আড়াই কেজি ওজনের ইলিশ!!! আড়াই কেজি ওজনের ইলিশ!!! - ajkerparibartan.com
আড়াই কেজি ওজনের ইলিশ!!!

6:22 pm , May 24, 2018

এনইউ সোহাগ, কলাপাড়া ॥ রাবনাবাদ নদীতে ২ কেজি ৫০০ গ্রাম ওজনের একটি ইলিশ শিকার করে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে জেলে রিপন পন্ডিত (৩৫) ও তার পিতা জালাল পন্ডিত (৭০)। বৃহস্পতিবার সকালে পটুয়াখালীর কলাপাড়ার চম্পাপুর ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামের জেলে মোঃ রিপন পন্ডিত বাড়ির নিকটস্থ রাবনাবাদ নদী থেকে শিকার করা ইলিশ এই ইউনিয়নের গোলবুনিয়া গ্রামের ডাঙ্গা বাজারের মৎস্যব্যবসায়ি মো. মিলন মৃধার গদিতে ৬ হাজার ২৫০ টাকায় ক্রয় করেন।
মোঃ রিপন পন্ডিত জানায়, আমাদের জালে ইলিশ ধরা না দেওয়ায় হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে আসছিলাম। এক সপ্তাহ পর আজ (বৃহস্পতিবার) আমার ছোট ভাই শাহাবুদ্দিন পন্ডিত অসুস্থ্য থাকায় আমাদের পিতা ও আমি দুই জনে আল্লাহর কাছে মাছের জন্য প্রার্থনা করলে আল্লাহ আমাদের প্রার্থনা রক্ষা করেছেন। আমাদের জালে মাত্র দুটি ইলিশ শিকার হয়েছে। বড়টির ওজন হয়েছে ২ কেজি ৫০০ গ্রাম, এটি বিক্রি করেছি ২ হাজার ৫০০ টাকা কেজি দরে ৬ হাজার ২৫০ টাকা এবং ছোটটির ওজন হয়েছে ১ কেজি ৫০০ গ্রাম, এটি বিক্রি হয়েছে ১৮শত টাকা দরে ২ হাজার ৭০০ টাকায়। ইলিশ দুটি গোলবুনিয়া গ্রামের মৎস্য ব্যবসায়ি মিলন মৃধার কাছে বিক্রি করে দিয়েছি।
মৎস্য ব্যবসায়ি মিলন মৃধা জানায়, আমি মাছটি ক্রয় করেছি যশোর পাঠাবো। এটি সেখানের মোকামে এটি চড়া মূল্যে বিক্রি করতে পারবো সেই আশায়।
এব্যপারে কলাপাড়া সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো. কামরুল ইসলাম জনায়, মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে লক্ষ লক্ষ ইলিশ ডিম ছেড়ে দেওয়ার পরবর্তি সময়ে নিরাপদে সমুদ্রে যাতায়াত করতে পারে। ফলে ইলিশ পপুলেশনে দ্বী-বর্ষ বা তারও বেশি বয়সের ইলিশের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় ইলিশ মৌসুম শুরু হতে না হতেই সাগর মোহনা সংলগ্ন রাবনাবাদ নদে এমন বড় বড় সাইজের ইলিশ মাছ পাওয়া যাচ্ছে। আসছে ইলিশ মৌসুমে এমন বড় বড় ইলিশে প্রাচুর্যতা বৃদ্ধি পাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT