গণপূর্তের হিসাবরক্ষকের কাছে জিম্মি ঠিকাদাররা গণপূর্তের হিসাবরক্ষকের কাছে জিম্মি ঠিকাদাররা - ajkerparibartan.com
গণপূর্তের হিসাবরক্ষকের কাছে জিম্মি ঠিকাদাররা

3:08 pm , March 30, 2021

 

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ গণপূর্তের সহকারী হিসাব রক্ষক আবুল হাসান রুপকের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন সাধারণ ঠিকাদাররা। তার যন্ত্রনায় রীতিমত অধিকাংশ ঠিকাদাররা এখন অতিষ্ঠ। কিন্তু বিল আটকে দেয়ার ভয়ে কেউ তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পায়না। ঠিকাদারদের কাছ থেকে পার্সেনটেজ নিয়ে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন আবুল হাসান। একজন হিসাব রক্ষক হয়েও তিনি চলেন সব সময় প্রাইভেট কারে। গাড়ী, বাড়ী কোন কিছুরই অভাব নেই তার। একাধিক ঠিকাদাররা অভিযোগ করে বলেন, ‘কাজের বিল ছাড়াতে নির্বাহী প্রকৌশলীকে ৩% টাকা দিতে হয়। নির্বাহী প্রকৌশলী ওই টাকা সরাসরি নেননা। ওই টাকা রুপকের মাধ্যমে নিয়ে থাকেন তিনি। নির্বাহী প্রকৌশলীর আস্থাভাজন হওয়ার জন্য রুপক ঠিকাদারদের কাছ থেকে আরও ১% বেশি টাকা আদায় করেন। ফলে কাজের বিল পেতে এখন নির্বাহী প্রকৌশলীকে ৪% ঘুষ দিতে হয়। এছাড়া আলাদাভাবে বিল ছাড়ানোর সময় সহকারী হিসাব রক্ষক আবুল হাসান রুপককে প্রতি লাখে ১৫শ টাকা করে দিতে হবে। তা না হলে বিল নিয়ে নানা টালবাহানা শুরু করেন। শুধু তাই নয় চাকরীর পাশাপাশি রুপক ঠিকাদারী কাজও করে থাকেন। অন্য এক ব্যক্তির লাইন্সেসে রুপক প্রতি বছর কোটি কোটি টাকার কাজ করছেন। বিষয়টি নির্বাহী প্রকৌশলীও জানেন। নির্বাহী প্রকৌশলীকে ম্যানেজ করে সবকিছু করছেন রুপক। একাধিক ঠিকাদার অভিযোগ করে বলেন, রুপকের বাসা এই নগরীতে। সেই প্রভাব খাটিয়ে যখন যে নির্বাহী প্রকৌশলীর দায়িত্ব নেন তাকেই কব্জা করে ফেলেন রুপক। স্থানীয় প্রভাব থাকার কারণে অফিসের সকল কর্মকর্তারাও তাকে ভয় পায়। খোদ নির্বাহী প্রকৌশলী জেরাল্ড অলিবার গুদাও চলেন আবুল হাসান রুপকের কথায়। রুপক যেভাবে বলেন সেভাবেই চলেন নির্বাহী প্রকৌশলী। রুপকের বেশ কয়েকজন পার্টনার রয়েছেন। তাদের মাধ্যমে ঠিকাদারী কাজ করেন রুপক। খোঁজ নিয়ে জানাগেছে আবুল হাসান রুপকের ছেলে-মেয়ে ঢাকায় পড়াশুনা করে। সেই সুবাধে ঢাকায়ও তার বাসা রয়েছে। সন্তানদের লেখাপড়া ও ঢাকায় বাসা ভাড়া বাবদও লাখ টাকার উপরে খরচ রয়েছে। এরপর রয়েছে বরিশালে বাসা। সবমিলিয়ে লাখ লাখ টাকা খরচ রয়েছে আবুল হাসান রুপকের। একজন সহকারী হিসাব রক্ষক হয়েও তিনি চলেন ভিআইপি কায়দায়। জর্ডনরোডে রোডে তার রয়েছে ৫ তলা ভবন। এর সবই করেছেন পার্সেনটেজ বানিজ্য করে। প্রতি বছর রুপক কোটি কোটি টাকার ঠিকাদারী কাজ করে বলে জানিয়েছেন সাধারণ ঠিকাদাররা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ঠিকাদার জানান, আবুল হাসান রুপক এতটাই প্রভাবশালী যে তাকে কখনোই বরিশালের বাইরে বদলি করা হয়না। বছরের পর বছর ধরে তিনি একই কর্মস্থলে আছেন। এর আগে তিনি ছিলেন মেডিকেল উপ-বিভাগে। গত ৫ বছর ধরে আছেন নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ে। তাকে কখনোই অন্য কোন জেলায় বদলি করা হয়না। একই কর্মস্থলে দীর্ঘ বছর চাকরী করার সুবাদে তার প্রভাব দিন দিন বেড়েই চলছে।

এই বিভাগের আরও খবর

বসুন্ধরা বিটুমিন

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT