উজিরপুরে ইউপি চেয়ারম্যান নান্টুকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা ॥ আটক-৫ উজিরপুরে ইউপি চেয়ারম্যান নান্টুকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা ॥ আটক-৫ - ajkerparibartan.com
উজিরপুরে ইউপি চেয়ারম্যান নান্টুকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা ॥ আটক-৫

5:23 pm , September 22, 2018

শাকিল মাহমুদ বাচ্চু, উজিরপুর ॥ বরিশালের উজিরপুরের জল্লার ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু কে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করেছে দূবৃত্তরা। শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জের ধরে গতকাল শনিবার দিনভর নানা তান্ডব চলে জল্লা এলাকায়। ৪ টি ব্যবসায়ী দোকানঘর ভাংচুর ও একটি বহুতল বসত বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটেছে। এমনকি বরিশাল থেকে আসা ডিবি পুলিশ বহনকারী মাইক্রোবাসের গ্লাস ভেঙ্গে ফেলে উত্তেজিতরা। অগ্নিকান্ডের শিকার বহুতল ভবনটি রক্ষার জন্য উজিরপুরের ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যাওয়ার চেষ্টা করলে তারা ঘটনাস্থলে পৌছাতে পারেনি নান্টু সমর্থকদের বাধার কারনে। হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহত ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার’র পিতা হরলাল হালদার বাদী হয়ে উজিরপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। জানাগেছে, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের আভ্যন্তরীন বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকান্ডটি ঘটেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। পুলিশ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে স্বেচ্ছসেবকলীগ নেতাসহ ৩ জনকে আটক করেছে। জানাগেছে, শুক্রবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে মটর সাইকেল যোগে আসা দুই দূবৃত্ত নান্টু’র কারফা বাজারস্থ নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কাপড়ের দোকানে ঢুকে প্রকাশ্যে গুলি করে। এসময় নান্টু’র সহযোগি নিহার হাওলাদার নান্টুকে বাচাঁতে এগিয়ে এলে সেও গুলিবিদ্ধ হয়। স্থানীয়রা নান্টুকে আগৈলঝাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে। বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু’র মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পরলে তার সমর্থকরা বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভিড় জমায়। সেখানে উপস্থিত হন নান্টু’র ঘনিষ্টজন বরিশাল-২ আসনের সংসদ সদস্য তালুকদার মোঃ ইউনুস। শনিবার সকালে উজিরপুর উপজেলা আ’লীগের উদ্যোগে ইউপি চেয়ারম্যান নান্টু হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করা হয়।
সরেজমিনে জানা গেছে, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি বিশ্বজিৎ হালদার ও জল্লা ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য ও জল্লা ইউনিয়ন স্বেচ্ছসেবকলীগের সভাপতি তাইজুল ইসলামের বিরোধ চলে আসছিল। ব্যবসায়ী নিহার রঞ্জন সমাদ্দার (৩৭) জানান, অতি সম্প্রতি জল্লা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য ও স্বেচ্ছসেবকলীগের নেতা তাইজুল ইসলাম, জল্লা ইউনিয়ন আ.লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক মো. নান্নু সিকদার, জল্লা ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি মো. মামুন শাহ ও প্রভাবশালী ছাত্রলীগ নেতা মোঃ রাব্বি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুস্থদের ভিজিএফ এর চাল চুরির অভিযোগ এনে এলাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ মানববন্ধ করে চেয়ারম্যানের বিচারের দাবি জানান। এমন কি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন।
কারফা বাজারের ব্যবসায়ী তপন কুমার বিশ্বাস সহ অনেকেই জানান, শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বরিশালের উজিরপুর উপজেলার জল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি বিশ্বজিৎ হালদার(৫৫) কারফা বাজারে নিজ গার্মেন্টেসের দোকানে বসা ছিল। ওই সময় বাজারের মধ্যে পরপর কয়েক রাউ- গুলির শব্দ শোনা যায়। এ সময় বাজারের ব্যবসায়ী ও আগত সাধারন মানুষ প্রান ভয়ে দিকবিদিক ছোটাছুটি করতে থাকে। তারা কয়েকজন এগিয়ে গিয়ে চেয়ারম্যানের দোকানের মধ্যে আহত চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার ও তার সহযোগী নিহার হালদারকে দেখতে পান। এসময় ব্যবসায়ীদের ডাকচিৎকারে ব্যবসায়ী ও স্বজনরা আহতদের উদ্ধার করে পাশ্ববর্তী আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। অবস্থার অবনতি ঘটলে আহতদের বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার পৌনে ১০টায় চেয়ারম্যান মারা যান।
গতকাল শনিবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চেয়ারম্যান হত্যার প্রতিবাদে ও ঘটনায় জড়িতদের বিচারের দাবিতে কারফা বাজারে প্রায় ৪শত ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী। এ সময় তারা সড়ক অবরোধ করে রাখেন। সকাল ১১টার দিকে বিক্ষুব্ধ কতিপয় লোকজন বাজারের ব্যবসায়ী সোহাগ সরদার, হরষিত রায়সহ ৪টি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে হামলা করে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে বিক্ষুব্ধের একাংশ ও নিহতের স্বজনরা ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সোহাগ সরদারের ভাই খোকন সরদারের তিনতলা বাসভবনে হামলা করে ব্যাপক ভাঙচুর করে। এক পর্যায়ে আগুন ধরিয়ে দেন । বরিশাল ডিবি পুলিশ হামলা ভাঙচুরের অভিযোগে কারফা পাবলিক একাডেমীর দশম শ্রেনির ছাত্র শংকর ভাংড়াকে আটক করলে উত্তেজনা ছড়িয়ে । এ সময় বিক্ষুব্ধরা ডিবি পুৃলিশের গাড়ি ভাঙচুর করে।
উজিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিশির কুমার পাল বলেন, ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে জল্লা ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য ও জল্লা ইউনিয়ন স্বেচ্ছসেবকলীগের সভাপতি তাইজুল ইসলাম পান্নু, হরষিত রায় ও আইয়ুব হোসেনকে আটক করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT