দেশে ৩০ শতাংশ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে হৃদরোগে দেশে ৩০ শতাংশ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে হৃদরোগে - ajkerparibartan.com
দেশে ৩০ শতাংশ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে হৃদরোগে

3:03 pm , November 24, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বিশ্বে বর্তমানে অসংক্রামক রোগ বড় ধরণের একটি বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও এর বড় ধরণের প্রভাব পড়ছে। এক হিসেবেদেখা গেছে প্রতিবছর বাংলাদেশে ৫ লাখ ৭৩ হাজার মানুষ অসংক্রামক রোগে মৃত্যু বরণ করেছেন যা মোট মৃত্যুর শতকরা ৬৭ শতাংশ। অর্থ্যাৎ শতকরা ৬৭ জন মানুষের মৃত্যু হচ্ছে অসংক্রামক রোগে। এই অসংক্রামক রোগের মধ্যে হৃদরোগের কারণে বাংলাদেশে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে যা মোট মৃত্যুর ৩০ শতাংশ। আর এ সংক্রামক রোগের প্রধান কারণ হচ্ছে ট্রান্স ফ্যাট। অথচ শিল্পোৎপাদিত ট্রান্স ফ্যাটি এ্যাসিড এর ক্ষতিকর প্রভাব থেকে সুরক্ষার জন্য বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোন আইন বা নীতিমালা নেই। যা অত্যান্ত উদ্বেগজনক। গতকাল মঙ্গলবার বরিশালে আয়োজিত ‘খাদ্যে ট্রান্সফ্যাট, হৃদরোগ ঝুঁকি এবং করনীয়’ শীর্ষক এক কর্মশালায় এ তথ্য জানানো হয়েছে। বেলা ১১টায় নগরীর আর্য্যলক্ষ্মী ভবনের কীর্তনখোলা মিলনায়তনে বেসরকারী সংস্থা কনজুমার এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এবং প্রগতির জন্য জ্ঞান এর (প্রজ্ঞার) আয়োজনে কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন কনজুমান এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) আইন বিষয়ক সম্পাদক ফজলুল হক। কর্মশালায় ধারনা পত্র উপস্থাপন করেন ক্যাবের প্রজেক্ট ডিরেক্টর খন্দকার তৌফিক আল হোসাইনী। সভায় বক্তব্য রাখেন ক্যাবের বরিশালের সাধারণ সম্পাদক রনজিৎ দত্ত, সচেতন নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আলম, ক্যাবের সাংগঠনিক সম্পাদক শুভঙ্কর চক্রবর্তী, সাংবাদিক স্বপন খন্দকার, এ্যাড. আব্দুল হাই মাহবুব, ক্যাবের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন, চিকিৎসক এইচএম ইমরুল হাসান। ট্রান্সফ্যাটের বৈশিক অভিজ্ঞতা নিয়ে আলোচনা করেন প্রজ্ঞার প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর মাহমুদ আল ইসলাম শিহাব। তিনি জানান, ‘ গবেষনায় দেখা গেছে টান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রন করা না গেলে ২০৩০ সালের মধ্যে অসংক্রামক রোগজনিত অকাল মৃত্যু এক তৃতীংয়াশ কমিয়ে আনা সংক্রান্ত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (লক্ষ ৩.৪) অর্জন কার্যত অসম্ভব হয়ে পড়বে’। সভায় বক্তারা বলেন, ‘শুধু প্রকল্প এলেই বেসরকারী সংস্থাগুলো সক্রিয় হয়, সচেতনতা বাড়ে। এই অবস্থা থেকে আমাদের বেরিয়ে এসে চলমান প্রচারাভিযানে নামতে হবে। আর এই প্রচারাভিযান শুরু করতে হবে তৃনমূল পর্যায় থেকে। আজকে এ কর্মশালার শিক্ষা হলো ‘ট্রান্সফ্যাট ২% এর বেশি হলেই ঝুঁকি। এটাকে সামনে নিয়ে ব্যক্তি, সমাজ, রাষ্ট্র সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। আলোচকরা ট্রান্সফ্যাটকে খাদ্য বিধির মধ্যে নিয়ে আসার জন্য সরকারের কাছে আহবান জানান। কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন আভাসের নির্বাহী পরিচালক রহিমা সুলতানা কাজল, সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদ, গোপাল সরকার, আজাদ আলাউদ্দীন, জসিম জিয়া, সাঈদ পান্থ, মনবীর আলম খান, ক্যাব সদস্য সাধনা বেপারী, আইনজীবী সেলিনা পারভীন, ক্যাব সদস্য তুহিন চক্রবর্তী, রেহানা ইয়াসমিন প্রমুখ।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT