নিষেধাজ্ঞার ৪/৫ ঘন্টার মধ্যে বরফ দেয়া ইলিশে বোঝাই বরিশাল মোকাম নিষেধাজ্ঞার ৪/৫ ঘন্টার মধ্যে বরফ দেয়া ইলিশে বোঝাই বরিশাল মোকাম - ajkerparibartan.com
নিষেধাজ্ঞার ৪/৫ ঘন্টার মধ্যে বরফ দেয়া ইলিশে বোঝাই বরিশাল মোকাম

3:41 pm , November 5, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ২২দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে বুধবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে শুরু হয়েছে ইলিশ শিকার। কিন্তু মাত্র ৪/৫ ঘন্টার মধ্যে বরফ দেয়া ইলিশে ভরে গেছে বরিশাল ইলিশ মোকাম। শুধুমাত্র বরিশাল ইলিশ মোকামই নয় দক্ষিণের সব ইলিশ মোকামে ফিরেছে প্রাণচাঞ্চল্য। বৃহস্পতিবার সকালে বরিশাল নগরীর পোর্ট রোড ইলিশ মোকামে দেখা গেছে, টানা ২২ দিন নিম্প্রান এ মোকামটি ইলিশ ক্রয়-বিক্রয়ে সরগরম হয়ে উঠেছে। বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভোর ৭টা থেকে সেখানে ট্রলার ও নৌকাযোগে ইলিশ আমদানী শুরু হয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আরও ইলিশের আমদানী হবে জানিয়েছেন তারা। ২২ দিন পর ইলিশ বিক্রির প্রথম দিন ক্রেতাও ছিল পর্যাপ্ত। আড়তদার অ্যাসোশিয়েসনের সভাপতি অজিত দাস বেলা ১টায় জানান, তখন পর্যন্ত পোর্ট রোড মোকামে দেড় শতাধিক মন ইলিশের আমদানী হয়েছে। এলসি সাইজের (৬০০-৯০০ গ্রাম ওজন) পাইকারী মূল্য ছিল প্রতিকেজি ৭০০-৭৫০ টাকা। এককেজি সাইজের ইলিশ বিক্রি হয় ৯০০ টাকা কেজি দরে। খুচরা বিক্রেতারা আরও ১০০-২০০ টাকা বেশী দামে বিক্রি করেছেন। প্রবীন এ মৎস্য ব্যবসায়ী জানান, গতকাল মোকামে যে ইলিশের আমদানী হয়েছে তা বুধবার দিবাগত মধ্যরাতে নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার পর স্থানীয় নদ-নদীতে আহোরন করা হয়। সাগরের ইলিশের আমদানী হবে আরও ২-৩দিন পর। সরেজমিনে দেখা গেছে, বিক্রি হওয়া বেশীরভাগ ইলিশ সদ্য ডিম ছেড়েছে। যে কারনে চ্যাপ্টা ও লম্বা হয়ে গেছে। তবে পেটে ডিম থাকা ইলিশও ছিল। তবে অনেক মাছ দেখে বোঝা গেছে ওই মাছগুলো নিষেধাজ্ঞার মধ্যে আহোরন করে লুকিয়ে রাখা হয়েছিল। তবে এ ধরনের ইলিশের পরিমান ছিল কম। পাথরঘাটা প্রতিনিধি জানান, দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম এ ইলিশ মোকামে গতকাল আমদানী না থাকায় পাইকারী বিক্রি হয়নি। স্থানীয় নদ-নদীতে পাওয়া সীমিত সংখ্যক ইলিশ খুচরা বিক্রেতারা বিক্রি করেছেন। বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাসুম আকন জানান, বুধবার সন্ধার পর থেকে শত শত ট্রলার গভীর সাগরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে ইলিশ শিকারে। আগে যাওয়ার প্রতিযোগীতায় সবগুলো ট্রলারে দিনেই বরফসহ অন্যান্য সরঞ্জাম মজুদ করে প্রস্তুুত ছিল জেলেরা। মাসুম আকন বলেন, যে ট্রলার আগে গিয়ে সাগরে জাল পাততে পারবেন তারা বেশী ইলিশ পাবেন এমন প্রতিযোগীতা দেখা গেছে জেলেদের মধ্যে। ২২দিন ইলিশ নিধনে নিষেধাজ্ঞার মূল্যায়ন জানতে চাওয়া হলে চাঁদপুর ইলিশ গবেষনা কেন্দ্রের পরিচালক ড. আনিসুর রহমান বলেন, “আগামী ৯ অক্টোবর পর্যন্ত অভ্যন্তরীন নদ-নদীতে পর্যবেক্ষন করে ১০ অক্টোবর ইলিশের প্রজনন বৃদ্ধির হার মুল্যায়ন করা যাবে। তবে নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন সময়ের মধ্যে সাগরে নি¤œচাপের প্রভাবে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বেশী পরিমান ইলিশ নদ-নদীতে প্রবেশ করে ডিম ছাড়তে পেরেছে মনে করেন এ ইলিশ বিশেষজ্ঞ।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT