বকেয়া বেতন ও পরিচয়পত্র পেয়ে আনন্দে আত্মহারা মজুরী ভিত্তিক কর্মচারীরা স্যুট-বুট-টাইধারী ভুয়া শ্রমিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে-মেয়র সাদিক বকেয়া বেতন ও পরিচয়পত্র পেয়ে আনন্দে আত্মহারা মজুরী ভিত্তিক কর্মচারীরা স্যুট-বুট-টাইধারী ভুয়া শ্রমিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে-মেয়র সাদিক - ajkerparibartan.com
বকেয়া বেতন ও পরিচয়পত্র পেয়ে আনন্দে আত্মহারা মজুরী ভিত্তিক কর্মচারীরা স্যুট-বুট-টাইধারী ভুয়া শ্রমিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে-মেয়র সাদিক

3:24 pm , December 7, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের দৈনিক মজুরী ভিত্তিক প্রকৃত কর্মচারীদের তিন মাসের বকেয়া বেতন ও পরিচয় পত্র বিতরন করা হয়েছে। নতুন মেয়র দায়িত্ব গ্রহনের পরে এই প্রথম বেতন পেয়েছেন তারা। গতকাল শুক্রবার বিসিসি’র মজুরী ভিত্তিক কর্মচারীদের সাথে নবনির্বাচিত মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বেতন ও পরিচয়পত্র প্রদান করা হয়।
একটি পরিচ্ছন্ন নগরী ও দুর্নীতি মুক্ত নগরভবন গড়ে তোলা এবং নাগরিক সেবা শতভাগ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিসিসি কর্তৃক আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। তিনি বলেন, দামী গাড়ি, বাড়ি আর টাকার আশায় নয়, সাধারণ মানুষের মাঝে থাকার জন্য আমি মেয়র হয়েছি। দেশের যে ৮টি সিটি কর্পোরেশন রয়েছে তার মধ্যে একটি অন্যতম এবং ব্যতিক্রম ধর্মী সেবামুলক প্রতিষ্ঠান হবে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন। তাই বিসিসি’র প্রত্যেকটি কর্মকর্তা-কর্মচারীকে যে যার অবস্থান থেকে সৎ ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করবেন। মনে রাখতে হবে এটি জগনের একটি সেবামুলক প্রতিষ্ঠান।
নি¤œ শ্রেণির কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে করে মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, ‘যারা সুইপার, ঝাড়–দার সহ নি¤œ শ্রেণীর শ্রমিক-কর্মচারী রয়েছেন তারা সব থেকে দামী মানুষ। কেননা আপনাদের পরিশ্রম ও বদৌলতেই আমরা সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন নগরী পাই। অসদ কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে মেয়র বলেন, ‘আপনারা সততা ও নিষ্ঠার সাথে নগরবাসির সেবায় নিজেদের নিয়োজিত করতে পারলে আপনাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হবে না। বরং আপনারা যাতে হয়রানীর শিকার না হন সে জন্য আপনাদের পৃথক ব্যাংক হিসাব নম্বরে বেতনের টাকা জমা হয়ে যাবে। তবে যারা সুট-বুট-টাই পরে ভুয়া শ্রমিক সেজে বিগত সময়ে অর্থ লুটপাট করেছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এই সময় মেয়র সাদিক কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা বেতন-ভাতা নিয়ে চিন্তা করবেন না। আপনারা কাজ করবেন। বেতন-ভাতা দেয়ার দায়িত্ব আমার। এই সময় তিনি হুশিয়ারী উচ্চারন করে বলেন, কাজ করবে না এমন কর্মচারীর প্রয়োজন নেই। যারা কষ্ট করে পরিশ্রম করে তাদের বেতন দেয়ার দায়িত্ব আমি নিলাম। মেয়র আরো বলেন, পূর্বের তিন মাসের বকেয়া বেতন ব্যাংক একাউন্ট করার সাথে সাথে পরিশোধ করা হবে।
বিসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খাইরুল হাসান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বরিশাল সদর-৫ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কর্ণেল (অবঃ) জাহিদ ফারুক শামীম ও বিসিসি’র সচিব ইসরাইল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
সভায় বিসিসি’র এক হাজার ৪৫৬ জন দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মচারীদের মধ্যে প্রকৃত মজুরী ভিত্তিক কর্মচারীদের পরিচয়পত্র ও তিন মাসের বকেয়া বেতন প্রদান করা হয়। পাশাপাশি কাজ না করেও বিগত মেয়র এর আমল থেকে সুবিধা ভোগকারী সুট-টাই পড়া ভুয়া কর্মচারীদের চিহ্নিত করা হয় এই সভার মাধ্যমে।
উল্লেখ্য, সিটি কর্পোরেশ প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর এই প্রথম কোন মেয়র চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারীদের সাথে উমুক্ত মতবিনিময় সভা করেন। এই সময় তিনি তাদের সুখ-দু.খের কথা শুনেন। এছাড়াও মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারীদের সাথে মধ্যাহৃ ভোজে অংশ নিয়েছেন। মেয়রের সাথে মতবিনিময় ও মধ্যাহৃ ভোজে অংশ নিতে পেরে চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারীরা আনন্দ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT