দ্বিতীয় দফার লকডাউন শুরু দক্ষিনাঞ্চল মুখী জনস্রোত দ্বিতীয় দফার লকডাউন শুরু দক্ষিনাঞ্চল মুখী জনস্রোত - ajkerparibartan.com
দ্বিতীয় দফার লকডাউন শুরু দক্ষিনাঞ্চল মুখী জনস্রোত

3:00 pm , April 13, 2021

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ দ্বিতীয় দফার লকডাউন শুরুর আগের দিন সমগ্র দক্ষিণাঞ্চল জুড়ে ঘরে ফেরা মানুষের মধ্যে ছিল যথেষ্ট উৎকন্ঠা আর উদ্বেগ। প্রায় সবাই কর্মস্থল তাগ করেছেন নুন্যতম স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষা করে বিভিন্ন অবৈধ যানবাহনে। রাজধানীর সাথে বরিশাল সহ দক্ষিণাঞ্চলের সরকারী-বেসরকারী বাস ও লঞ্চ-স্টিমার সহ সব ধরনের আকাশ পরিবহন বন্ধ থাকায় চরম ঝুকি নিয়েই গত কয়েকদিন ধরে মানুষ কর্মস্থল থেকে ঘরে ফিরছেন। বিশেষ করে ঢাকা থেকে সংক্ষিপ্ত সড়ক পথের মাওয়া হয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চলাচল করেছেন। পটুয়াখালী ও বরগুনা থেকে বরিশাল হয়ে গত কয়েকদিন ধরে ছোট-বড় থ্রী-হুইলারে অগনিত নারী-পুরুষ ও শিশু মাওয়া গেছে। সেখানে বিভিন্ন উপায়ে পদ্মা পাড়ি দিয়ে ঢাকায়। অনরূপভাবেই ঢাকা থেকেও বিপুল সংখ্যক মানুষ বরিশাল হয়ে দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় পৌছেছে। এমনিক বিপুল সংখ্যক অবৈধ মাইক্রোবাসও ধারন ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে মাওয়া থেকে বরিশালে যাত্রী পরিবহন করেছে। আবার মাওয়া থেকেও প্রতিদিন বিপুল সংখ্যক অবৈধ যনবাহনে বরিশাল হয়ে পটুয়াখালী, বরগুনা, ভোলা ও ঝালকাঠী জেলার বিভিন্ন গন্তব্যে বিপুল সংখ্যক মানুষ যাতায়াত করেছে। করোনার লকডাউনে দক্ষিণাঞ্চলের যেসব মহাসড়কে এসব অবৈধ যানবাহনে যাত্রী পরিবহন করেছে, তা দেখভালের জন্য দুটি হাইওয়ে পুলিশ থানা ছাড়াও বেশ কয়েকটি জেলা পুলিশের থানা এবং মহানগর পুলিশের বিশাল ট্রাফিক বিভাগ থাকলেও বিষয়টি নিয়ে তাদের তেমন কোন তৎপরতা লক্ষ করা যায়নি। এখন সবাই অপেক্ষা করছেন দ্বিতীয় দফায় যে কঠোর লক ডাউনের কথা বলা হচ্ছে তা দেখা নিয়ে। তবে বুধবার থেকে দ্বিতীয় দফা লকডাউন পালনে সরকার যে কঠোর অবস্থা নেবে সে ব্যাপারে দক্ষিণাঞ্চলের বেশীরভাগ মানুষ মোটামুটি নিশ্চিত হয়ে গেছেন। একারনেই গত কয়েকদিন ধরে বরিশাল মহানগরী সহ দক্ষিণাঞ্চলের হাট-বাজার সহ সব ধরনের দোকানপাটেই ভীড় ছিল লক্ষনীয় মাত্রায় বেশী। বানিজ্যিক ব্যাংকগুলো থেকে টাকা তোলার জন্যও ছিল লম্বা লাইন। এমনকি এঅঞ্চলের সবগুলো এটিএম বুথ ও ফাষ্ট ট্রাকেও গ্রাহকদের ভীড় ছিল স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে কয়েকগুন বেশী। এটিএম বুথে নগদ টাকার যোগান অব্যাহত রাখতে ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। সে করনে প্রায় সব বানিজ্যিক ব্যাংকের কর্মকর্তাগন লকডাউনের ছুটিতেও কর্মস্থল ত্যাগ করতে পারছেন না। তবে বিপুল সংখ্যক বুথ ও ফাষ্ট ট্র্যাকের দায়িত্বে থাকা দেশের অন্যতম বৃহৎ একটি বেসরকারী বানিজ্যিক ব্যাংকের এক নির্বাহী জানিয়েছেন, ভল্টে টাকা থাকা পর্যন্ত তারা যোগান দিলেও পরে কি হবে তা বলতে পারছেন না। কারণ বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে টাকা পাবার কোন সুযোগ না থাকায় নিজস্ব সীমিত অর্থে খুব বেশীদিন বুথগুলো সচল রাখা সম্ভব নাও হতে পারে বলে জানিয়েছেন ঐ কর্মকর্তা।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT