চরফ্যাসনে জন্ম নিবন্ধন নিয়ে চলছে ব্যবসা চরফ্যাসনে জন্ম নিবন্ধন নিয়ে চলছে ব্যবসা - ajkerparibartan.com
চরফ্যাসনে জন্ম নিবন্ধন নিয়ে চলছে ব্যবসা

2:52 pm , November 13, 2020

চরফ্যাসন প্রতিবেদক ॥ চরফ্যাসনে জম্ম নিবন্ধন সনদ নিয়ে রমরমা বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে নীলকমল ইউপি সচিব মেহেদী হাসানের বিরুদ্ধে। ৫শ’ টাকায় মিলছে না এই সনদ। অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েদের বিয়ের ক্ষেত্রে জম্ম নিবন্ধন সনদ নিশ্চিত করতে কয়েক হাজার টাকা পর্যন্ত লেনদেন হয়ে থাকে বলে অভিযোগ আছে। প্রকাশ্যে ইউনিয়ন পরিষদ সচিব মেহেদী হাসান ও গ্রামপুলিশরা প্রতিনিয়ত জম্ম নিবন্ধন সনদের বিপরীতে সাধারন মানুষের কাছ থেকে ৫শ’ থেকে ১হাজার টাকা হতিয়ে নিচ্ছেন। জম্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের সাথে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, ২০১৭ সনে জম্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের ফি ৭৫ ভাগ কমিয়ে পুনঃনির্ধারণ করা হয়েছে। যেখানে জম্মের ৪৫ দিন পর্যন্ত নিবন্ধন ফি মওকুপ করা হয়েছে। ৪৫দিন থেকে ৫ বছর পর্যন্ত জম্ম নিবন্ধন ফি ২৫ টাকা , ৫ বছরের পর ১০ বছর পর্যন্ত জম্ম নিবন্ধন ফি ৫০ টাকা এবং ১০ বছরের পর নিবন্ধনের কোন সুযোগ রাখা হয়নি। তবে সংশোধন ফি একই ভাবে কমানো হলেও এখানে নিবন্ধন ফির চেয়ে পরিস্থিতি ও প্রয়োজন অনুসারে সংশোধন ফি ১/২ হাজার টাকা পর্যন্ত নেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ আছে। বিশেষ করে অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েদের বিয়ের ক্ষেত্রে সংশোধিত নিবন্ধন ইস্যুতে বেশী পরিমান অর্থ লেনদেন হয়ে থাকে বলে জানাগেছে। এভাবে সাধারন মানুষের কাছ থেকে বিপুল পরিমান টাকা হাতিয়ে নিয়ে পরিষদ সচিব সংশ্লিষ্ট গ্রামপুলিশ মিলে বাগিয়ে নিচ্ছেন।
নীলকমল ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ১৬ বছরের কিশোর আবদুল্লাহ ফাইক প্রান্ত’র জম্ম নিবন্ধন সনদের জন্য ইউপি সচিব মেহেদী হাসান ১ হাজার টাকা দাবী করেন। পরে ৫শ’ টাকা দিয়ে জম্ম নিবন্ধন সনদ গ্রহন করেছেন তার চাচা আক্তারুজ্জামান সুজন।
৭ম শ্রেণি পড়–য়া ছেলে হাসানের জম্ম নিবন্ধন পেতে আগ্রহী অভিভাবক কবির হোসেনকে গ্রামপুলিশ মো. ফিরোজ আলমের সাথে ফির বিষয়টি আলোচনার কথা বলেন সচিব মেহেদি হাসান। গ্রামপুলিশ ফিরোজ আলম এই শিশুর জম্ম নিবন্ধন সনদ দেয়ার জন্য তার বাবা কবির হোসেনের কাছে ১ হাজার টাকা দাবী করেন। এই টাকা দিতে অস্বীকার করায় শিশুর জম্ম নিবন্ধন আর করা হয়নি। পঞ্চম শ্রেণি পড়–য়া ছেলে ফাহিমের উপবৃত্তির হিসেবে খোলার জন্য প্রয়োজনীয় জম্ম নিবন্ধন সনদ ইস্যু করতে সচিব ১ হাজার টাকা দাবী করেন। নিরুপায় হয়ে দিনমুজুর ফাহিমের বাবা আলমগীর পুরো টাকা দিয়েই সনদ নিয়েছেন।
অভিযুক্ত সচিব মেহেদি হাসান জানান, তিনি ডিসেম্বরের নতুন ওই পরিষদে যোগদান করেন। আগে অতিরিক্ত দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব দিয়ে চেয়ারম্যান আলমগীর হাওলাদার সকল কাজ তার ইচ্ছে মতো করিয়েছেন। আমি এসব বিষয়ে প্রতিবাদ করে সমস্যায় পরেছি। জম্ম নিবন্ধন সনদ ইস্যুতে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের বিষয়টি সঠিক নয়।
এ প্রসঙ্গে নীলকল ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হাওলাদার বলেন, আমার ইউনিয়ন পরিষদে উদ্যেক্তাসহ জম্মনিবন্ধন ইস্যু ফি ১শ’৫০টাকা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে। এর বাহিরে সচিব কিছু অনিয়ম করে থাকলে তা আমার জানা নেই।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রুহুল আমিন জানান,উপযুক্ত তথ্য প্রামানাধি যাছাই করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT