নগরীর দুই টেলিফোন এক্সচেঞ্জে ত্রুটি ॥ বড় বিপর্যয়ের আশংকা নগরীর দুই টেলিফোন এক্সচেঞ্জে ত্রুটি ॥ বড় বিপর্যয়ের আশংকা - ajkerparibartan.com
নগরীর দুই টেলিফোন এক্সচেঞ্জে ত্রুটি ॥ বড় বিপর্যয়ের আশংকা

3:34 pm , December 1, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ টেলিফোন এক্সচেঞ্জের লাগাতর গোলযোগের কারনে মহানগরীতে যেকোন সময়ই ভয়াবহ বিপর্যয় ঘটে যেতে পারে। এমন আশংকায় মহানগরীর সচেতন নাগরিক সমাজে উদ্বেগ-উৎকন্ঠা বাড়লেও খুব একটা হেলদোল নেই রাষ্ট্রীয় টেলিকম কোম্পানী-বিটিসিএল-এর দায়িত্বশীল মহলে। নগরীর দমকল স্টেশন, কোতয়ালী থানা, মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগ ছাড়াও পুলিশ-প্রশাসন সহ বেশীরভাগ জন গুরুত্বপূর্ণ টেলিফোন নম্বরগুলোই ‘৬’ দিয়ে শুরু যে এক্সচেঞ্জের সাথে সংযুক্ত, সেখানে গত বছরখানেক যাবতই মারাত্মক গোলযোগ চলছে। অপরদিকে জাংশন ক্যাবল অকার্যকর হয়ে পড়ায় নগরীর বেশীরভাগ এলাকায় ‘৭’ দিয়ে শুরু এক্সচেঞ্জটির টেলিফোন সংযোগ বন্ধ গত প্রায় একবছর। ক্যাবলটি মেরামত বা পুনর্বাসন করে গ্রাহকদের সংযোগ চালু করার নুন্যতম কোন উদ্যোগই নেই বিটিসিএল-এর দায়িত্বশীল মহলের। দীর্ঘ দিনের পুরনো চীনা ‘সাংহাই-বেল’ কোম্পানীর ৬ দিয়ে শুরু টেলিফোন এক্সচেঞ্জটির ব্যাটারি অকার্যকর হয়ে পড়ায় যেকোন বৈদ্যুতিক গোলযোগের সাথে সাথেই তা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এমনকি স্ট্যান্ডবাই জেনারেটর দু মিনিটের মধ্যে চালু হলেও এক্সচেঞ্জটি আর সয়ংক্রিয়ভাবে চালু হচ্ছে না। এক্ষেত্রে পুনরায় কম্পিউটারে কমান্ড দিলেও এক্সচেঞ্জটি চালু করতে প্রায় ৩০ মিনিট সময় লাগছে।
কিন্তু জনবল সংকট না থাকলেও বিটিসিএল-এর বরিশাল এক্সচেঞ্জের সুইচ রুমে বেশীর ভাগ সময়ই কোন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা থাকন না। এমনকি অফিস চলাকালীন সময়েও ৬ দিয়ে শুরু ৪ হাজার ২৫০ ধারণ ক্ষমতার টেলিফোন এক্সচেঞ্জটি ঘন্টার পর ঘন্টা বন্ধ থাকছে। অথচ এক্সচেঞ্জে সহকারী প্রকৌশলী থেকে বিভাগীয় প্রকৌশলীর কোন অভাব নেই।
এমনকি এক্সচেঞ্জটির জন্য ব্যাটারী সংগ্রহের প্রক্রিয়াও চলছে বিগত বছরখানেক ধরে। দুই ভোল্টের ২৪টি হেভি ডিউটি ব্যাটারী সংগ্রহে সম্প্রতি বিটিসিএল-এর সদর দপ্তরের অনুমতি মিললেও সব আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে কবে তা সংগ্রহ হবে সে বিষয়ে বলতে পাছেন না দায়িত্বশীল মহল। তবে যত দ্রুত সম্ভব এ লক্ষ্যে পদক্ষেপ গ্রহনের কথা জানিয়েছেন বরিশাল অঞ্চলের জেনারেল ম্যানেজার।
বর্তমানে দিনের যেকোন সময়ই ‘৬’ দিয়ে শুরু টেলিফোন এক্সচেঞ্জটি বন্ধ হলে তা আর সহজে সচল হচ্ছে না। বেশীরভাগ সময়ই দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের খুঁজেও পাওয়া যায়না বলে অভিযোগ রয়েছে। এমনকি জরুরী প্রয়োজনে অনেক সেবা প্রত্যাশীরা মহানগরীর একমাত্র দমকল স্টেশন সহ পুলিশ-প্রশাসনের সাখে যোগাযোগ করতে পারছেন না। দমকল ও পুলিশ স্টেশনের টেলিফোন বিকল থাকায় এ নগরীতে যেকোন সময়ই বড় ধরনের বিপর্যয় ঘটে যেতে পারে বলে শংকিত সচেতন মহল।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT