মামলা প্রত্যাহারের দাবী চরমোনাই পীরের মামলা প্রত্যাহারের দাবী চরমোনাই পীরের - ajkerparibartan.com
মামলা প্রত্যাহারের দাবী চরমোনাই পীরের

2:30 pm , December 8, 2020

বিডিনিউজ ॥ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ তাদের সিনিয়র নায়েবে আমির সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করিম, হেফাজত ইসলামের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী ও যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যবিরোধী বক্তব্য দেওয়ায় রাষ্ট্রদ্রোহের মামলার পরদিন মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে এসে সংগঠনটির আমির সৈয়দ মো. রেজাউল করিম তার লিখিত বক্তব্যে সরকারের ভূমিকারও সমালোচনা করেন। পুরানা পল্টনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “মূর্তি বা ভাস্কর্য নিয়ে বিরাজমান পরিস্থিতিকে আমরা দেশ বিরোধী অপশক্তি চক্রান্ত আকারে দেখছি। আমরা মনে করি, ওরা বাংলাদেশের মানুষের ঐক্য বিনষ্ট করে ভিনদেশী এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চায়। সামাজিক ও ধর্মীয় অস্থিতিশীলতা তৈরি করতে চায়।” বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধিতা করে বক্তব্য দেওয়ায় হেফাজতে ইসলামের নেতা জুনাইদ বাবুনগরী, মামুনুল হক এবং সৈয়দ ফয়জুল করিমের বিরুদ্ধে সোমবার রাষ্ট্রদ্রোহের দুই মামলা হয়েছে।
এর মধ্যে একটি মামলা করেছেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। দ-বিধির ১২০ (খ) (১)/১২৪ (ক)/ ৫০৫ (ক) ধারায় করা এ মামলায় হেফাজতে ইসলামের আমির জুনাইদ বাবুনগরী, খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মামুনুল হক এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমির সৈয়দ ফয়জুল করিমকে আসামি করা হয়েছে। দ্বিতীয় মামলাটি করেছেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট মশিউর মালেক। দ-বিধির ১২০ (খ)/১৫৩/১২৪ (ক)/ ধারার এ মামলায় আসামি করা হয়েছে কেবল মামুনুল হককে, যিনি হেফাজতে ইসলামের নতুন কমিটিতে যুগ্ম মহাসচিবের দায়িত্বে আছেন। আদালত মামলা দুটি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। ভাস্কর্য বিষয়ে সরকারের অবস্থানে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হতাশ জানিয়ে রেজাউল করিম বলেন, “সাধারণ মানুষের নিয়মতান্ত্রিক একটি দাবিকে কেন্দ্র করে যখন কুচক্রী মহল দেশে ওলামাদের বিরুদ্ধে উগ্রতা ছড়াচ্ছে তখন তারা (সরকার) তা দমন না করে আরও উৎসাহ দিচ্ছে। “ইসলামী আন্দোলন মনে করে, তাদের এই ভূমিকা বরং বঙ্গবন্ধুকে ছোট করছে। তার সম্মানকে মানুষের চেতনার সাথে সাংঘর্ষিক অবস্থানে ঠেলে দিয়েছে।” এর কোনো দরকার ছিল না জানিয়ে তিনি বলেন, “জনগণ মনে করছে, সরকার তাদের ব্যর্থতা দুর্নীতি ও অনিয়ম আড়াল করতেই এ অপকৌশলের আশ্রয় নিয়েছে।” তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে রেজাউল বলেন, “দেশের ওলামা সমাজকে এবং সম্মানিত ধর্মীয় ব্যক্তিদেরকে অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করে কটূক্তি করে, ব্যঙ্গ কার্টুন প্রকাশ করে, অপমান অপদস্ত করে, প্রাণনাশের হুমকি দেয়, মারামারি ও মল্লযুদ্ধের আহ্বান জানায়, তাদের বিচারের আওতায় এনে শাস্তি দিতে হবে। “আশা করছি আমাদের দাবি মেনে নিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির হাত থেকে রক্ষা করার উদ্যোগ গ্রহণ করবে। সরকার যদি ষড়যন্ত্রকারীদের নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নিজেদের নিরাপত্তা, মর্যাদা, মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও অধিকার রক্ষার প্রয়োজনেই দেশের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বৃহত্তর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে।”

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT