আগৈলঝাড়ার দুঃস্থ মানবতার হাসপাতালের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ আগৈলঝাড়ার দুঃস্থ মানবতার হাসপাতালের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ - ajkerparibartan.com
আগৈলঝাড়ার দুঃস্থ মানবতার হাসপাতালের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ

3:34 pm , February 6, 2019

আগৈলঝাড়া প্রতিবেদক \ আগৈলঝাড়ায় অপচিকিৎসা, প্রসুতির মৃত্যুসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে দুঃস্থ মানবতার হাসপাতালের সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। চিকিৎসকদের অপচিকিৎসায় অপারেশনের টেবিলে এক গৃহবধূর মর্মান্তিক মৃত্যু ও পরে শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণের অভিনব নাটকের সংবাদ গতকাল বুধবার বরিশাল-১ আসনের এমপি আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর নির্দেশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন । অভিযানের সময় ১০ বেডের ওই হাসপাতালে তিন জন এমবিবিএস চিকিৎসক, ৬ জন প্রশিক্ষিত নার্স, ল্যাবরেটরী টেকনিশিয়ানসহ প্রয়োজনীয় জনবল কাঠোমো, পরিবেশ অধিদপ্তর ও ফায়ার সার্ভিসের সনদপত্র না থাকায় আনারি চিকিৎসকের “এনেস্থাপি-কফেইলর” এর কারণে প্রসুতি মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতালের সমস্ত কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেন ম্যাজিষ্ট্রেট। এসময় আদালত সেখানে ভর্তি রোগীদের উপজেলা সরকারী হাসপাতালে স্থানান্তরেরও নির্দেশ দেন। অভিযানের সময় ওই হাসপাতালটিতে কোন চিকিৎসক, নার্স ও ল্যাবরেটরী টেকনোলজিষ্টের উপস্থিতি পায়নি ভ্রাম্যমান আদালত। তাছাড়া ৩১ জানুয়ারি অন্ত.সত্ত¡ার ভর্তি রেজিষ্ট্রারে কোন চিকিৎসকেরও নাম দেখতে পায়নি আদালত। এ্যানেসথেসিয়া ডাক্তার ডা. আবদুল্লাহ আল মামুন ফোনে আদালতকে এ্যানেসথেসিয়রা কোন সনদপত্র তার নেই জানিয়ে সত্যতা স্বীকার করেছেন।
আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট বিপুল চন্দ্র দাস বলেন, এমপির নির্দেশ পেয়ে বুধবার বারোটার দিকে পুলিশসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের নিয়ে শহরের ফুল্লশ্রী বাইপাস সড়কে অবস্থিত দুঃস্থ মানবতার প্রাইভেট হাসাপতালে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে হাসপাতাল পরিচালক, স্বাস্থ্য বিভাগের সাবেক উপ-পরিচালক ডা. হিরন্ময় হালদারের অনুরোধে হাসপাতাল পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্র উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কাছে জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কাগজপত্র পেলে পরবর্তি সিদ্ধান্ত নেয়ার কথাও জানান তিনি।
প্রসংগত, ৩০ জানুয়ারি স্বাভাবিক প্রসবের জন্য বাহাদুরপুর গ্রামের লিটন অধিকারীর স্ত্রী অন্তসত্তা পলিকে আগৈলঝাড়া দুঃস্থ মানবতার প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করে ওই রাতেই সিজারিয়ান অপারেশন করেন গৌরনদী হাসপাতালের জুনিয়র কনস্যালটেন্ট (গাইনী) ডা. বিপুল বিশ্বাস। এ্যানেসথেসিয়া ডাক্তার ছিলেন ডেপুটেশনে আগৈলঝাড়ায় কর্মরত ডা. আবদুল্লাহ আল মামুন। সন্ধ্যা ৭ টা ১০ মিনিটে সিজারিয়ান অপারেশনের সময় কন্যা সন্তান জন্ম দিয়ে মারা যায় পলি। এর পর মৃত পলিকে নিয়ে অভিনব নাটক করে এ্যাম্বুলেন্স যোগে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় দুঃস্থ মানবতার হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ।
ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনার সময় ম্যাজিষ্টেটের সাথে ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. মনিরুল ইসলাম, স্যানিটারী ইন্সপেক্টর শুকলাল সিকদার, এসআই আব্বাসসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ। একই দিন একই আদালত উপজেলা সদরের ডিজিটাল ডায়াগনিষ্ট সেন্টারে অভিযান চালিয়ে মেডিকেল প্রাকটিস এবং বেসরকারী ক্লিনিক ও ল্যাবরেটরী (নিয়ন্ত্রণ) অধ্যাদেশ ১৯৮২(৪) ধারায় ২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। অভিযানের টের পেয়ে উপজেলা সদরের জনসেবা ডায়গনিষ্টিক সেন্টার বন্ধ করে মালিক সোহেল মিয়া পালিয়ে যায়।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT