মুলাদী উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে চাঁদা দাবি ও মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ ব্যবসায়ীর মুলাদী উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে চাঁদা দাবি ও মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ ব্যবসায়ীর - ajkerparibartan.com
মুলাদী উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে চাঁদা দাবি ও মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ ব্যবসায়ীর

2:56 pm , December 10, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ মুলাদী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েলের বিরুদ্ধে চাঁদার দাবিতে এক ব্যবসায়ীকে আটকে রেখে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয়, দাবিকৃত ৫০ হাজার টাকা না দেয়ায় ওই ব্যবসায়ীর মোটরসাইকেল কেড়ে নেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় বুধবার (০৯ ডিসেম্বর ) সকালে ভুক্তোভোগী ব্যবসায়ী মুলাদী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযুক্ত জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল মুলাদী পৌর শহরের তেরচর এলাকার মো. শাহজাহান বেপরীর ছেলে ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি। পাশাপাশি তিনি জ¦ালানি তেলের ব্যবসায়ী। তেরচর এলাকার ‘মামুন সিনেমা হলের’ বিপরীতে তার জ¦ালানি তেলের দোকান রয়েছে। অন্যদিকে ভুক্তোভোগী ব্যবসায়ীর নাম রাহুল চৌধুরী। তিনি তেরচর এলাকার মৃত সুনিল চৌধুরীর ছেলে। রাহুল চৌধুরীর তেরচর বন্দর বাজারে কাঠের দোকান রয়েছে।
ভুক্তোভোগী ব্যবসায়ী রাহুল চৌধুরী বলেন, তেরচর বন্দর বাজারে আমার কাঠের দোকান রয়েছে। ৮ বছর আগে বাবা মারা যাওয়ার পর থেকে ওই দোকান ও ব্যবসা পরিচালনা করে আসছি। আমার দোকান সংলগ্ন একটি চায়ের দোকানে ছাত্রলীগ সভাপতি জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল নেতাকর্মীদের নিয়ে মাঝে মধ্যে চা পান করতেন। ঘন্টার পর ঘন্টা তারা সেখানে আড্ডাও দিতেন। গত ২৬ অক্টোবর রাত ৮ টার দিকে ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল আমাকে বাসার সামনে থেকে ডেকে নিয়ে যান। এসময় তার সঙ্গে কয়েকজন যুবক ছিলেন। তারা আমাকে মোটরসাইকেল সহ তেরচর এলাকার সিনেমা হলের বিপরীতে জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল তার জ¦ালানি তেলের দোকানে সামনে নিয়ে যান। এরপর দোকানের ওপর দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে নিয়ে আমাকে আটকে রাখেন। ওই কক্ষটি জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েলের ক্লাবঘর নামে পরিচিত। কিছুক্ষন পর সেখানে জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল ও তার অনুসারী অভি প্রবেশ করেন। এসময় জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল আমাকে বলেন মুলাদীতে ব্যবসা করতে হলে তাকে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দিতে হবে। এসময় আমি বলি, ‘করোনার কারনে ব্যবসা মন্দা যাচ্ছে, এত টাকা আমার কাছে নেই। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে আমাকে ছেড়ে দিতে অনুরোধ করি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ক্লাব ঘরে থাকা হকিস্টিক ও লাঠি দিয়ে জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল ও তার অনুসারী অভি আমাকে বেদম মারধর করেন। একপর্যায়ে তাদের মারধরে জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। পানির ছিটা দেয়ার পর জ্ঞান ফিরে আসলে তারা আমাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর করে ৩০০ টাকার নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেন। এরপর আমার দুই লাখ ১০ হাজার টাকা মূল্যের মোটরসাইকেলটি জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল রেখে দেন। পাশাপাশি আমার সঙ্গে থাকা মোটরসাইকেলের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তারা কেড়ে নেন। এসব ঘটনা কাউকে জানালে হত্যা করা হবে বলে জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল হুমকি দিয়ে আমাকে ছেড়ে দেন। এরপর স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নেই। বেশ কিছ ুদিন অসুস্থ ছিলাম।’
ভুক্তোভোগী ব্যবসায়ী রাহুল চৌধুরী আরো বলেন, জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল এলাকায় প্রভাবশালী। জুয়েল ও তার বাহিনী এমন কোনো কাজ নেই করতে পারেন না। ওই ঘটনার পর থেকে টাকা চেয়ে আমাকে প্রায় দিনই হুমকি দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। সম্প্রতি বিষয়টি আমার আত্মীয়-স্বজন ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের জানাই। তারা আইনের আশ্রয় নেয়ার পরামর্শ দেন। এর প্রেক্ষিতে সকালে থানায় জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল ও তার অনুসারী অভির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।এ বিষয়ে মুলাদী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েলের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি চাদা দাবির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ষড়যন্ত্রমূলকভাবে তার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ আনা হয়েছে। তিনি নগদ টাকা দিয়ে রাহুল চৌধুরীর কাছ থেকে মোটরসাইকেলটি ক্রয় করেছেন। মারধরের কোন ঘটনা ঘটেনি।
মুলাদী থানা পুলিশের ওসি ফয়েজ উদ্দিন জানান, তেরচর বন্দর বাজারের রাহুল চৌধুরী নামে এক কাঠ ব্যবসায়ী একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েল ও অভি নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে চাঁদা দাবির অভিযোগ আনা হয়েছে। দুপুরে অভিযোগটি হাতে পাওয়ার পর তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুজিবুর রহমানকে।মুলাদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুজিবুর রহমান জানান, চাঁদাবাজির অভিযোগটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। রাতে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আহম্মেদ জুয়েলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় ডাকা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT