আমতলীতে অপবাদ দিয়ে চিকিৎসককে বদলীর অভিযোগ! আমতলীতে অপবাদ দিয়ে চিকিৎসককে বদলীর অভিযোগ! - ajkerparibartan.com
আমতলীতে অপবাদ দিয়ে চিকিৎসককে বদলীর অভিযোগ!

3:22 pm , November 17, 2020

আমতলী প্রতিবেদক ॥ আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য প্রশাসক ডাঃ শংকর প্রসাদ তার প্রভাব খাটিয়ে ও একটি ঔষধ কোম্পাণীর স্থানীয় প্রতিনিধি তার ভাগ্নে আশিষ চন্দ্রকে দিয়ে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে “পুরুষাঙ্গ কেটে মুসলমান বানিয়ে দেয়া’র” অপবাদ রটিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ সুমনকে অন্যাত্র বদলী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল (সোমবার) ডা: সুমনকে ভোলা সদর হাসপাতালে বদলী করা হয়েছে বলে স্বাস্থ্য বিভাগ সুত্রে জানা গেছে । অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মককর্তা ডাঃ শংকর প্রসাদ অধিকারীর ভাগ্নে আশিষ কুমার ‘বেনহাম’ ফার্মাসিউটিক্যালস নামের একটি ঔষধ কোম্পানীর স্থাণীয় প্রতিনিধি। গত ৭ নভেম্বর (শনিবার) সকাল ১১টার দিকে ওই ঔষধ কোম্পানির প্রতিনিধি নিয়ম ভঙ্গ করে জরুরী বিভাগে বসে গল্প করছিলেন। যদিও নিয়মানুযায়ী সকাল ৯.৪৫ এর পরে কোন ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধির হাসপাতালে অবস্থান করার বিষয়ে বিধিনিষেধ থাকায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ সুমন তাকে জরুরী বিভাগ ত্যাগ করতে বলেন। এ ঘটনার পরে ওই দিন ১২টার দিকে আশিষ কুমার তাদের ফার্মাসিউটিক্যাল এসোসিয়েশন (ফারিয়া) সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন শিকদারকে নিয়ে আবার জরুরী বিভাগে প্রবেশ করে সরাসরি কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ সুমনের কাছে আশিষকে কেন বের করে দেয়া হয়েছে তার কারন জানতে চান? জবাবে তিনি অফিসিয়াল নিয়মটি বুঝিয়ে তাদের দু’জনকেই ইমার্জেন্সি রুম ত্যাগ করার অনুরোধ করেন। এরপর ওইদিন বিকেলে ডাঃ মোঃ সুমনের বিরুদ্ধে নানান ধরনের উস্কানিমূলক ও মিথ্যা বানোয়াট তথ্য ফেইসবুকে ছড়ানো হয়। তিনি নাকি ওই ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধি আশীষ কুমারকে “পুরুষাঙ্গ কেটে মুসলমান বানিয়ে দেয়া’র” কথা বলেছেন। এনিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে (ফেইসবুক) “মিঠুন এবং ফারিয়া আমতলী” নামে দুটি পেইজে মিথ্যা ও গুজব রটিয়ে বিভিন্ন ধরনের উস্কানিমূলক স্ট্যাটাস ও কমেন্ট দিয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টা করা হয়। মুহুর্তেই ওই মিথ্যা গুজবটি আমতলীতে ভাইরাল হয়ে যায়? বিষয়টি নিয়ে গত ৯ নভেম্বর (সোমবার) উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার অফিস কক্ষে জরুরী সভা ডাকা হয়। সেখানে সকলের উপস্থিতিতে ডাঃ মোঃ সুমনের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা প্রমানিত হওয়ায় ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধি ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার ভাগ্নে আশীষ কুমার উপস্থিত সকলের সামনে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। ভাবিষৎতে তিনি আর এরকম কোন গুজব ছড়াবেন না মর্মে অঙ্গীকার করেন। বিষয়টি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ শংকর প্রসাদ অধিকারী ও তার ভাগ্নে আশিষ কুমার মেনে নিতে পারেননি। ভাগ্নের অপমানের বদলা নিতে তিনি গোপনে তার অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ সুমনকে অন্যাত্র বদলী করার পায়তারা করেন। তারই ধারাবাহিকতায় তিনি অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে ডাঃ মোঃ সুমনের বিরুদ্ধে ঢাকা ডিজি (স্বাস্থ্য) ও বরিশাল বিভাগের ডিডি (স্বাস্থ্য) কার্যালয়ে লিখিতভাবে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এ অভিযোগের পরিপেক্ষিতে গতকাল সোমবার ডাঃ মোঃ সুমনকে ভোলা সদর হাসপাতালে বদলি (সংযুক্তি) করান। অভিযোগকারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ সুমন বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার ভাগ্নেকে দিয়ে আমার বিরুদ্ধে ফেইসবুকে মিথ্যা তথ্য ও গুবজ রটিয়ে আমাকে আমতলী থেকে ভোলায় বদলী করিয়েছেন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ শংকর প্রসাদ অধিকারী বলেন, আমার ভাগ্নে ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধি আশিষ কুমারের সাথে ঘটনার বিষয় নিয়ে আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সম্পূর্ন মিথ্যা। হাসপাতালের অফিসিয়াল কোন নির্দেশনা না মানায় আমি নিজেই ডাঃ মোঃ সুমনের বিরুদ্ধে ঢাকা ডিজি (স্বাস্থ্য) ও বরিশাল বিভাগের ডিডি (স্বাস্থ্য) অফিসে অভিযোগ দায়ের করেছি। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ডাঃ মোঃ সুমনকে অন্যাত্র বদলী করা হয়েছে। বরগুনা জেলা সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ আবদুস সালাম বলেন, অন্যান্য বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে ডাঃ মোঃ সুমনকে আমতলী থেকে ভোলায় বদলী করা হয়েছে মর্মে একটি আদেশের কপি আজ হাতে পেয়েছি। বরিশাল বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডাঃ বাসুদেব কুমার সাহা মুঠোফোনে বলেন, ঢাকা ডিজি (স্বাস্থ্য) অফিস থেকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডাঃ মোঃ সুমনকে ভোলায় বদলী করা হয়েছে। উল্লেখ্য উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার ভাগ্নে ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধি আশীষ কুমার বহুদিন যাবৎ বেআইনি ভাবে ডক্টরস কোয়ার্টার এর পুরো একটি ফ্ল্যাট দখল করে থাকছেন। এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে চিকিৎসকরা অভিযোগ প্রদান করলেও অদ্যবদি তিনি এ বিষয়ে কার্যকরী কোন ব্যবস্থা নেয়নি।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT