নৌ-বন্দরে অন্ত.স্বত্তা নারীর উপর হামলায় লঞ্চের তিন কলম্যান জেলে নৌ-বন্দরে অন্ত.স্বত্তা নারীর উপর হামলায় লঞ্চের তিন কলম্যান জেলে - ajkerparibartan.com
নৌ-বন্দরে অন্ত.স্বত্তা নারীর উপর হামলায় লঞ্চের তিন কলম্যান জেলে

3:41 pm , January 21, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল নৌ বন্দরে অন্ত.স্বত্তা নারীর উপর হামলার অভিযোগে করা মামলায় ফারহান লঞ্চের ৩ শ্রমিককে জেলে পাঠিয়েছে আদালত। গ্রেফতারের পর তাদের অতিরিক্ত চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করে কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশ। আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক মো. আনিসুর রহমান তাদের জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেন। জেলে যাওয়া আসামিরা হলো কাউনিয়ার বাসিন্দা আব্দুল মতিন হাওলাদারের ছেলে মামুন, সাগরদী মুন্সিবাড়ির বাসিন্দা মৃত সেকান্দার আলী মুন্সির ছেলে স্বপন মুন্সি ও অক্সফোর্ড মিশন রোডের বাসিন্দা মৃত লুৎফর রহমানের ছেলে কামাল সিকদার। আদালত সুত্র জানায়, ঢাকা যাবার উদ্দেশ্যে গর্ভবতী স্ত্রী ও শ্যালককে নিয়ে বরিশাল নৌ বন্দরে আসেন তিনি। এসময় পন্টুনে থাকা মামুন, সায়েম, অলি, সুমন ও প্রভু নামের লঞ্চের কলম্যানরা স্ত্রী রহিমা বেগমের হাত ধরে টানা হেচড়া করে লঞ্চে তোলার চেষ্টা করে। এসময় জসিম উদ্দিন বাঁধা দিলে কলম্যানরা তাকে ও তার শ্যালককে বেধম মারধর করে। এসময় ওই গর্ভবতী নারীকেও মারধর করে কলম্যানরা। এতে তাৎক্ষনিকভাবে ওই গৃহবধূর রক্ত ক্ষরন শুরু হয়। তখন এমভি ফারহাদ লঞ্চের স্টাফরা এগিয়ে এসে ওই নারীকে উদ্ধার করে এবং নৌ পুলিশের সহযোগিতায় তাকে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় হামলার শিকার অন্তঃস্বর্তা গৃহবধুর স্বামি নলছিটির বৈশাখিয়া গ্রামের বাসিন্দা জসিম হাওলাদার বাদী হয়ে ফারহান লঞ্চের ১১ শ্রমিককে অভিযুক্ত করে কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা করেন। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরো ৪ জনকে আসামি করা হয়। অভিযুক্ত অন্যান্যরা হলো ভাটিখানার অলি, কাশীপুর খ্রীষ্টান কলোনির প্রভূদান, ভাটিখানার সুজন ও সুমন। মামলার পরপরই তাদের আটক করে পুলিশ।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT