সাড়ে তিন লক্ষাধিক শিশুকে খাওয়ানো হয়েছে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল সাড়ে তিন লক্ষাধিক শিশুকে খাওয়ানো হয়েছে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল - ajkerparibartan.com
সাড়ে তিন লক্ষাধিক শিশুকে খাওয়ানো হয়েছে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

2:54 pm , January 11, 2020

 

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ৩০টি ওয়ার্ড সহ জেলার ১০ উপজেলায় ৩ লক্ষ ৬০ হাজার শিশুকে জাতীয় ভিটমিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওনো হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে নয়টায় নগরীর কালী বাড়ি রোডস্থ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে শিশুদের ভিটামিন টিকা খাওয়ানোর মাধ্যমে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিসিসি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইসরাইল হোসেন, বিসিসি স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ ফয়সাল হাজবুন, বিসিসির মেডিকেল অফিসার ডাঃ মঞ্জরুল ইমাম, ডাঃ নাহিদ হাসান, মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ ডা. গাজী সামসুল আলম মা ও কল্যাণ কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার ডাঃ রাজিয়া বেগম ও বিসিসি এপিপি মোঃ কবীর হোসেন। নগর ভবনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ ফয়সাল হাজবুন জানান, নগরীতে ২২০ টি কেন্দ্রে ৪৯ হাজার ৬১০ শিশুকে ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্য রয়েছে। এর মধ্যে এর মধ্যে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৫ হাজার ১ শত শিশুকে নীল রঙের ১ লাখ ওট ক্ষমতা সম্পন্ন ভিটামিন খাওয়ানো হয়। একই সাথে ১২ থেকে ৫৯ বয়সের ৪৪ হাজার ৫১০ শিশুকে লাল রঙের ২ লাখ ওট ক্ষমতা সম্পন্ন ভিটামিন খাওয়ানো হয়। এ কর্মসূচি সফল করতে সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগ, সদর হাসপাতাল, শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি ২৩ টি প্রতিষ্ঠানের ৫ শত কর্মী শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর কর্মসুচীতে অংশ নেয়। তিনি জানান, এবারেই প্রথম ক্যাম্পেইন কার্যক্রম অনলাইনে সুপারভিশন করা হবে। ভিটামিন এ ক্যাপসুল শিশুর জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ, তবে ভরা পেটে খাওয়া ভালো, আর যদি কোন শিশু গত ৪ মাসের মধ্যে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খেয়ে থাকে তাহলে তাকে এখন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না। অপরদিকে জেলার ০৬ থেকে ৫৯ মাস বয়সী সকল শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো কর্মসূচি করা হয়েছে। এর মধ্যে ০৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৩৩ হাজার ১০৫ শিশুকে নীল রঙের ১ লাখ ওট ক্ষমতা স¤পন্ন ভিটামিন খাওয়ানো হয়। পাশাপাশি ১২ থেকে ৫৯ বয়সের ২ লাখ ৭৭ হাজার ৫৩৩ শিশুকে লাল রঙের ২ লাখ ওট ক্ষমতা সম্পন্ন ভিটামিন খাওয়ানো হয়।
বরিশালের ১০ উপজেলার ৮৫টি ইউনিয়নের ২৫৫টি ওয়ার্ডে ২ হাজার ২৫০ টি টিকা দান কেন্দ্রের মাধ্যমে এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। বরিশাল সিভিল সার্জনের এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে সেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করবেন মোট ৪ হাজার ১০০ জন কর্মী। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত টিকাদান কেন্দ্র খোলা থাকা অবস্থায় শিশুদের টিকা খাওয়ানো হবে।
এ ব্যাপারে জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মনোয়ার হোসেন বলেন, এ কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রচার প্রচারণা চালানো হয়েছে। এর পাশাপাশি শুক্রবার জুম্মাবাদ সকল মসজিদে ইমামরা জেলাবাসীকে অবহিত করা হয়েছে। অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব থেকে শিশুকে রক্ষা করতে এই ভিটামিনের বিকল্প নেই বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT