অসমাপ্ত নির্মাণ কাজে ঝুঁকির মধ্যে শহীদ আরজু মনি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শির্ক্ষাথীরা অসমাপ্ত নির্মাণ কাজে ঝুঁকির মধ্যে শহীদ আরজু মনি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শির্ক্ষাথীরা - ajkerparibartan.com
অসমাপ্ত নির্মাণ কাজে ঝুঁকির মধ্যে শহীদ আরজু মনি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শির্ক্ষাথীরা

3:44 pm , January 31, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নগরীর কাউনিয়া হাউজিং এলাকায় অবস্থিত শহীদ আরজু মনি সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঝুকির মধ্যে রয়েছে। বিদ্যালয়ের মাঠে খানাখন্দে ভরা প্রতিষ্ঠানটিতে হারহামেশাই শিক্ষার্থীরা দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। এছাড়া সামনের সীমানা প্রাচীর না থাকায় যে কোন সময় ঘটতে পারে অনাকাঙ্খিত ঘটনা বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিভাবকরা। জানাগেছে, শিক্ষার্থীদের চাহিদা পূরনে নগরীর রুপাতলী হাউজিং এ শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত ও কাউনিয়ায় নির্মিত হয় শহীদ আরজু মনি সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়। প্রতিটি ৭ তলা ভবনে রয়েছে আধূনিক শিক্ষা ব্যবস্থা।চলতি বছরের পুরোদমে ক্লাস শুরু হয়ে গেছে॥ কোমলমতি মেধাবী সন্তানদের পদচারনায় মুখরীত প্রতিষ্ঠান দুটি। যা এ অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের জন্য আর্শীবাদ হয়ে দেখা দিয়েছে। কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহীত হলে ও সিমানা প্রাচীর এবং গেইট না হওয়ায় উন্মুক্ত বিদ্যালয়টির খানাখন্দে ভরা মাঠে গরু চরান সহ ক্লাস চলাকালীন অতিউৎসাহী অভিভাবকরা বিদ্যালয়ে ঢুকে পড়ে। যা শিক্ষকদের বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলে বলে নাম প্রকাশ না করার সুত্রে জানাগেছে। এ ব্যাপারে এক ছাত্রের অভিভাবক (বিজ্ঞান বিভাগের) কলেজ শিক্ষক মো. মনিরুজ্জামান বলেন, বিদ্যালয়টির পড়াশুনার মান অনেক ভালো। প্রধান শিক্ষকের বিচক্ষনতায় যথেষ্ট নিয়মশৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠানটিতে পাঠদান হচ্ছে। কিন্তু ক্যাচি গেইটের বাহিরে শিক্ষার্থীরা নিরাপদ নয়। পুরো মাঠে খানাখন্দে ভরা। বর্ষার আগে মাঠটি বালু দিয়ে ভরাট করা জরুরী। তা নাহলে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে পুরো মাঠে পানি জমে দূর্ভোগের সৃষ্টি করবে।তাছারা সামনের অংশে সিমানা প্রাচীর না থাকায় যে কোন সময় ঘটতে পারে অনাকাঙ্খিত ঘটনা।
এ ব্যাপারে বিদ্যালয়টি নির্মান প্রতিষ্ঠানের মোঃ রফিকুল ইসলাম (রানা) বলেন, এটা টেন্ডারে সমস্যা আছে। তাছারা বর্তমানে সিটির মধ্যে লোকাল বালু আনা যাচ্ছে না বলে সমস্যা হচ্ছে।
শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী মো. কামরুল ইসলাম জানান, অলরেডি বাউন্ডারী কাজের টেন্ডার হয়ে গেছে। খুব শীঘ্রই অসমাপ্ত কাজ শুরু হবে। শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরে নির্বাহী প্রকৌশলী সমীর কুমার রজক দাস বলেন, এই প্রজেক্টটি আমাদের এখনো চলমান। সীমানা প্রাচীর আরো বৃদ্ধির কারনে দেরী হচ্ছে। তাছারা প্রিন্সিপাল এর কোর্য়াটার নির্মানের কাজ এখন ও শেষ হয়নি। বর্ষার আগে অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন করা হবে।
উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বরিশাল অঞ্চলের উপ-পরিচালক মোঃ মোকসেদুল ইসলাম জানান, দ্রুত সময়ের মধ্যে অসমাপ্ত কাজ করানো হবে।
জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান বলেন,্ এটা যেহেতু নতুন বিদ্যালয় তাই অনেক কাজ বাকি আছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের সাথে আলোচনা করা হবে। খুব তাড়াতাড়ি সিমানা প্রাচীর সহ বালু ফেলে ভরাট করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT