তার এমআইএস করার সময় ০১৩০৭৭৫৭৫৬৫ এই নম্বরটি দেওয়া হয়েছে। নম্বরটি কার তা জানেন না তিনি। তার এমআইএস নম্বর ০২০৯০০১৯৪৮৬। এসব বঞ্চিত ভাতাভোগীরা উপজেলা সমাজ সেবা অফিসে পুরনো ভাতার বই নিয়ে এসে অভিযোগ দিয়েছেন। নবীনগর এলাকা থেকে রাবেয়া বেগম ৩দিন এসে ঘুর ঘুর করছেন সমাজসেবা অফিসে। তার বিধবা ভাতার বিপরীতে কার নম্বর দেওয়া হয়েছে তিনি জানেন না বলে জানান। তাই তিনি টাকাও তুলতে পারেননি। লালমোহন উপজেলায় সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় বিধবা, বয়স্ক ও পঙ্গু ভাতার মোট ১৭ হাজার ২২৭ জনের নাম রয়েছে বলে জানান উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ মামুন হোসেন। তিনি জানান, প্রতিদিন ভাতাভোগীরা অফিসে এসে ভিড় করেন। যাদের নম্বর ভুল হয়েছে তা অফিস থেকেই সংশোধন করে দেওয়া হচ্ছে। যে নম্বরগুলো ভাতাভোগীরা চিনেন না এমন ৬০টি নম্বর চিহ্নিত করে তাদের ব্যাপারে হেড অফিসে জানানো হয়েছে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT