ভিসি’র পদত্যাগ দাবীতে বৃষ্টিতে ভিজে ববি শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ ভিসি’র পদত্যাগ দাবীতে বৃষ্টিতে ভিজে ববি শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ - ajkerparibartan.com
ভিসি’র পদত্যাগ দাবীতে বৃষ্টিতে ভিজে ববি শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

3:01 pm , April 8, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ভিসি’র পদত্যাগের দাবীতে বরিশাল-পটুয়াখালী-ভোলা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) শিক্ষার্থীরা। অবরোধ চলাকালে প্রবল বর্ষণ শুরু হলেও অবরোধ তুলে নেয়নি তারা। বৃষ্টিতে কাক ভেজা হয়ে ভিসি’র পদত্যাগ দাবীতে সড়ক অবরোধ করে শ্লোগান দিতে থাকে। একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম চালুর ঘোষনা প্রত্যাখ্যান করে গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মুল ফটকের সামনে মহাসড়ক অবরোধ করে তারা। পরবর্তীতে ভিসি’র পদত্যাগ বা ছুটির বিষয়টি আগামি ২৪ ঘন্টার ভিতরে লিখিতভাবে দেয়ার আল্টিমেটাম দিয়ে বেলা সাড়ে ১২ টায় সড়ক অবরোধ তুলে নেন শিক্ষার্থীরা। এদিকে ভিসির পদত্যাগ দাবীতে শান্তিপূর্ন আন্দোলনের নামে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভের ফলে সড়কের তিন প্রান্তে যাত্রী ও মালবাহী পরিবহনসহ বিভিন্ন যানবাহনের দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়। সৃষ্টি হয় সীমাহিন ভোগান্তির। বিশেষ করে টানা দেড় ঘন্টা সড়ক অবরোধ তার মধ্যে অঝোড়ধারায় বৃষ্টির কারনে যানবাহনে থাকা শিশু নারী ও বয়স্ক যাত্রীদের পড়তে হয় চরম ভোগান্তিতে। যদিও এম্বুলেন্স ও জরুরি যানবাহনের ক্ষেত্রে সড়ক অবরোধের প্রভাব ছিলো না। এর আগে ১০ টায় ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের নীচতলায় প্রধান ফটকে অবস্থান কর্মসূচী পালন করে। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ১৪ তম দিনে গড়ালো। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানায়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড.এসএম ইমামুল হক স্বেচ্ছায় ছুটিতে যাবেন বলে সমঝোতা বৈঠকে আমাদের আশ্বস্থ করা হয়েছিলো। কিন্তু বৈঠকের আজ তিন দিন। ভিসি’র পদত্যাগ অথবা ছুটিতে যাবার কোন লিখিত কাগজ আমরা পাইনি। শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আগেই তাদের মৌখিক আশ্বাসের আস্থার বিষয়টি হারিয়ে ফেলেছেন। তাই আমরাও আমাদের আন্দোলনের সিদ্ধান্তে অনঢ় অবস্থানে রয়েছি। ভিসি’র পদত্যাগ বা ছুটির বিষয়ে লিখিত না পাওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষনা দিয়েছেন তারা। এর আগে শনিবার পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও সিটি মেয়র সহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের সাথে সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিলো। ওই রাতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার ড. হাসিনুর রহমান স্বাক্ষরিত এক আদেশে রোববার থেকে ক্লাস ও পরীক্ষা সহ সকল কার্যক্রম চালুর ঘোষনা দেন। সে অনুযায়ী প্রতিদিনের ন্যায় গতকালও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সকালে ক্যাম্পাসে এসে একাডেমিক ভবনের সামনে অবস্থান নেয়। কিন্তু প্রধান ফটকে তালা দেয়া থাকায় তারা ভেতরে প্রবেশ করতে পারেনি। উল্লেখ্য, গত ২৬ মার্চ শিক্ষার্থীদের বাদ দিয়ে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানের আয়োজনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা। এজন্য তাদেরকে রাজাকারের বাচ্চা বলে গালি দেন ভিসি। এর প্রতিবাদ ও ভিসি’র পদত্যাগ দাবীতে সে দিন থেকেই লাগাতার আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে আসছে শিক্ষার্থীরা।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT