সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ৮ জনের প্রত্যেক পরিবারকে দেড় লাখ টাকা অনুদান প্রদান জীবনের মূল্য কোন কিছুর বিনিময়ে নির্ধারণ করা সম্ভব নয় Ñমেয়র সাদিক আবদুল্লাহ সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ৮ জনের প্রত্যেক পরিবারকে দেড় লাখ টাকা অনুদান প্রদান জীবনের মূল্য কোন কিছুর বিনিময়ে নির্ধারণ করা সম্ভব নয় Ñমেয়র সাদিক আবদুল্লাহ - ajkerparibartan.com
সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ৮ জনের প্রত্যেক পরিবারকে দেড় লাখ টাকা অনুদান প্রদান জীবনের মূল্য কোন কিছুর বিনিময়ে নির্ধারণ করা সম্ভব নয় Ñমেয়র সাদিক আবদুল্লাহ

3:29 pm , April 4, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ একজন মানুষের জীবনের মূল্য কোন কিছুর বিনিময়ে নির্ধারণ করা সম্ভব নয়। যার স্বজন দূর্ঘটনায় নিহত হয় সেই কেবল অনুভব করে স্বজন হারানোর কষ্ট। এ জন্য কোন ধরনের অপমৃত্যু কিংবা পঙ্গুত্ব বরণ আমাদের কাম্য নয়। গড়িয়ারপাড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় যারা এখনো আহত অবস্থায় আছেন তাদেরকে আমি সার্বিক সহযোগিতা এবং চিকিৎসা করবো। গড়িয়ার পাড়ে বাসের চাপায় নিহত মাহেন্দ্র’র নিহত আট যাত্রীর পরিবারের মাঝে আর্থিক অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন সিটি কর্পোরেশনের য়েয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫ টায় বরিশাল সার্কিট হাউজ সভাকক্ষে এ অনুদান দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মেয়র আরো বলেন, দুর্ঘটনার জন্য উভয়ই দায়ী। এ জন্য যতটা নিয়ন্ত্রণ করে যানবাহন চলাচল করা সম্ভব সকলের তা করা উচিত। দূর্ঘটনা এড়াতে সম্প্রতি নগরী মধ্যে আলফা মাহেন্দ্র চলাচল বন্ধ করেছি। তবে যতদিন পর্যন্ত নগরবাসীর জন্য বিকল্প যানবাহন নামানো সম্ভব হচ্ছে না, ততদিন তিন চাকার সকল যানবাহন উঠিয়ে দিতে পারছি না। একসঙ্গে সকল তিন চাকার যানবাহন উঠিয়ে দিলে যাত্রীদের দুর্ভোগ বাড়বে। তবে সুসংবাদ হলো খুব শীঘ্রই সিটি সার্ভিস পরিচালনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এতে করে সাধারণ যাত্রীদের পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা উপকৃত হবে। গড়িয়ার পাড় থেকে রুপাতলী এবং লঞ্চ ঘাট থেকে রুপাতলী ছাড়াও নগরীতে চলাচলের জন্য সিটি বাস নামানোর পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। নগরীর কেন্দ্রীয় নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনালের বরিশাল জেলা বাস মালিক গ্রুপের পক্ষ থেকে দেয়া অনুদানের বিতরন অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান, বাস মালিক গ্রুপের সহ-সভাপতি কিশোর কুমার দাস, বরিশাল পটুয়াখালী বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি আজিজুর রহমান শাহীন, সাধারন সম্পাদক কাওসার হোসেন শিপন উপস্থিত ছিলেন। নিহত আট পরিবারকে বাস মালিক গ্রুপ থেকে ১ লাখ ও নগর ভবনের পক্ষ থেকে ৫০ হাজার টাকা করে অনুদান দেয়া হয়। এছাড়াও দুর্ঘটনায় নিহত বিএম কলেজ শিক্ষার্থী শীলা রানী শীলের প্রতিবন্ধি বড় বোনকে নগর ভবনে চাকরি দেওয়ার ঘোষণা দেন সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান বলেন, বরিশালে যানবাহন চলাচলকে কল্যাণমূখী ও জনবান্ধব করা প্রয়োজন। এজন্য সকলকে এক সঙ্গে কাজ করতে হবে। তিনি জানান , দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে জেলার প্রশাসক কার্যালয়ের নিয়ম অনুয়ায়ী তাৎক্ষণিক ২০ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়েছে। তবে এরপরও নিহতদের মধ্যে যাদের পরিবারের সহযোগিতা প্রয়োজন হবে, তাহলে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদেরকে সহযোগিতা করা হবে। বিএম কলেজের নিহত শিক্ষার্থী শীলা রানী শীলের মা গীতা রানী শীল বলেন প্রতিদিনই টিভিতে দুর্ঘটনার খবর দেখি। কিন্তু এমন দুর্ঘটনায় আমার সন্তান মারা যাবে এটা আমি কল্পনাও করিনি। আমাকে যখন পুলিশ ফোন করে জানায় আমার মেয়ে মারা গেছে, আমি তা বিশ্বাস করতে পারিনি। তিন জানান, গতকাল শীলার বিসিএস নিবন্ধন পরীক্ষার কার্ড উঠানোর জন্য এসএমএস এসেছে ! কিন্তু সে আমাদের মাঝে নেই ! এ সময় তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। অন্যান্যদের মধ্যে শিক্ষার্থী প্রতিনিধি এম সালাউদ্দিন বক্তৃতা করেন । অনুষ্ঠানে দুর্ঘটনায় নিহত মো. সোহেলের এর পরিবারের পক্ষে দুলাল হোসেন, মানিক শিকদারের পক্ষে স্ত্রী শাহিনা বেগম, শিলা রানী শীল এর পক্ষে তার মা গীতা রানী শীল, একই পরিবারের নিহত দুজন পারভীন বেগম এবং তাইয়ূর পরিবারের পক্ষে মোহাম্মদ মফিজুর, এছাড়া নিহত মেহেরুন্নেসা এবং আরিফ সরদারের ও খোকনের পরিবারের সদস্যরা চেক গ্রহন করেন। উল্লেখ্য গত ২২ মার্চ সকালে গড়িয়ারপাড় তেতুলতলা এলাকায় দুর্জয় পরিবহণের বাস মাহেন্দ্র টেম্পুকে চাপা দেয়। এতে এতে ঘটনাস্থলেই ৩ জনের মৃতু হয়। গুরুত্বর আহত হয় আরো ৮ জন। পরে তাদের হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয় আরো ২ জনের । এছাড়াও চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরন করেন আরো ৩ জন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT