মনপুরার বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চল ৩-৪ ফুট জোয়ারে প্লাবিত মনপুরার বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চল ৩-৪ ফুট জোয়ারে প্লাবিত - ajkerparibartan.com
মনপুরার বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চল ৩-৪ ফুট জোয়ারে প্লাবিত

3:17 pm , May 20, 2020

মনপুরা প্রতিবেদক ॥ ভোলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা মনপুরা উপকূলের নি¤œাঞ্চল সহ মূল ভূ-খন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন কলাতলীর চর ও চরনিজামে সুপার সাইক্লোন আম্পানের প্রভাবে ৩-৪ ফুট জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে। চরনিজাম ও কলাতলীর চরে আশ্রয়কেন্দ্রের সামনে জোয়ারের পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়াও বেড়ীবাধ এর বাহিরে ও বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চলে থাকা মানুষজনকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনতে উপজেলা প্রশাসন ব্যাপক প্রচারনা করে যাচ্ছেন। ব্যাপক প্রচারনা চালিয়েও মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনতে পারছেনা প্রশাসন। তবে দুপুরের দিকে বেড়ীর বাহিরে জোয়ারের পানি প্রবাহিত হওয়ায় ধীরে ধীরে মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রের দিকে আসা শুরু করেছে। এদিকে বুধবার সকাল থেকে একটানা দুপুর পর্যন্ত প্রশাসনের পক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বেড়ীবাঁধের বাহিরে অবস্থান করে থাকা মানুষকে নিরাপদে আশ্রয়কেন্দ্র আসার জন্য মাইকিং করছেন। উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে বিভিন্ন স্পটে গিয়ে মাইকিং করে আশ্রয়কেন্দ্রে আসার জন্য অনুরোধ করেন। জনগনকে সচেতন করার লক্ষে প্রশাসনকে সার্বিক সহযোগীতা করতে দেখা গেছে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সভাপতি শেলিনা আকতার চৌধুরী, অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাখাওয়াত হোসেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ ইলিয়াছ মিয়া, উপজেলা সিপিপি টিম লিডার এরফান উল্যাহ অনি চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান আমানতউল্যাহ আলমগীর প্রমুখ। মানুষজন ঘর-বাড়ি, গরু-ছাড়ল ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে আসতে চাচ্ছেনা। তারপরও প্রশাসনকে আশ্রয়কেন্দ্রে আসার জন্য তৎপরাতা চালাতে দেখা গেছে। বুধবার সকাল ১০ টা থেকে দমকা ও জড়ো বাতাস বইতে শুরু করেছে। এর আগে মঙ্গলবার রাত ১০ টা থেকে থেমে বৃষ্টিসহ বাতাস বইছে। এদিকে মেঘনায় জোয়ার প্রবাহিত থাকায় ও আম্পানের প্রভাবে বাতাসের গতিবেগ বৃদ্ধি পাওয়ায় মনপুরা উপকূলের বেড়ীর বাহিরে নি¤œাঞ্চল ৩-৪ ফুট জোয়ারে পানিতে ডুবে গেছে। সরেজিমেন উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলার মনপুরা ইউনিয়নের বেড়ীর বাহিরে আন্দিরপাড় গ্রাম ৩-৪ ফিট জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এছাড়াও চরনিজাম ও কলাতলীর চরে ৩-৫ ফুট জোয়ারে পানিতে ডুবে গেছে মুঠোফোনে জানিয়েছে চরনিজামের ইউপি সদস্য নুরনবী ও সিপিপি কর্মী মাকছুদ সর্দার ও কলাতলীর চরে ইউপি মেম্বার ও সিপিপি কর্মী আমিন। এছাড়াও পূর্বপাশে ঢাকার লঞ্চঘাট এলাকায় এলজিইডির নতুন নির্মিত রাস্তা জোয়ারের তান্ডবে ভেঙ্গে নদীতে পড়ে গেছে। উত্তর সাকুচিয়া মাষ্টারহাট এলাকায় জোয়ারের পানি প্রবাহিত হয়েছে। এদিকে বেড়ীর বাহিরে জোয়ারে পানি প্রবাহিত হওয়ায় লোকজন ছাগল ও পরিবারপরিজন নিয়ে আশ্রয়কেন্দ্রে আসা শুরু করেছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিপুল চন্দ্র দাস জানান, ১০ নম্বর বিপদ সংকেত চলছে। ৭৪ টি আশ্রয়কেন্দ্রে প্রস্তুত করা হয়েছে। ্ইতিমধ্যে ৭২৯জনকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনা হয়েছে। সিপিপির সদস্যরা ব্যাপক প্রচারনা চালাচ্ছে। ইতি মধ্যে চরকলাতলী ও চরনিজামে পানি উঠে গেছে। সেখানকার আশ্রয়কেন্দ্রে আসা লোকজনদের খাবার দেওয়ার জন্য চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সভাপতি শেলিনা আকতার চৌধুরী জানান,আমাদের ত্রান সেন্টার গুলো রেডি আছে। ৭২৯ জনকে ত্রান সেন্টারে নিয়ে এসেছি। অনেকে বাকি আছে ত্রান সেন্টারে আসার। ত্রানে সেন্টারে আসা লোকজনকে শুকনো খাবার দেওয়া হয়েছে। আমাদের ডাক্তাদের টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আমাদের উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ওসি সহ প্রশাসনের সকলকে আমরা আম্পান মোকাবেলা করবো।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT