টিসিবির পেয়াজ বিক্রি কয়েক ঘন্টায় শেষ টিসিবির পেয়াজ বিক্রি কয়েক ঘন্টায় শেষ - ajkerparibartan.com
টিসিবির পেয়াজ বিক্রি কয়েক ঘন্টায় শেষ

3:03 pm , December 1, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ প্রথম ধাপে ছিলো দুই দিন। দ্বিতীয় ধাপে মাত্র কয়েক ঘন্টায়ই শেষ। নগরীতে টিসিবির পেয়াজ বিক্রির চিত্র এটি। এ যেন এক ধরনের তামাশা চলছে বর্তমান সময়ে নিত্য পন্যের মধ্যে সব চেয়ে দামী এই পন্য বিক্রি নিয়ে । এমন অবস্থায় সাধারন নগরবাসী ক্ষোভে ফাটছেন। রাগন্বিত নগরবাসী বলছে, দাওয়াত দিয়ে ডেকে এনে খালি পেটে ফিরিয়ে দেয়ার মত অবস্থা চলছে টিসিবির পেয়াজ বিক্রি কার্যক্রমে। কারন টিসিবি যে পরিমান পেয়াজ সরবারহ করছে তাতে চাহিদা ও যোগান শব্দ দুটির অবস্থান দুই মেরুতে। এমন লোক দেখানো দাওয়াই না দিতে ক্ষোভ ঝেড়েছেন পেয়াজের ঝাজে অতিষ্ট ক্রেতারা। এদিকে বিষয়টি নিয়ে নিজেদের অসহায়ত্বের কথা জানিয়েছেন বরিশাল টিসিবি কর্তৃপক্ষ। চাহিদা প্রেরন করা ছাড়া হাতে কিছু নেই বলে জানিয়েছেন তারা। নগরীতে প্রথম ধাপে ২০ ও ২১ নভেম্বর দুদিন পেয়াজ বিক্রি করেছিলো টিসিবি। মাত্র ১০ টন পেয়াজ সরবারহ করা হয়েছিলো সে সময়। কিন্তু হুমরি খেয়ে পড়ে ও দীর্ঘ সময় লাইনে দাড়িয়ে থেকেও সাধারন নগরবাসী পেয়াজ পায়নি তখন। দ্বিতীয় ধাপে টিসিবির পেয়াজ বিক্রির আগাম খবর পেয়ে গতকাল নির্ধারিত জায়গায় সকাল থেকেই অবস্থান নিয়োছিলো নারী পুরুষ উভয়ই। কিন্তু লাভের লাভ কিছুই হয়নি। সরবারহ কম থাকায় লাইনে দাড়িয়েও কাঙ্খিত পেয়াজ ভাগ্যে জোটেনি বেশীর ভাগ মানুষের। অনেকে আবার দুর থেকে দীর্ঘ লাইন দেখে লাইনে দাড়ানোর দুঃসাহস দেখানািন। ফিরে গেছেন হতাশ হয়ে। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের টিসিবির ট্রাকের সামনে লাইনে দাড়ানো অবস্থায় বেলাল নামে এক কিশোর বলেন, লোক মারফত শুনেছি আজ টিসিবির পেয়াজ বিক্রি হবে তাই সকাল ৯ টায় কাশিপুর থেকে এসেছি। কিন্তু এসে দেখি পেয়াজের ট্রাক নেই। ঘন্টা খানে বসে থাকার পর একটি ট্রাক আসে। চেয়ে দেখি পেয়াজ অল্প পরিমানে আর সাইজে অনেক বড়। অনেক সময় লাইনে দাড়িয়ে এক কেজি পেয়াজ পেয়েছি। তবে এ দৃশ্য দেখে অনেকেই ফিরে গেছেন বলে জানায় সে। নগরীর নতুন বাজার এলাকা থেকে আসা ষাট বছর বয়সী এক বৃদ্ধা নারী বলেন লাইনে অনেক ভিড় দেখে এই শরীরে আর দাড়ানোর সাহস করিনি। তাই ফিরে যাচ্ছি। অনেকে আবার আকারে বড় দেখে কেনার আগ্রহই দেখায়নি। সুত্র মতে দুইমাস অতিক্রম হয়েছে পেয়াজের আকাশচুম্বি মুল্যের। ধাপে ধাপে বেড়ে ১৫ টাকা কেজির পেয়াজ এখন প্রকার বেড়ে ২’শ থেকে ২৪০ টাকা। মাঝখানে ৩’শ ছুয়েছিলো এই পন্যটির প্রতি কেজি মূল্য। এমন পরিস্থিতিতে খোলা বাজার বা টিসিবির মাধ্যমে ৪৫ টাকা দরে পেয়াজ বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার । প্রথমে এই কার্যক্রম শুরু হয় শুধু ঢাকা শহরে। এর পর শুরু হয় দেশের অন্য বিভাগীয় শহরগুলোতে। কিন্তু নগরীতে এখন পর্যন্ত দুই ধাপে মাত্র ৩ দিন টিসিবির পেয়াজ বিক্রি হয়েছে। বরিশাল টিসিবির সহকারী কার্যনির্বাহী শহিদুল ইসলাম বলেন আমরা শুধু চাহিদা পাঠাই, সরবারহ করা হয় ঢাকা প্রধান অফিস থেকে। এখানে আমরা অসহায় বলতে পারেন। তবে খুব কম সময় বিরতি দিয়ে আবার পেয়াজ আসবে বলে জানান তিনি। তিনি বলেন দ্বিতীয় ধাপে গতকাল মাত্র ৫ টন পেয়াজ সরবরাহ করা হয়। তা দিয়ে চাহিদার কতটুকুই বা পূরন করা যায়।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT