ওদের আর কেউ রইলো না ওদের আর কেউ রইলো না - ajkerparibartan.com
ওদের আর কেউ রইলো না

3:07 pm , July 12, 2019

শাকিল মাহমুদ বাচ্চু, উজিরপুর ॥ বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার রমজানকাঠী গ্রামে বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মারা যাওয়া ভ্যানচালক কামাল হোসেন(৩০) মমতাজ বেগম (২৫) দম্পতির ৪টি অবুঝ শিশু সন্তানদের করুন দৃশ্য দেখে ওই এলাকায় হাজারো মানুষ তাদের চোখের পানি প্রকাশ্যেই মাটিতে ফেলেছেন। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর দায়িত্বহীনতার জন্য অকালে বাবা-মা হারানো ১ বছরের শিশু জেসমিন তার মা মমতাজকে হন্য হয়ে খুজছেন বুকের দুধ আহারের জন্য। ৭ বছর বয়সের হাবিবা এখনো বোঝে না তার মা-বাবা পৃথিবীতে নেই। সে তাদের বাড়ীতে আসা শতশত মানুষের মূখের দিকে তাকাচ্ছেন ৮ বছর বয়সের শিশু হামিদা মানুষের কাছে জিজ্ঞাসা করছেন বাবা মায়ের কথা। তারা কি আর বাড়িতে আসবেন কিনা ? ১১ বছরের পুত্র সন্তান রবিন অঝরে কাদছেন মা বাবার মূত্যু শোকে। ১২ জুলাই শুক্রবার সকালে এমন আবেগঘন পরিবেশে বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের রমজানকাঠী গ্রামে উপস্তিত হাজারো মানুষের ক্ষোভ বরিশাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর কর্মরত বিদ্যুৎকমীদের উপর তাদের দায়িত্ব অবহেলার কারনে ৪ অবুঝ শিশু সারা জীবনের জন্য হলো আশ্রায়হীন। অকালে প্রান হারালো দরিদ্র কামাল- মমতাজ দম্পতি। সকলের প্রশ্ন কে নেবে ওই অবুঝ ৪ শিশুর দায়-দায়িত্ব। বাবা-মা দু’জনেই প্রান হারানোর পর ওদের আর কেউ রইলো না জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের ইউনিয়নের রমজানকাঠী গ্রামের মৃত রজ্জব আলী হাওলাদারের ছোট ছেলে কামাল হোসেন হাওলাদার দরিদ্রতার মধ্যে জীবন-যাপন করতো । ১১ জুলাই বৃহস্পতিবার একসাথে ওই দম্পতি অকালে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মারা যাওয়ায় তার অবুঝ সন্তানদের এখন আর দেখার কেউ নাই। রমজানকাঠী গ্রামের চান্দু মোল্লা বলেছেন, পল্লী বিদ্যুতের দায়িত্বহীনতার কারনে বাবা-মা হারালো অবুঝ ৪ শিশু সন্তান।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT