চরফ্যাসনে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশের শ্লীলতাহানীর মামলা গ্রহন চরফ্যাসনে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশের শ্লীলতাহানীর মামলা গ্রহন - ajkerparibartan.com
চরফ্যাসনে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশের শ্লীলতাহানীর মামলা গ্রহন

3:14 pm , November 3, 2020

 

চরফ্যাসন প্রতিবেদক ॥ চরফ্যাসনের দক্ষিণ আইচায় শিশু পুত্রকে জিম্মি করে গলা চেপে হত্যার হুমকি দিয়ে মাকে ধর্ষণের ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে অবশেষে শ্লীলতাহানীর মামলা নিয়েছেন পুলিশ। ঘটনার চারদিন পর ভিক্টিমকে মিথ্যা আস্বাসে বিভ্রান্ত করে মুল এজাহার সরিয়ে ফেলে নতুন করে লিখিত এজাহারে স্বাক্ষর নিয়ে শ্লীলতাহানীর এই মামলাটি দায়ের করেছেন বলে ভিক্টিম নারী জনিয়েছেন। জানাযায়, গত শুক্রবার দিবাগত রাতে নজরুল নগর ইউনিয়নের চরনুরুদ্দিন গ্রামের আবসান প্রকল্পে শিশু পুত্রকে জিম্মি করে গলা চেপে হত্যার হুমকি দিয়ে মাকে ধর্ষণ করেন ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালক প্রতিবেশি রিপন পাটোয়ারী। ধর্ষণ ঘটনার পরদিন গত শনিবার দক্ষিণ আইচা থানায় ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালক ধর্ষক রিপন পাটওয়ারীকে আসামী করে লিখিত এজাহার দায়ের কারেন ভিক্টিম ওই নারী। কিন্ত পুলিশ এজাহার না নিয়ে সমঝোতার জন্য ভিক্টিমকে চাপ দেন এবং পুলিশ মামলা নিতে গরিমশি করেন। ঘটনার চারদিন পেরিয়ে গেলেও মামলা নেয়নি পুলিশ। এই ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার বিভিন্ন সংবাদপত্রে সংবাদ প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার ওই নারী ভিক্টিমকে ডেকে থানায় এনে ধর্ষণের মুল ঘটনাকে আড়াল করে শ্লীলতাহানীর মামলা নেয় পুলিশ।
ভিক্টিম নারী জানান, তার মুল এজাহারটি সরিয়ে ফেলেন। নতুন করে এজাহার লিখে তাতে স্বাক্ষর নেন। স¦াক্ষর নেয়ার সময় দক্ষিণ আইচা থানার ওসি হারুন অর রশিদ তাকে বলেছেন ধর্ষণ মামলাই নেয়া হচ্ছে। কিন্তু এজাহার নথি ভুক্তের পরে পুলিশ বলছেন ধর্ষণ নয়, শ্লীলতাহানীর মামলা নেয়া হয়েছে। আসামীর সাথে আতত করে ধর্ষণের ঘটনার অভিযোগকে আড়াল করে আমার মামালা পরিবর্তন করেছে পুলিশ।
প্রকাশ, তার স্বামী চট্রগ্রামে দিনমজুরের কাজ করেন। দক্ষিণ আইচা থানার চর নুরুদ্দিন আবাসনে দুই বছরের শিশুসন্তানকে নিয়ে থাকতেন তিনি। প্রতিবেশি যুবক রিপন মোটারসাইকেল রাখার অজুহাতে আবসনে আসা-যাওয়া করে। স্বামী দূরে থাকার সুযোগে প্রায়ই রিপন তাকে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে উত্যক্ত করে আসছিল। শুক্রবার রাতে প্রতিবেশি রিপন তার ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে শিশুপুত্রকে জিম্মি করে। পুত্রকে গলা চেপে হত্যার হুমকী দিয়ে ভিক্টিমকে ধর্ষণ করে। এই ঘটনায় পরদিন শনিবার ভিক্টিম বাদি হয়ে দক্ষিণ আইচা থানায় এজাহার দাখিল করেন। কিন্ত পুলিশ এজাহার না নিয়ে সমঝোতার জন্য ভিক্টিমকে চাপ দেন।
দক্ষিণ আইচা থানার ওসি হারুন অর রশিদ জানান, ভিক্টিম ওই নারী এখন সাংবাদিকের কাছে ধর্ষণের অভিযোগ করলেও গত শনিবার তার দায়ের করা পুর্বের অভিযোগে শ্লীলতাহানী ভয়ভীতির অভিযোগ এনেছেন। ওই ঘটনায়ই মামলা নেয়া হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT