আমতলীতে পল্লী বিদ্যুতের নতুন সংযোগ দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে দালাল চক্র আমতলীতে পল্লী বিদ্যুতের নতুন সংযোগ দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে দালাল চক্র - ajkerparibartan.com
আমতলীতে পল্লী বিদ্যুতের নতুন সংযোগ দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে দালাল চক্র

2:41 pm , July 7, 2020

আমতলী প্রতিবেদক ॥ আমতলী উপজেলার উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নে পশ্চিম চিলা গ্রামে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার জন্য দের শতাধিক গ্রাহকদের কাছ থেকে প্রায় দুই লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় একটি দালাল চক্রের বিরুদ্ধে। বিদ্যুৎ সংযোগ প্রত্যাশি জনসাধারণ অভিযোগ করেন, উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নে পশ্চিম চিলা গ্রামের বাসিন্ধা গাজী রহমান, সেলিম মিয়া, আবু বক্কর বিশ্বাস ও বেল্লাল গাজী ওই গ্রামের প্রায় দেড় শতাধিক পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহকদের কাছ থেকে লাইন টানা ও সংযোগ দেয়ার নাম করে বিদ্যুতায়নের কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের জন্য মিটার প্রতি নগদ তিন থেকে পাঁচ হাজার টাকা ও তাদের খাবারের জন্য দুই কেজি করে চাল উত্তোলন করেছে। গ্রাহক মোঃ মতিয়ার রহমান বিশ্বাস অভিযোগ করে বলেন, বিদ্যুতের সংযোগ দেয়ার নাম করে আমার কাছ থেকে দালাল চক্রের সদস্য সেলিম মিয়া নগদ ৪০০০ হাজার টাকা নিয়েছেন। অপর গ্রাহক মোঃ মকবুল হোসেন মৃধা বলেন, বিদ্যুতের লাইন নির্মাণে কাজ করবে বলে শ্রমিকদের খাওয়ানোর জন্য আমার কাছ থেকে নগদ একশ টাকা ও দুই কেজি চাল নিয়েছেন আবু বক্কর বিশ্বাস ও গাজী রহমান। অভিযুক্ত দালাল চক্রের সদস্য আবু বক্কর বিশ্বাস মুঠোফোনে বলেন, পল্লী বিদ্যুতের লাইন নির্মাণ ও সংযোগ পাইয়ে দেয়ার জন্য আমরা এলাকার গ্রাহকদের কাছ থেকে খরচ টাকা উঠিয়ে পল্লী বিদ্যুতের কাজে নিয়োজিত ঠিকদারকে দিয়েছি। ঠিকাদারকে কত টাকা দিয়েছেন তা জানতে চাইলে তিনি জানান, ২৮ হাজার টাকা দিয়েছি ও শ্রমিকদের খাবারের জন্য বিভিন্ন গ্রাহকদের বাড়ী থেকে চাল উত্তোলন করেছি। এলাকার বাসিন্ধা যুবলীগ নেতা তৌহিদুল ইসলাম বিশ্বাস মুঠোফোনে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে বিনা পয়সায় প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সংযোগ দিচ্ছেন। আর সেখানে অসহায় মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে সরকারের ভাবমূর্তি এক শ্রেণীর দালাল চক্র ক্ষুন্ন করবে এটা মেনে নেওয়া যায়না। এ ঘটনার সাথে যারা জড়িত তদন্তপূর্বক তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের উচ্চ মহলের কাছে জোর দাবী জানাই। হলদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম মৃধা জানান, যে সকল দালাল চক্র এ ঘটনার সাথে জড়িত তার সত্যতা যাচাই করে তাদের বিরুদ্ধে আইগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করছি। পল্লী বিদ্যুৎ ঠিকাদার সাইফুল ইসলাম লাইন নির্মাণে টাকা নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে জানান, নিয়ম মাফিক এখানে বিদ্যুৎ লাইন নির্মাণের কাজ চলছে। আর আমার শ্রমিকদের খাবারের নামে যদি কেউ চাল সংগ্রহ করে থাকলে সে প্রত্যারনা করেছে। পটুয়াখালী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার (ভারপ্রাপ্ত) ডিজিএম মোঃ মাইনুদ্দিন ও বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড পটুয়াখালীর নির্বাহী প্রকৌশলী দিলিপ কুমার সিকদার মুঠোফোনে জানান, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন মুঠোফোনে বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। এরকম ঘটনা ঘটলে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। স্থানীয় ভূক্তভেগীরা অবিলম্ভে এসকল দালালদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের উচ্চ মহলের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT