বরিশালে গ্রাহকের টাকা দিচ্ছে না সন্ধানী বীমা কোম্পানি বরিশালে গ্রাহকের টাকা দিচ্ছে না সন্ধানী বীমা কোম্পানি - ajkerparibartan.com
বরিশালে গ্রাহকের টাকা দিচ্ছে না সন্ধানী বীমা কোম্পানি

3:38 pm , April 11, 2021

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ পলিসির মেয়াদ শেষ হলেও গ্রাহকের টাকা পরিশোধ করছে না বরিশালের সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স বীমা কোম্পানি। সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি কয়েক বছর এ কাজ করছে। এমনটাই অভিযোগ করেছেন ওই কোম্পানীর গ্রাহক ও সিএন্ডবি রোড এলাকার বাসিন্দা নাসির মল্লিক। নাসিরের পলিসি নম্বর ০০০০০০০১১৮১৭০৮৪। নাসির অসহায় এক গরীব। ১৯ হাজার টাকার দাবিতে ওই গ্রাহক আদালতে মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন। ২০১৪ সালে জমানো টাকা ফিরে পেতে প্রতিদিনই নাসির রুপাতলী ও সিএন্ডবি রোড শাখায় ঘুরছেন। জানতে চাইলে সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স বীমা কোম্পানি নথুল্লাবাদ শাখার ইনচার্জ মোঃ ছবির হোসেন পরিবর্তনকে বলেন, নাসির পলিসি ভাঙার আবেদন করেছেন। তিনি টাকা ফেরত পাবেন। তবে এখান থেকে নয়, রুপতালী শাখা থেকে নাসির টাকা ফেরত পাবেন। এদিকে অভিযোগ রয়েছে, কোম্পানি টাকা না দিয়ে বিভিন্ন ভাবে গ্রাহককে হয়রানি করছে। বিষয়টি নিয়ে গ্রাহকরা উদ্বিগ্ন। কারণ গ্রামের গরিব মানুষ খুব কষ্ট করে টাকা জমা দিয়েছে। তাছাড়া মেয়াদ শেষ হলেও কোম্পানিগুলো তাদের টাকা দিচ্ছে না। ওই কোম্পানীর গ্রাহক নাসির বলেন, ইতিমধ্যে আমি কোম্পানির সঙ্গে কথা বলেছি। আর টাকা পরিশোধের সময় অতিবাহিত হলেও টালবাহানা করছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে টাকা না দিলে বাধ্য হয়েই আইনী পদক্ষেপ নিতে হবে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওই কোম্পানির বিরুদ্ধে শতাধিক গ্রাহকের পলিসির টাকা পরিশোধ না করার অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়াও প্রত্যন্ত অঞ্চলের সন্ধানী শাখার তথ্য নেই,সে সংখ্যা হিসাব করলে তা সহ¯্রাধিক ছাড়িয়ে যাবে। যেসব কোম্পানি গ্রাহকের দাবি পরিশোধ করছে না, এর মধ্যে বরিশালে প্রথম অবস্থানে সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স। পলিসির মেয়াদ শেষ হলেও বছরের পর বছর তারা গ্রাহকের টাকা পরিশোধ করছে না। সরেজমিনে দেখা গেছে, পলিসির টাকা ফেরত পাওয়ার জন্য প্রতিদিনই সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর কর্মকর্তাদের রুমের সামনে গ্রাহকের লাইন। দীর্ঘদিন কোম্পানির কাছে ধরনা দিয়ে শেষ পর্যন্ত আসছেন সংবাদকর্মীদের কাছে। হঠাৎ করে এই বিমা কোম্পানীর অফিসে কেউ গেলে ভিড় দেখে মনে হবে এখানে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের সাহায্য বিতরণ হচ্ছে। কর্মকর্তাদের সামনে গ্রাহকরা কান্নায় ভেঙে পড়ছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রুপাতলী শাখার ইনচার্জ পরিবর্তনকে বলেন, টাকা পরিশোধের বিষয়টি চলমান প্রক্রিয়া। আশা করছি, গ্রাহকের টাকা পরিশোধ হয়ে যাবে। নিয়ম অনুসারে একজন গ্রাহক জীবন বীমায় কিস্তিতে টাকা জমা রাখে। এই কিস্তি মাসিক, তিন মাস অথবা ছয় মাসের হতে পারে। এসব পলিসির মেয়াদ ৫ থেকে ১৮ বছর পর্যন্ত। জীবনের আর্থিক নিরাপত্তার জন্য এই দীর্ঘ সময় তারা স্বল্প আয় থেকে একটু একটু করে টাকা জমা রাখে।বীমা আইন অনুসারে পলিসির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর সর্বোচ্চ ৯০ দিনের মধ্যে প্রতিশ্রুত টাকা দিতে হয়। আর ৯০ দিনের বেশি হলে বাকি দিনগুলোর সুদসহ টাকা পরিশোধ করতে হয়। কিন্তু কোম্পানিগুলো টাকা পরিশোধ না করে গ্রাহককে বছরের পর বছর হয়রানি করছে। এরা পলিসির টাকা আত্মসাৎ করেছে। সূত্র বলছে, বরিশালের পুরো সন্ধানী বীমা খাতেই বিশৃঙ্খলা রয়েছে। গ্রাহকের জমা টাকা তাদেরকে ফেরত দিতে হবে, এই হিসাব সন্ধানী কোম্পানির নেই।

এই বিভাগের আরও খবর

বসুন্ধরা বিটুমিন

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT