ভোলায় ৬ মাসে করোনায় আক্রান্ত ৮২৪ জন ভোলায় ৬ মাসে করোনায় আক্রান্ত ৮২৪ জন - ajkerparibartan.com
ভোলায় ৬ মাসে করোনায় আক্রান্ত ৮২৪ জন

3:24 pm , November 9, 2020

মো. আফজাল হোসেন, ভোলা ॥ দ্বিতীয় পর্যায়ের করোনার ঢেউ লেগেছে সারাদেশের মত ভোলাতেও। গত ৪৮ঘন্টায় আরো ৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ১১১ টি পরীক্ষা থেকে ৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়াও করোনা আক্রান্ত হয়ে এক বৃদ্ধে মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনায় ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।
এক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, গত ৬ মাস ১০ দিনে এ পর্যন্ত জেলায় সর্বমোট করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৮২৪ জন। যাদের মধ্যে সুস্থ ৭৪৬ জন। বর্তমানে আক্রান্ত ৭০ জন এবং আইসোলেশনে আছে ৪জন। করোনা আক্রান্তদের মধ্যে বর্তমানে সদর উপজেলায় ৬২, দৌলতখানে ৩, বোরহানউদ্দিনে ১ ও লালমোহন উপজেলায় ৪ জন রয়েছে।
এছাড়াও গত ৬ মাসে জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৮ জনের। যাদের মধ্যে সদর উপজেলায় রয়েছে ৩ জন, দৌলতখানে ১, লালমোহনে ২ জন ও চরফ্যাশন উপজেলায় ২ জন। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় এ তথ্য জানিয়েছে।
সুত্র আরো জানায়, গত ৬ মাস ১০ দিনে জেলায় ৭ হাজার ২৮৫ টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। যার মধ্যে করোন সনাক্ত হয়েছে ৮২৪ জন। এদের মধ্যে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ্য হয়েছে ৭৪৬ জন। জেলায় মোট হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছিলো ৮ হাজার ৫৭১ জনকে।
এদিকে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে সবচেয়ে বেশী সদর উপজেলায়। এ উপজেলায় ৪৫৫ জনের মধ্যে সুস্থ্য হয়েছে ৩৯১ জন। এছাড়াও দৌলতখানে ৫৫জনের মধ্যে সুস্থ্য ৫১ জন, লালমোহনে ৭১ জনের মধ্যে সুস্থ্য ৬৫ জন,বোরহানউদ্দিনে ৯৯জনের মধ্যে সুস্থ্য ৯৮ জন, চরফ্যাশনে ৬৭জনের মধ্যে সুস্থ্য ৬৫, তজুমদ্দিনে ৪৫জন ও মনপুরায় ৩২জন আক্রান্ত হলেও সবাই সুস্থ্য। এছাড়াও সদরে করেনায় ৩জন, লালমোহন ২ জন ও চরফ্যাশন উপজেলায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।
ভোলার সিভিল সার্জন ডা: সৈয়দ রেজাউল ইসলাম জানান,বিগত সময়ের তুলনায় করোনা আক্রান্তের হার কিছুটা কম,তবে করোনা সংক্রমনরোধে স্বাস্থ্যবিভাগ প্রস্তুত রয়েছে। আমরা বেশী বেশী পরীক্ষা করাচ্ছি। মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি মাক্স ব্যবহার নিশ্চিতে কাজ করছে স্বাস্থ্যবিভাগ। এছাড়াও হাসপাতাল গুলোতে যাতে মাক্স ব্যবহার করে প্রবেশ করে সেদিকেও লক্ষ রাখা হয়েছে। করোনা সংক্রমনরোধ ও আক্রান্তদের চিকিৎসা ডাক্তার-নার্স প্রস্তুত রয়েছে বলেও জানান সিভিল সার্জন। তিনি আরো বলেন,আসলে প্রতিটি হাসপাতালে বলে দেয়া হয়েছে মুখে মাক্স না থাকলে তাকে টিকিট না দেয়ার জন্য। এখন নিয়মিত পরিক্ষাকরানো হচ্ছে।২৪ঘন্টায় রপোর্ট প্রদান করা হয়। অপর এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন,স্বাস্থ্য বিভাগের মান উন্নয়নের জন্য কাজ করবো। ডায়গনস্টিক ও ক্লিনিক গুলোর বিষয় নজরে নেয়া হচ্ছে। আজ চরফ্যাশনে ৪টিহাসপাতাল ভিজিট করেছি।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT